‘খেলা হচ্ছে’, চাকরি চুরি কাণ্ডে তৃণমূল নেতার বাড়িতে চড়াও আমজনতা

122
'খেলা হচ্ছে', চাকরি চুরি কাণ্ডে তৃণমূল নেতার বাড়িতে চড়াও আমজনতা
'খেলা হচ্ছে', চাকরি চুরি কাণ্ডে তৃণমূল নেতার বাড়িতে চড়াও আমজনতা

‘খেলা হচ্ছে’, চাকরি চুরি কাণ্ডে তৃণমূল নেতার বাড়িতে চড়াও আমজনতা। সদ্যই সামনে এসেছে রাজ্যের স্কুলগুলিতে শিক্ষক নিয়োগ; অর্থাৎ এসএসসি-তে বড়সড় কেলেঙ্কারির ঘটনা। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের হাতে গ্রেফতার হয়েছে; রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর ঘনিষ্ঠ মডেল অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। আপাতত তারা রয়েছে জেল হেফাজতে। এই পরিস্থিতিতে এসএসসি গ্রুপ ডি-তে নিয়োগের নামে; চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আদায়ের অভিযোগ জনতার বিক্ষোভের মুখে পড়ল পূর্ব মেদিনীপুরের এক তৃণমূল নেতা।

শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতিতে, রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় গ্রেফতার হওয়ার পরেই; চরম অস্বস্তিতে তৃণমূল শিবির। এরপরে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে; চাকরির আশ্বাস দিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এবার চাকরির আশ্বাস দিয়ে বহু মানুষের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠল; পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুরের দাপটে তৃণমূল নেতা শিবশঙ্কর নায়েকের বিরুদ্ধে। আর এই অভিযোগে তৃণমূল নেতাকে না পেয়ে; তার স্ত্রী ও ছেলেকে বেধড়ক মারধর করলেন চাকরিপ্রার্থীরা।

আরও পড়ুন; বান্ধবীর ফ্লাটে কোটি টাকা, জেলের মেঝেতে শুয়ে রাত কাটছে পার্থ’র

পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর বিধানসভা এলাকার, ভগবানপুর ১ নম্বর ব্লকের; কোটবার গ্রাম পঞ্চায়েত। এই এলাকাতেই থাকেন পঞ্চায়েতের প্রাক্তন বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ শিবশংকর নায়েক। অভিযোগ, চাকরি দেওয়ার নাম করে; গ্রামবাসীদের কাছ থেকে কয়েক লক্ষ টাকা তিনি আদায় করেছেন। রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ; নান্টু প্রধানের মূল এজেন্ট ছিলেন শিবশংকর। শনিবার তার বাড়িতে চড়াও হয়ে, টাকা আদায়ের জন্য; দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখালেন চাকরিপ্রার্থীদের পরিবারের সদস্যরা।

তাঁকে বাড়িতে না পেয়ে স্ত্রী, ছেলের উপরই আছড়ে পড়ল রোষ। তাদের গাছে বেঁধে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। দীপক মাইতি নামে এক ব্যক্তি জানান, তিনি তার ছোট ভাইয়ের গ্রুপ ডিতে চাকরির জন্য; ওই তৃণমূল নেতা-কে ৮ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন। পরে দু-লক্ষ টাকা তিনি ফেরত দিয়েছেন। কিন্তু, তারপর চাকরি তো দূরের কথা; টাকাও ফেরত দেওয়া হয়নি। এমনকি থানায় গেলেও অভিযোগ নেওয়া হয়নি।

ওই তৃণমূল নেতার স্ত্রীর দাবি, যদি তার স্বামী টাকা নিয়ে থাকে; তাহলে যেমন তিনি দোষী তেমনি যারা টাকা দিয়েছে তারাও দোষী। এদিকে প্রতারিতদের দাবি, অবিলম্বে শিবশংকরকে গ্রেফতার করে; সবার টাকা ফেরানো হোক।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন