দশমীতে নিখোঁজ কিশোরীর দেহ উদ্ধার, ধ-র্ষ-ণ করে খু’ন অভিযোগ পরিবারের

71
দশমীতে নিখোঁজ কিশোরীর দেহ উদ্ধার, ধ-র্ষ-ণ করে খু'ন অভিযোগ পরিবারের
দশমীতে নিখোঁজ কিশোরীর দেহ উদ্ধার, ধ-র্ষ-ণ করে খু'ন অভিযোগ পরিবারের

দশমীতে নিখোঁজ কিশোরীর দেহ উদ্ধার, ধ-র্ষ-ণ করে খু’ন অভিযোগ পরিবারের। দশমীর রাত থেকেই নিখোঁজ ছিল কিশোরী। তিনদিন পরে তার দেহ পাওয়া গেল, হুগলির জাঙ্গিপাড়ার একটি ঝিলে। নাবালিকা ওই কিশোরীর পরিবারের অভিযোগ, তাকে ধ-র্ষ-ণ করে খুন করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ঘটনার পরই বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় বাসিন্দারা। এমনকী, সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধারেও, পুলিশকে বাধা দেন পরিবারের সদস্যরা। কোনওরকমে দেহ উদ্ধার করে, ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় পুলিশ।

দশমীর রাতে ভাই-বোনদের সঙ্গে নিয়ে, ঠাকুর দেখতে বেরিয়েছিল ওই নাবালিকা কিশোরী। ভাই-বোন বাড়ি ফিরলেও, সেই ক্লাস সেভেনে পড়া ওই কিশোরী আর বাড়ি ফেরেনি। রাতে মেয়েকে বাড়িতে ফিরতে না দেখে, চিন্তায় পড়ে যান পরিবারের সদস্যরা। আশপাশের এলাকায় খোঁজাখুঁজিও করেন তাঁরা। কিন্তু, কিশোরীর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। এরপর তাঁরা নিখোঁজ অভিযোগ দায়ের করেন থানায়। তবে পরিবারের অভিযোগ, পুলিশ তাঁদের সঙ্গে কোনও সহযোগিতা করেনি।

আরও পড়ুনঃ অজয় দেবগণের ফিল্ম দৃশ্যম, বাস্তবে সত্যি হল বাংলার হরিদেবপুর মা’র্ডারে

অবশেষে তিনদিন পর শনিবার, বাড়ি থেকে এক-কিলোমিটার দূরে খালের জলে ওই কিশোরীর নিথর দেহ ভাসতে দেখেন স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন এসে, কিশোরীর জামাকাপড় দেখে দেহ শনাক্ত করেন। ঝিলের পাশে পুরুষদের এক জোড়া জুতো, পড়ে থাকতে দেখেন তাঁরা।

আরও পড়ুনঃ বাংলার ‘যমালয়ে জীবন্ত মানুষ’, পুজো কার্নিভালে গরুর গুঁতোয় মৃত এক আহত অনেক

ঘটনার পর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করতে গেলে পুলিশকে বাধা দেন, ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্য এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ। পরিবারের অভিযোগ, থানায় অভিযোগ জানালেও পুলিশ সময়মত কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। পরিবারের অভিযোগ, তাকে ধ-র্ষ-ণ করে খুন করা হয়েছে।

অ্যাডিশনাল পুলিশ লাল্টু হালদার বলেছেন, “স্থানীয় বাসিন্দাদের সাহায্যে, মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত হলে বোঝা যাবে, ঠিক কী কারণে মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলে, সেটারও আমরা তদন্ত করে দেখব। অভিযোগ সত্যি প্রমাণ হলে, আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ময়নাতদন্ত করা হবে এবং গোটা বিষয়টি ভিডিওগ্রাফি করা হবে”।

তবে যেভাবে বাংলায় একের পর এক খু’নের ঘটনা ঘটছে, তাতে পুলিশ-প্রশাসনের উপর থেকে ভরসা উঠে গেছে মানুষের।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন