আত্মনির্ভর ভারত, দেশে তৈরি প্রথম জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করল নৌসেনা

124
আত্মনির্ভর ভারত, দেশে তৈরি প্রথম জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করল নৌসেনা
আত্মনির্ভর ভারত, দেশে তৈরি প্রথম জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করল নৌসেনা

আত্মনির্ভর ভারত, দেশে তৈরি প্রথম জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র; উৎক্ষেপণ করল ভারতীয় নৌসেনা। দেশের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ‘আত্মনির্ভর’ হওয়ার পথে; আরও একধাপ এগিয়ে গেল ভারত। বুধবার সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি, প্রথম জাহাজ বিধ্বংসী মিসাইল; উৎক্ষেপণ করল ভারতীয় নৌসেনা এবং প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা ডিআরডিও(DRDO)। এদিন ওড়িশার বালাসোরে ইন্টিগ্রেটেড টেস্ট রেঞ্জে; এই মিসাইলের সফল পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করা হয়।

ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে খবর, এদিন ওড়িশার বালাসোরে ইন্টিগ্রেটেড টেস্ট রেঞ্জে; এই জাহাজ বিধ্বংসী মিসাইলের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করা হয়। নৌসেনার একটি সি-কিং ৪২বি হেলিকপ্টার থেকে; ছোঁড়া হয় ক্ষেপণাস্ত্রটি। নৌসেনা ও ডিআরডিও-র যৌথ উদ্যোগে; এই মিসাইল পরীক্ষা চালানো হয়। প্রতিরক্ষায় বিশেষ করে মিসাইল প্রযুক্তিতে, আত্মনির্ভর হওয়ার ক্ষেত্রে; দেশের প্রথম জাহাজ বিধ্বংসী মিসাইলের উৎক্ষেপণ বড় পদক্ষেপ বলেই মনে করছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।

আরও পড়ুনঃ কাশীর পর মথুরা, কৃষ্ণের জন্মস্থানে মসজিদ বন্ধের আর্জি, ইদগাহ সিল করতে মামলা

চিনকে নজরে রেখেই, ভারতীয় নৌবাহিনীকে; অত্যাধুনিক মিসাইল ও রণতরীতে সাজিয়ে তুলছে ভারত। মঙ্গলবার মুম্বইয়ের মাজগাওঁ ডক থেকে, আইএনএস সুরাট ও আইএনএস উদয়গিরি নামে; দু-দুটি যুদ্ধজাহাজের উদ্বোধন করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। বুধবার জাহাজ বিধ্বংসী মিসাইল উৎক্ষেপণ করে; চিনা নৌবহরকেই বার্তা দিল নয়াদিল্লি; এমনটাই মনে করছেন প্রতিরক্ষা বিশেষঙ্গরা।

আরও পড়ুনঃ শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী, মন্ত্রীর মেয়ে, দুর্নীতির জালে জর্জরিত রাজ্য প্রশাসন

গত এপ্রিল মাসে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের আবহে; ফের অত্যাধুনিক ব্রহ্মস সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করে ভারতীয় নৌসেনা ও বিমানবাহিনী। লাদাখে সীমান্ত সংঘাতের পর থেকেই; মুখোমুখি ভারত ও চিনের সেনাবাহিনী। এই পরিস্থিতিতে গতবছর ভারত মহাসাগরে, সুমাত্রার পশ্চিমে নজরদারি চলতে দেখা যায়; ‘শিয়াং ইয়াং হং ০৩’ নামের একটি চিনা জাহাজকে।

উপগ্রহ ছবিতেও ওই চিনা রণতরীর; হদিশ পাওয়া যায়। তারপর থেকেই দারুণ সতর্ক ভারত। চিনা নৌসেনার গতিবিধির উপর; তীক্ষ্ণ নজর রেখেছে ভারত এর গোয়েন্দারা। নয়া দিল্লি সাফ জানিয়েছে, ভারতীয় জলসীমায় কোনও ধরনের অনুপ্রবেশ; মেনে নেওয়া হবে না। যদিও এই আগ্রাসী কার্যকলাপের পরও বেজিংয়ের দাবি; জলদস্যু দমনের জন্য আন্তর্জাতিক জলসীমায় নৌবহর পাঠাচ্ছে তারা। চিনকে সাবধান করতেই এবার, দেশে তৈরি প্রথম জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র; উৎক্ষেপণ করল ভারতীয় নৌসেনা।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন