উত্তরপ্রদেশে যোগীর বিজেপির ভয়ে, ভোটের লড়াই থেকেই পালাল কংগ্রেস

84
উত্তরপ্রদেশে যোগীর বিজেপির ভয়ে, ভোটের লড়াই থেকেই পালাল কংগ্রেস
উত্তরপ্রদেশে যোগীর বিজেপির ভয়ে, ভোটের লড়াই থেকেই পালাল কংগ্রেস

উত্তরপ্রদেশে যোগীর বিজেপির ভয়ে; ভোটের লড়াই থেকেই পালাল কংগ্রেস। হ্যাঁ, গল্প হলেও সত্যি। উত্তরপ্রদেশে দুটি লোকসভা উপনির্বাচন থেকে; এবার নিজেদের সরিয়ে নিল সনিয়া-রাহুলের কংগ্রেস। দল যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে না; তা জানিয়ে দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশ রাজ্য কংগ্রেসের সহ সভাপতি যোগেশ দীক্ষিত। রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের ভরাডুবি ফলকেই, সাফাই হিসেবে তুলে ধরেছেন; প্রদেশ কংগ্রেসের সহ-সভাপতি। তবে, কংগ্রেসের এই সিদ্ধান্তকে ঘিরে; রাজ্য ছাড়িয়ে দেশের রাজধানীতে শুরু হয়েছে জোর আলোড়ন।

উত্তরপ্রদেশের রামপুর ও আজমপড় লোকসভা আসনের উপনির্বাচন; কিন্তু ভোটের ময়দান থেকে না লড়েই পালিয়েই গেল কংগ্রেস। লোকসভা উপনির্বাচনে না লড়ার সিদ্ধান্ত; সোমবার উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হল। ভোটের লড়াই থেকে সরে আসার পিছনে; গত বিধানসভা নির্বাচনের ভরাডুবিকে কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন হাত শিবির। কংগ্রেস সূত্রে খবর, উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করার সিদ্ধান্ত পিছনে রয়েছে; দুই কেন্দ্রে দলের সাংগঠনিক দুর্বলতা।

কংগ্রেসের এই সিদ্ধান্তকে ঘিরে; ইতিমধ্যে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে জাতীয় রাজনীতিতে। সিদ্ধান্তের পিছনে উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেসের ভেঙে যাওয়া সংগঠন ও যোগ্য নেতৃত্বের অভাবকেই দায়ী বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। গত বিধানসভা নির্বাচনে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর নেতৃত্বে; উত্তরপ্রদেশে লড়েছিল কংগ্রেস। নির্বাচনে মাত্র ২.৩ শতাংশ ভোট পেয়েছিল কংগ্রেস। এই অবস্থায় লোকসভা উপনির্বাচন লড়লে; কংগ্রেসকে আরও লজ্জার মুখে পড়ত হত বলেই মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ ইতিহাসে প্রথমবার ভারতের কোন ভাষায় লেখা উপন্যাস পেল বুকার পুরস্কার

যদিও অন্য একটি অংশের মতে; ২০২৪ সালেই লোকসভা ভোট। উত্তরপ্রদেশের মতো রাজ্যে লড়তে গেলে; আঞ্চলিক দলের লেজুর ধরা ছাড়া কংগ্রেসের গতি নেই। সেক্ষেত্রে সোনিয়ার প্রথম পছন্দ অখিলেশ যাদব। তাই লোকসভা উপনির্বাচনে না লড়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণার মধ্যে; সমাজবাদী পার্টিকে বন্ধুত্বের বার্তা দেওয়া হল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

তাছাড়া সামনেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। রামপুড় ও আজমগড়ে বিরোধীরা জিতলে; রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আগে বড় ধাক্কা খাবে মোদী সরকার। সম্মিলিত বিরোধী জোটের স্বার্থে; কংগ্রেসের নির্বাচনে না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত বলেও মনে করা হচ্ছে। তবে নির্বাচনে না লড়ার পিছনে, নেতারা যতই সাফাই দেওয়ার চেষ্টা করুন না কেন; কংগ্রেসের ইতিহাসে পালিয়ে যাবার ঘটনা এই প্রথম। যা নিয়ে দেশ জুড়ে জোরদার প্রচার শুরু করেছে বিজেপি।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন