‘দুর্নীতি করে চাকরি’, তাড়াতে চায় না রাজ্য, “চাকরি যাবেই”, বিচারপতি গাঙ্গুলি

84
'দুর্নীতি করে চাকরি', তাড়াতে চায় না রাজ্য,
'দুর্নীতি করে চাকরি', তাড়াতে চায় না রাজ্য, "চাকরি যাবেই", বিচারপতি গাঙ্গুলি

‘দুর্নীতি করে চাকরি’, তাড়াতে চায় না রাজ্য, “চাকরি যাবেই”, বিচারপতি গাঙ্গুলি। অবিশ্বাস্য ঘটনা আমাদের বাংলায়। দুর্নীতি করে যারা চাকরি পেয়েছেন, তাদের চাকরি যাবে না। অবিশ্বাস্য কথা বলছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বাসু ও রাজ্য সরকার। “অবৈধভাবে নিযুক্তরা নিজেরাই চাকরি ছাড়ুন”, চাইছেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। “নাহলে কড়া ব্যবস্থা নেবে আদালত”। অন্যদিকে, দুর্নীতি করে চাকরি পেলেও, কারোর চাকরি যাক, সেটা চায় না রাজ্য। অবৈধভাবে নিযুক্তদের বহাল রেখেই, যোগ্যদের নিয়োগ করার পক্ষে জোর সওয়াল শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর।

এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে উত্তাল গোটা রাজ্য। দুর্নীতি করে চাকরি পাওয়া শিক্ষকদের, ৯ নভেম্বরের মধ্যে চাকরি ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছে হাইকোর্ট। না হলে বড় পদক্ষেপ করা হবে বলেও, হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গাঙ্গুলি। অন্যদিকে, দুর্নীতি করে চাকরি পেলেও, তাদের ছাঁটাই করতে চায় না রাজ্য।

আরও পড়ুনঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প, বেআইনি বলে বাতিল

বুধবার সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু বলেছেন, “মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্য সরকার কারোর চাকরি খেতে চায় না। কারণ তাঁদের চাকরির সঙ্গে, পরিবারের সদস্যদের আবেগ জড়িয়ে আছে। যে সমস্ত নিয়োগ নিয়ে সমস্যা রয়েছে, বিতর্ক রয়েছে সেই চাকরিও রক্ষা করতে চাই। অতীতে গোলমাল করেও যদি কেউ চাকরি পেয়ে থাকেন, তাঁদেরও চাকরিও রক্ষা করতে চায় রাজ্য”।

স্বাভাবিকভাবেই শিক্ষামন্ত্রীর এই বক্তব্যে, চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। “কেন দুর্নীতিবাজ শিক্ষকদের চাকরি থেকে ছাঁটাই করতে চায় না রাজ্য সরকার”? প্রশ্ন বিরোধীদের।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন