উত্তাল সমুদ্র, বেপরোয়া জুড়ি, সমুদ্রস্নানে দুর্ঘটনা ও মৃত্যু মন্দারমণিতে

200
উত্তাল সমুদ্র, বেপরোয়া জুড়ি, সমুদ্র উপভোগে দুর্ঘটনা ও মৃত্যু মন্দারমণিতে
উত্তাল সমুদ্র, বেপরোয়া জুড়ি, সমুদ্র উপভোগে দুর্ঘটনা ও মৃত্যু মন্দারমণিতে

উত্তাল সমুদ্র, বেপরোয়া জুড়ি; সমুদ্র উপভোগে দুর্ঘটনা ও মৃত্যু মন্দারমণিতে। সমুদ্রে স্নান করতে গিয়েই; এবার মৃত্যু হল ২ পর্যটকের। উত্তাল সমুদ্রে স্নানে নেমে, মন্দারমনির সমুদ্রে; তলিয়ে মৃত্যু দুই তরুণ-তরুণীর। কলকাতা থেকে মন্দারমনি বেড়াতে আসে; কলেজ বন্ধুদের একটি দল। বিকেলে স্নানে নেমে ঘটে বিপত্তি; উত্তাল সমুদ্রের ঢেউয়ের টানে তলিয়ে যায় ২ বন্ধু-বান্ধবী। তড়িঘড়ি ওই দুই যুবক-যুবতীকে উদ্ধার করে; নিয়ে যাওয়া হয় বালিসাই বড় বঙ্কুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে। সেখানে হাসপাতালের চিকিৎসক; তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন। বেপরোয়াভাবে সমুদ্র উপভোগ করতে গিয়ে; বেঘোরে প্রাণ খোয়ালেন কলকাতার দুই যুবক-যুবতী।

রবিবার দুপুরে তাঁরা বেড়াতে এসেছিলেন মন্দারমণি। কয়েকঘণ্টার মধ্যেই উত্তাল ঢেউয়ে, বেপরোয়াভাবে সমুদ্র উপভোগ করতে গিয়ে; বেঘোরে প্রাণ খোয়ালেন ওই দুই যুবক-যুবতী। সন্ধে নাগাদ সমুদ্র থেকে তাঁদের উদ্ধার করেন; কর্মরত নুলিয়ারা। দ্রুত বড়রাঙ্কুয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলেও; চিকিৎসক তাঁদের মৃত বলে ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুনঃ ‘অশনি সংকেত’, আয়লা, ফণী, আমফানের মতোই কি বাংলায় আছড়ে পড়বে অশনি

মন্দারমণি উপকূল থানা সূত্রে খবর, মৃত দুই পর্যটক হলেন; কলকাতার পার্ক সার্কাস এলাকার বাসিন্দা স্বাধীন সরফরাজ(২৩) এবং ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা সৃষ্টি গুপ্তা(২২)। তাঁরা রবিবার দুপুরে কলকাতা থেকে; মন্দারমণির সমুদ্রতটে আসেন। দুপুরের খাওয়াদাওয়া সেরে; সমুদ্রস্নানে নামেন তাঁরা। সমুদ্রে অতিরিক্ত রোমাঞ্চের আশায়; উত্তাল ঢেউয়ের ধাক্কা কাটিয়ে বেশ খানিকটা এগিয়ে যান দুজনে। তারপরেই নেমে আসে বিপর্যয়।

সবার নিষেধ অমান্য করে, অনেকটা দূরে চলে যাওয়ায়; জলের ধাক্কায় ক্রমেই গভীরের দিকে চলে যেতে থাকেন তাঁরা। সঙ্গী বন্ধুদের চিৎকারে; স্পিড বোট নিয়ে ছুটে আসেন উদ্ধারকারী নুলিয়াদের দল। ঢেউয়ের ধাক্কা কাটিয়ে দুই পর্যটককেই; সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করেন তাঁরা। তবে শেষ পর্যন্ত তাদের বাঁচান যায়নি। এরপরই মন্দারমণি উপকূল থানা থেকে, মৃতদের পরিবারে; দুর্ঘটনার খবর পাঠানো হয়। সেই সঙ্গে দেহ-দুটিকে ময়নাতদন্তের জন্য; কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়।

দুই যুবক-যুবতীর বন্ধুদের মারফত জানা গিয়েছে; দুজনেই কলেজের বন্ধু। মান্দারমনি ঘুরতে এসে, সমুদ্রস্নানে নেমে অনেকদূর চলে যান; জলের টানেই ঘটে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। কাঁথি মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সোমনাথ সাহা বলেন, “পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে; সমুদ্রে নেমে গিয়েছিলেন তাঁরা। জলের ঢেউ সামলাতে পারেননি; তাই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে”।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন