বিজেপির বিরুদ্ধে নীতীশ কুমারের সঙ্গে আরজেডি, কংগ্রেস, বাম, হিন্দুস্তানি আওয়াম মোর্চা

61
বিজেপির বিরুদ্ধে নীতীশ কুমারের সঙ্গে আরজেডি, কংগ্রেস, বাম, হিন্দুস্তান আওয়াম
বিজেপির বিরুদ্ধে নীতীশ কুমারের সঙ্গে আরজেডি, কংগ্রেস, বাম, হিন্দুস্তান আওয়াম

বিহারে বিজেপির বিরুদ্ধে মহাজোট। নীতীশ কুমারের জেডিইউ-র সঙ্গে আরজেডি-কংগ্রেস-বাম-হিন্দুস্তানি আওয়াম মোর্চা। টার্গেট ১২২, বিহারে এবার গড়তে চলেছে, আরজেডি-কংগ্রেস-বাম-জেডিইউ সরকার? বিজেপি-সঙ্গ ছেড়ে ইস্তফা দিলেন, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। ইস্তফা দিয়েই রাবড়ী দেবীর বাসভবনে গেলেন নীতীশ। বাম কংগ্রেসের সমর্থনে বিহারের মসনদে, ফের লালু-নীতীশ জুটি? মুখ্যমন্ত্রিত্বের পদে নীতীশ, উপ-মুখ্যমন্ত্রী লালু-পুত্র তেজস্বী। আপাতত এমন সমীকরণ বিহারের সরকার গঠনে।

জেডিইউ-৪৫, আরজেডি-৭৯, কংগ্রেস-১৯ মিলিয়ে, কি এবার নতুন সরকার? ১৬জন বিধায়ক নিয়ে কি, বাইরে থেকে সমর্থন করবে বামেরা? এমনিতে ২০২০ বিধানসভা নির্বাচনে, বিজেপি-জেডিইউ কেউই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। ২৪৩ আসনের বিহার বিধানসভায়, শাসক শিবির জেডিইউ-বিজেপির এনডিএ জোট জেতে ১২৫টি আসন। এর মধ্যে বিজেপি জিতেছিল ৭৪ আসন, নীতীশ কুমারের জনতা দল (সংযুক্ত) জিতেছিল ৪৩ আসন।

আরও পড়ুনঃ বিহারে ‘সত্ত্বাবদল’, জেডিইউ-বিজেপি জোটে ভাঙন, লালুর ছেলে তেজস্বীর হাত ধরলেন নীতীশ

হিন্দুস্তানি আওয়াম মোর্চা এবং বিকাশশীল ইনসান পার্টি, মোট ৮টি আসন জেতে। পরে বিকাশশীল পার্টির ৩ বিধায়ক, বিজেপিতে যোগ দেয়। অন্যদিকে, বিরোধীদের মধ্যে আরজেডি ৭৫টি আসন জেতে। কংগ্রেস জেতে ১৯টি আসনে। বামদের দখলে যায় ১৬টি আসন। পরে আসাদউদ্দিন ওয়েইসির দলের ৪ বিধায়ক, আরজেডিতে যোগ দিয়েছেন। ফলে আরজেডির আসন সংখ্যা হয় ৭৯।

আরজেডির ৭৯ এবং জেডিইউ-এর ৪৩ মিলিয়ে, ১১২ বিধায়ক এমনিই হয়। এটিই বিহার বিধানসভায় সরকার গড়ার ম্যাজিক-ফিগার। তার সঙ্গে কংগ্রেসের ১৯ এবং বামেদের ১৬টি আসন যোগ হলে মোট আসন গিয়ে দাঁড়ায় ১৫৭-তে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন