আনিসের দেহ কবর থেকে তুলতে অন্ধকারেই হাজির পুলিশ, ধাওয়া করে তাড়াল গ্রামবাসীরা

147
Anish Khan Death Controversy Police
আনিশের দেহ কবর থেকে তুলতে অন্ধকারেই হাজির পুলিশ, ধাওয়া করে তাড়াল গ্রামবাসীরা

ছাত্রনেতা আনিস খানের দেহ কবর থেকে তুলতে; ভোরের অন্ধকারেই হাজির পুলিশ। তারপরেই গ্রাম থেকে পুলিশকে; ধাওয়া করে তাড়াল গ্রামবাসীরা। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের জন্য; আনিসের দেহ তুলতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়ল পুলিশ। সঙ্গে ছিলেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও সিটের সদস্যরা। আনিসের দেহ তোলার জন্য অনুমতি নিতে; পুলিশ আনিসের বাড়িতে যাওয়ার চেষ্টা করতেই গ্রামবাসীরা বাধা দেন। পুলিশকে ধাওয়া করে গ্রামছাড়া করেন তাঁরা।

নিহত ছাত্রনেতা আনিস খানের দেহ; কবর থেকে তুলতে দিলেন না স্থানীয়রা। শনিবার দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের জন্য পুলিশ যায় সমাধিক্ষেত্রে; কিন্তু তখনই গ্রামবাসীরা পুলিশকে বাধা দেয়। শুক্রবার আনিসের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য; তাঁর বাড়িতে অনুমতি চাইতে যায় পুলিশ। তখন ছাত্রনেতার বাবা জানান; সোমবার সকালে আসতে, তাঁরা সহযোগীতা করবেন। কিন্তু এসডিপিও আমতা রাতেই পৌঁছন আনিসের বাড়িতে; স্থানীয় বাসিন্দারা দেহ তুলতে দেয়নি বলে জানাচ্ছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবারই কলকাতা হাইকোর্ট আনিশের মৃত্যুর ঘটনায়; রাজ্য সরকারের গঠিত সিটের তদন্তে আস্থা রেখে বেশকিছু নির্দেশিকা জারি করে। হাইকোর্ট পর্যবেক্ষণে জানিয়েছে; আপাতত সিটের তদন্তই চলবে। তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে ১৫ দিনের মাথায় রিপোর্ট দিতে হবে সিটকে ৷ এছাড়াও, আনিশের মৃতদেহ জেলা বিচারপতির উপস্থিতিতে; দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। আনিশের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন, কেন্দ্রীয় ল্যাবে পরীক্ষার জন্য; জেলা বিচারকের তত্ত্বাবধানে পাঠানোর নির্দেশও দিয়েছে আদালত।

শুক্রবার রাতেই আনিসের বাবাকে নোটিস দিয়ে পুলিশ জানায়; শনিবার ভোরে দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের জন্য দেহ তোলা হবে। কিন্তু আনিসের বাবা সালেম খান সিটকে জানান, তিনি অসুস্থ; তাই সোমবার সকালে যেন ময়নাতদন্ত করা হয়। এরপরও এদিন ভোরে আনিসের গ্রামে যায় পুলিশ; আর সেখানে গিয়েই বিক্ষোভের মুখে পড়ে।

এদিন ভোরবেলায় চলে আসে পুলিশ-বাহিনী।‌ হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী; পরিবারের পক্ষ থেকে আনিসের বাবা বা অন্য কোনও সদস্যের সেখানে উপস্থিত থাকার কথা। কিন্তু কাউকেই দেখা যায়নি; স্থানীয় বিডিও এবং বিএমওএইচ উপস্থিত ছিলেন। এরপর মাইকিং করে জানানো হয়; আনিসের দেহ তোলা হবে। তখনই গ্রামবাসীরা রে-রে করে তেড়ে আসেন; আর বাধা দেন। গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন; আগেই আনিসের বাবার সঙ্গে কথা হয়েছিল পুলিশের। তারা সোমবার দেহ নিয়ে যাবার কথা জানিয়েছেন; তাহলে শনিবার কাকভোরে অন্ধকারে কেন পুলিশ এল?

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন