মেয়াদ বৃদ্ধি রাজ্য পে কমিশনের হতাশ রাজ্য সরকারি কর্মীরা

1217
The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

কলকাতাঃ রাজ্য সরকারি কর্মীদের হতাশ করে ফের ৬ মাসের জন্য মেয়াদ বৃদ্ধি হল রাজ্য পে কমিশনের। ২০১৯ এর শুরুতেই ষষ্ঠ বেতন কমিশন কার্যকরের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছিল রাজ্য সরকার। আপাততঃ সেই সম্ভাবনা বিশ বাও জলে।

নবান্ন থেকে জারি করা নোটিশে বলা হয়েছে ফের ৬ মাসের জন্য মেয়াদ বৃদ্ধি হল রাজ্য পে কমিশনের। অভিরূপ সরকার জানিয়েছেন আরও ৬ মাসের জন্য এই কমিটিকে এক্সটেনশন করা হল।

Image Source: Google

জানা গিয়েছিল, শুনানির কাজ প্রায় শেষ করে ফেলেছে অভিরূপ সরকারের নেতৃত্বাধীন কমিশন। সূত্রের খবর, রাজ্যের মোট ৪১১ টি কর্মী সংগঠনের শুনানি শেষ। বিভিন্ন কর্পোরেশন বোর্ডের শুনানিও হয়েছে। রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দফতর ধরে শুনানি চলছে। পুজোর আগেই তা শেষ হবে বলে মনে করা হচ্ছিল।

আরও পড়ুন: ছোট মেয়েকে হারিয়ে মনমরা মা শীলা ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা 

এ বছরের ২৭ নভেম্বর পে কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। তার আগেই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে জমা পড়ার কথা ছিল বেতন কমিশনের রিপোর্ট। তারপরই বেতন বৃদ্ধি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর। সবকিছু ঠিকঠাক চললে নতুন বছরের প্রথম ভাগেই বর্ধিত হারে বেতন পেতেন রাজ্য সরকারি কর্মীরা।

Image Source: Google

এই নিয়ে বারবার, রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ-র দাবি এবং ষষ্ঠ বেতন কমিশন দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি পাঠিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কো-অর্ডিনেশন কমিটি৷ এমনকি চিঠি দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠনগুলিও। তবে সেই সব দাবি ও ষষ্ঠ বেতন কমিশন এখন বিশ বাও জলে বলেই মনে করছে সরকারি কর্মীরা ও রাজ্য সরকারি কর্মীদের সংগঠনগুলিও।

আরও পড়ুন: কলকাতা পুলিশে প্রচুর পুরুষ-মহিলা সিভিক ভলেন্টিয়ার নিয়োগ

গত বছরেই ষষ্ঠ বেতন কমিশনের মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ায় রাজ্য সরকার। ২০১৭ তে বাড়ানোর এই বছরের ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত এই সময়সীমা ছিল। গত বছরেও অর্থ দপ্তর থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে ২০১৮ সালের ২৭ শে নভেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বাড়ানোর কথা বলা হয়।

Image Source: Google

২০১৮ এর শেষে এসেও আবার ৬ মাসের জন্য কমিশনের সময়সীমা বাড়াল মমতা ব্যানার্জী সরকার। ফলে ষষ্ঠ বেতন কমিশন লাগু হতে আরও সময় লাগবে।

আরও পড়ুন: উত্তরবঙ্গের জনবহুল স্টেশনেও কি লুকিয়ে আছে বিপদ

সরকারি কর্মীদের বেতন, পদের সংখ্যা বাড়ানো–সহ অন্যান্য বিষয়ে সংস্কার আনার জন্য ২০১৫ সালে ষষ্ঠ বেতন কমিশন তৈরি হয়। ৮ সদস্যের এই কমিশনের চেয়ারম্যান অর্থনীতিবিদ অভিরূপ সরকার।

রাজ্য সরকারের বিভিন্ন কর্মী সংগঠন ছাড়াও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মী, আধিকারিকদের নিয়ে শুনানি শেষ করেছে কমিশন। এখন বিভিন্ন দপ্তরের সঙ্গে আলোচনা চলছে। তারপরেই রিপোর্ট তৈরির কাজ শুরু হবে।

Image Source: Google

আশা করা গিয়েছিল, এই বছরের নভেম্বরের মধ্যেই বেতন সংক্রান্ত সুপারিশ রাজ্য সরকারকে জমা দিতে পারবে এই কমিশন।‌ কিন্তু সেটা হল না।

নবান্নের এই নির্দেশকে খুব দুঃখজনক বলেছে সমস্ত সরকারি কর্মী সংগঠন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সরকারি কর্মীরা এই নির্দেশকে ‘কালীপুজো ও নতুন বছরের বোনাস’ বলে ব্যঙ্গ করেছেন।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন