রাজনৈতিক হত্যা না গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব, ভোটের সময় ডোমকলে খুন তৃণমূল নেতা

315
রাজনৈতিক হত্যা না গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব, ভোটের সময় ডোমকলে খুন তৃণমূল নেতা/The News বাংলা
রাজনৈতিক হত্যা না গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব, ভোটের সময় ডোমকলে খুন তৃণমূল নেতা/The News বাংলা

ভোটের আগে ডোমকলে খুন তৃণমূল নেতা। দলিয় বৈঠক সেরে বাড়ি ফেরার পথে খুন হলেন ডোমকলের তৃণমূল পঞ্চায়েত সমিতির কর্মধ্যক্ষ আলতাফ শেখ। বাইকে করে গড়াইমারি পঞ্চায়েতের উপপ্রধান সাবির শেখকে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে কুচিয়ামারা গ্রামে আক্রান্ত হন আলতাফ শেখ।

আরও পড়ুনঃ ভোটের দিন ঘোষণার পরেই প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে বাংলায় এগিয়ে তৃণমূল

ভোটের দিন ঘোষণার আট দিনের মাথায় ভোটের ঠিক আগেই মুর্শিদাবাদের ডোমকলে এক তৃণমূল নেতা খুন। মৃত নেতার নাম আফতাব শেখ। তিনি পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। মৃত নেতার পরিবারের অভিযোগ, গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব এর জেরেই এই খুন। যদিও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা অস্বীকার করেছেন ডোমকল পুরসভার চেয়ারম্যান সৌমিক হোসেন। একই সঙ্গে সিপিএম ও অধীর চৌধুরীর কংগ্রেসের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ ক্ষমতায় ফের মোদী, ভোটের আগেই জানাচ্ছে সাট্টাবাজার

জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে চার-পাঁচজন দুষ্কৃতি একটি ভ্যানে করে এসে তাঁদের বাইকের পথ আটকায়, ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়া হয়। অভিযোগ, মাটিতে ফেলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয় আলতাফ ও সাবিরকে। সাবির কোনওরকমে পালাতে পারলেও, ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আলতাফের। ডোমকল মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত ঘোষণা করা হয়। মৃত তৃণমূল নেতা ডোমকল পঞ্চায়েত সমিতির মৎস্য কর্মাধ্যক্ষ ছাড়াও গড়াইমারির অঞ্চল সভাপতি ছিলেন।

আরও পড়ুনঃ ভাটপাড়ায় অনাস্থা, তৃণমূল বনাম বিজেপি

গুরুতর আহত সাবিরের চিকিৎসা চলছে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ঘটনায় বিরোধীদের দিকে অভিযোগের তীর তৃণমূলের। ঘটনায় কংগ্রেস ও সিপিএম জড়িত বলে দাবি ডোমকলের পুরপ্রধান সৌমিক হোসেনের।

পুলিশ জানিয়েছে, এ দিন রাতে ডোমকল থেকে মোটর বাইকে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। কুচিয়া মোড় এলাকায় দুষ্কৃতীদের একটি গাড়ি তাঁর পথ আটকায়। এরপর কুপিয়ে খুন করা হয় তাঁকে। তাঁর সঙ্গী কোনরকমে আহত অবস্থায় পালাতে সক্ষম হন। রাত সাড়ে নটা নাগাদ খুনের ঘটনা ঘটে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ চোখ মেরে শাড়ির আঁচল ফেলে প্রচার মুনমুনের, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়

ডোমকল পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ্যক্ষ ছিলেন তিনি। বাইকে ফিরছিলেন তিনি। ওই বাইকেরই চালকের আসনে ছিলেন উপপ্রধান সাবির। উল্টো দিক থেকে আসা একটি মারুতি ভ্যান বাইকটিতে ধাক্কা মারে। পরে সেই মারুতি ভ্যান থেকে দুষ্কৃতীরা বেরিয়ে এসে আফতাব ও সাবিরের ওপর হামলা চালায় বলে জানিয়েছে পুলিশ। আফতাব শেখকে কোপানো হয়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর। কোনও রকমে প্রাণে বেঁচে যান সাবির। তাঁকে ডোমকল মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় চার দলের লড়াই, ২০১১ র ভুল ২০১৯ এ করল না কংগ্রেস

তবে তৃণমূলের তরফ থেকে যাই বলা হোক, কৃষি কর্মাধ্যক্ষ এর বাড়ির লোকজন বলছেন, এটা তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব। তার জেরেই এই খুন বলে জানান বাড়ির লোকজন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ মোদীর সঙ্গে সবাই চৌকিদার, অদ্ভুত প্রচার বিজেপির

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন