খাট ভেঙে পড়ে গেলেন শুভেন্দু অধিকারী, নির্যাতিতার বাড়িতে বিপত্তি

184
খাট ভেঙে পড়ে গেলেন শুভেন্দু অধিকারী, নির্যাতিতার বাড়িতে বিপত্তি
খাট ভেঙে পড়ে গেলেন শুভেন্দু অধিকারী, নির্যাতিতার বাড়িতে বিপত্তি

খাট ভেঙে পড়ে গেলেন শুভেন্দু অধিকারী; ময়নাগুড়ির নির্যাতিতার বাড়িতে জোর বিপত্তি। শুক্রবার বিজেপির একটি প্রতিনিধি দল শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে; জলপাইগুড়ির ময়নাগুড়ির নির্যাতিতার বাড়িতে যায়। সেখানে গিয়ে তিনি ঘরের খাটে; আরাম করে বসেন। আর তখনই ঘটে বিপত্তি; সেই খাট ভেঙে যায়। ফলে ধপাস করে পড়ে যান; রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

নির্যাতিতা কিশোরীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে এসেই; বিপত্তি ঘটল তাঁর। কারণ নির্যাতিতার বাড়ি এসে খাটে যেই বসলেন শুভেন্দু অধিকারী; সঙ্গে সঙ্গে সেটা হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। তিনিও টাল সামলাতে না পেরে; নিচে পড়ে গেলেন। তখন বিজেপির বাকি সদস্যরা; কোনওরকমে তাঁকে তোলেন। তবে তাঁর কোনও আঘাত লাগেনি; বলেই জানা গেছে। তবে ধাতস্থ হতে সময় লাগেনি তাঁর।

কিছুদিন আগেই বীরভূমের সিউড়িতে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে গিয়ে; পুলিশের ব্যারিকেড পড়ে পায়ে আঘাত পেয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। সেদিন স্থানীয় নার্সিংহোমে গিয়ে; তাঁর পায়ের চিকিৎসা করাতে হয়েছিল। ব্যান্ডেজ বেঁধে দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। এদিন ফের বিপত্তির মধ্যে পড়লেন; রাজ্যের বিরোধী দলনেতা।

এই ঘটনার পর তিনি কথা বলেন পরিবারের সঙ্গে। এদিন নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে, সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শুভেন্দু বলেন; “নির্যাতিতার বাবা তাঁকে জানিয়েছেন, প্রথমে পুলিশ গা-ছাড়া দিলেও পরে নড়েচড়ে বসেছে। এই ব্যাপারে শুভেন্দুরা কী পরামর্শ দিয়েছেন তাও বলেন এদিন”। শুভেন্দু জানিয়েছেন, “সংবাদমাধ্যমে খবর দেখানো ও আমাদের প্রতিবাদের পরে; পুলিশ একটু নড়েচড়ে বসলেও এরা কিছু করবে না। আমরা পরামর্শ দিয়েছি, যদি অপরাধীদের জেলে থাকার সময়ে ট্রায়াল শুরু করতে হয়; তাহলে সিবিআইকে দিয়ে তদন্ত করাতে হবে। নইলে ধ-র্ষকরা জেল থেকে বেরিয়ে ঘুরে বেড়াবে”।

এদিন শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে ময়নাগুড়ি আসেন; বিজেপি-র আরও ১৭ জন বিধায়ক। এদিন নির্যাতিতা নাবালিকার পরিবারের সঙ্গে; প্রায় ১৫ মিনিট ধরে কথা বলেন শুভেন্দু অধিকারী। ময়নাগুড়ির ধর্মপুর এলাকায় এক নাবালিকাকে; ধ-র্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠে‌। পরবর্তীতে নির্যাতিতার পরিবারকে মামলা তোলার জন্য; চাপ দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ ওঠে। এরপরই অপমান সহ্য করতে না পেরে; নির্যাতিতা গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। গত সোমবার শিলিগুড়ি মেডিকেল কলেজে; চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থাতেই তার মৃত্যু হয়। এরপর নির্যাতিতার পরিবার অপরাধীদের শাস্তির জন্য; সিবিআই তদন্তের দাবি করে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন