নারাজ পাওয়ার, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে মমতার বাজি গোপালকৃষ্ণ

81
নারাজ পাওয়ার, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে মমতার বাজি গোপালকৃষ্ণ
নারাজ পাওয়ার, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে মমতার বাজি গোপালকৃষ্ণ

নারাজ পাওয়ার, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে মমতার বাজি গোপালকৃষ্ণ। রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী জোটের; প্রার্থী হচ্ছেন না শরদ পাওয়ার। রাষ্ট্রপতি পদে প্রার্থী হওয়ার দৌড় থেকে; নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন এনসিপি সুপ্রিমো। সোমবার মহারাষ্ট্রের মন্ত্রীদের বৈঠকে পাওয়ার জানিয়েছেন; তিনি বিরোধী জোটের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হচ্ছেন না। রাষ্ট্রপতি নির্বাচনকে সামনে রেখে, বুধবার দিল্লিতে বৈঠকে বসছে বিরোধী দলগুলি। তার আগেই পওয়ারের এই ঘোষণা; বিরোধী শিবিরের জন্য কিছুটা হলেও ধাক্কা। তারপরেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে; চেষ্টা চলছে বাংলার প্রাক্তন রাজ্যপাল গোপালকৃষ্ণ গান্ধীকে রাজি করানোর।

এই প্রস্তাবে না বলেননি গোপালকৃষ্ণ গান্ধী। এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, বিরোধীদের প্রস্তাব ভাবনা-চিন্তা করে দেখতে; সময় চেয়েছেন গোপালকৃষ্ণ। বুধবারই নিজের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবেন; বলে জানিয়েছেন তিনি। রাজি হলে, সর্বসম্মতিতে বিরোধীদের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হবেন গোপালকৃষ্ণ; কারণ এর আগেই উপরাষ্ট্রপতি পদে; সর্বসম্মতি পেয়েছিলেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ “চলুন বাংলায় বুলডোজার সরকার গড়ি, ডান্ডা মেরে আবর্জনা সরাবে”

শরদ পওয়ার এই মুহূর্তে বিরোধী শিবিরের; সবচেয়ে বর্ষীয়ান নেতা। প্রায় সব প্রথমসারির বিরোধী নেতার সঙ্গেই; সুসম্পর্ক রয়েছে এনসিপি সুপ্রিমোর। তিনি প্রার্থী হলে সব বিরোধী দলকে; একছাতার তলায় আনার কাজটা অনেকটাই সহজ হত। কংগ্রেসের তরফেও পওয়ারকে; প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও; পওয়ার প্রার্থী হলে আপত্তি করতেন না। পওয়ারের নামে আপত্তি ছিল না; তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কেসিআরেরও। তাতেই পওয়ারের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা; জোরাল হচ্ছিল। কিন্তু এনসিপি প্রধান নিজেই নিজেকে সরিয়ে নিলেন।

পাওয়ার না করে দেবার পর, মমতার উদ্যোগেই; গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর নাম উঠে আসে। ২০০৪ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত; বাংলার রাজ্যপাল ছিলেন ৭৭ বছরের গোপালকৃষ্ণ। দীর্ঘদিন আমলাও ছিলেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কার মতো দেশে; ভারতের হাইকমিশনারও নিযুক্ত ছিলেন। এখন তিনি রাজি হন কিনা; সেটাই এখন দেখার।

আগামী ১৮ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন; ভোটগণনা ২১ জুলাই। বর্তমান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের মেয়াদ; শেষ হচ্ছে ২৪ জুলাই। তার আগেই গোটা প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে হবে। এখনও পর্যন্ত শাসক দল বিজেপিও; প্রার্থী হিসেবে কারও নাম চূড়ান্ত করতে পারেনি। কোন দুই ব্যক্তির মধ্যে দেশের রাষ্ট্রপতি পদের জন্য লড়াই হয়; সেটা দেখার অপেক্ষাতেই গোটা দেশ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন