২২ বছর পর ফের ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন

391
২২ বছর পর ফের ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন/The News বাংলা
২২ বছর পর ফের ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন/The News বাংলা

The News বাংলা, কাশ্মীর: ২২ বছর পর ফের কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হতে চলেছে। বুধবার রাজ্যপাল শাসনের ছমাসের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরই জম্মু-কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির সুপারিশ গৃহিত হয়। বুধবারই এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জারি করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। বুধবার রাত ১২টার পর থেকেই অর্থাৎ বৃহস্পতিবার থেকেই কার্যকর হবে কেন্দ্রের এই নির্দেশিকা।

আরও পড়ুনঃ EXCLUSIVE: কলকাতা থেকে পুলিশ ও ব্যবসায়ীদের টাকা যাচ্ছে জঙ্গিদের হাতে

দীর্ঘ ২২ বছর পর আবার জম্মু-কাশ্মীরে জারি হচ্ছে রাষ্ট্রপতি শাসন। বুধবারই এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জারি করে দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। পিডিপি-বিজেপি জোট ভাঙার পর, ছমাস আগেই উপত্যকায় জারি হয়েছিল রাজ্যপাল শাসন। বুধবারই সেই মেয়াদ শেষ হচ্ছে। ফলে, জম্মু-কাশ্মীরের উত্তপ্ত পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে আবার সেখানে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির নির্দেশ দেওয়া হল, বলে জানা গিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে।

২২ বছর পর ফের ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন/The News বাংলা
২২ বছর পর ফের ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন/The News বাংলা

তবে সরকারীভাবে জানান হয়েছে যে, জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের পাঠান প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতেই কেন্দ্রীয় সরকার রাষ্ট্রপতি শাসন জারির সিদ্ধান্তে সিলমোহর দিয়েছে। এখন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ সায় দিলেই জম্মু-কাশ্মীরে জারি হবে রাষ্ট্রপতি শাসন। তবে সেটা শুধু সময়ের অপেক্ষা মাত্র।

আরও পড়ুনঃ ‘কৃষি ঋণ মকুব’, মানুষ ও মিডিয়াকে চরম বোকা বানিয়ে ছলচাতুরী কংগ্রেসের

শেষবার ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হয়েছিল ১৯৯৬ তে৷ এরপর আবার ২০১৮র ১৯ ডিসেম্বর সেই একই নির্দেশিকা জারি করল নরেন্দ্র মোদী সরকার। বুধবারই এই সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনার জন্য বৈঠকে বসেছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। যে বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানেই এই রাষ্ট্রপতি শাসন জারির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরপর সেই সিদ্ধান্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয় জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিককে।

শহীদ জওয়ানকে সম্মান নয়, সেনাকে পাথর ছুঁড়ে দেশদ্রোহীরাই ভারতে 'নায়ক'/The News বাংলা
শহীদ জওয়ানকে সম্মান নয়, সেনাকে পাথর ছুঁড়ে দেশদ্রোহীরাই ভারতে ‘নায়ক’/The News বাংলা

কয়েকদিন আগেই উপত্যকার সাম্প্রতিক পরিস্থিতি সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছে পেশ করেছিলেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক। সূত্রের খবর, রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার ক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা পালন করেছে সত্যপাল মালিকের পেশ করা সেই রিপোর্টই।

আরও পড়ুনঃ শহীদ জওয়ানকে সম্মান নয়, সেনাকে পাথর ছুঁড়ে দেশদ্রোহীরাই ভারতে ‘নায়ক’

দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর চলতি বছরের জুন মাসে জম্মু-কাশ্মীরে পিডিপির সঙ্গে জোট ভেঙে দিয়েছিল বিজেপি। সরকারের উপর থেকে সমর্থন তুলে নেয় বিজেপির ২৫ জন বিধায়ক। ফলে ৮৭ আসন বিশিষ্ট জম্মু-কাশ্মীর বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারায় মেহবুবা মুফতির সরকার।

আরও পড়ুনঃ নেতাদের গুন্ডা পোষা না গুন্ডাদের নেতা হওয়া, প্রকাশ্যে বন্দুকবাজির কারন কি

মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন মেহবুবা মুফতি। কাশ্মীরে জারি হয় রাজ্যপালের শাসন। এরপর কংগ্রেস, পিডিপি ও ন্যাশনাল কনফারেন্স মিলে উপত্যকায় সরকার গড়ার চেষ্টা করলেও, তা সফল হয়নি। জম্মু ও কাশ্মীরের বিধানসভা ভেঙে দেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক।

২২ বছর পর ফের ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন/The News বাংলা
২২ বছর পর ফের ভূস্বর্গে রাষ্ট্রপতি শাসন/The News বাংলা

জানা গেছে, প্রাথমিক ভাবে ৬ মাসের জন্য রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হল। তবে, এই ছমাসের মধ্যে যদি নির্বাচন না হয় জম্মু-কাশ্মীরে, তাহলে ফের পরবর্তী ৬ মাসের জন্য রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হতে পারে উপত্যকায়।

আরও পড়ুনঃ স্কুলে শুট আউট, তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে শিক্ষকদের লক্ষ্য করে গুলি

জম্মু ও কাশ্মীরের বিধানসভা ভেঙে দেবার সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা মামলাটি গত ১১ ডিসেম্বর খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। ফলে আরও রাজনৈতিক অচলাবস্থার দিকে চলে যায় রাজ্যটি।

আরও পড়ুনঃ শিক্ষিতদের বিধায়ক করল তেলাঙ্গানা, কবে শিখবে বাংলা

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে জম্মু ও কাশ্মীরে ফের নির্বাচন করানো ছাড়া কোন রাস্তা খোলা নেই কেন্দ্রের কাছে। কিন্তু উপত্যকাকে সন্ত্রাসবাদ যেভাবে গ্রাস করেছে, তাতে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করানোই এখন বড় চ্যালেঞ্জ মোদী সরকারের কাছে। সেক্ষেত্রে পরিস্থিতি থিতিয়ে পড়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে কেন্দ্রকে।

পড়ুন হাড়হিম করা অদ্ভুত সত্য গল্প:
পড়ুন প্রথম পর্বঃ পৃথিবী এগোলেও তান্ত্রিকের কালো জাদু টোনায় ডুবে আফ্রিকা

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন