বিবেক দুবেকে তৃণমূলের এজেন্ট বলে কটাক্ষ মুকুল রায়ের

392
বিবেক দুবেকে তৃণমূলের এজেন্ট বলে কটাক্ষ মুকুল রায়ের/The News বাংলা
বিবেক দুবেকে তৃণমূলের এজেন্ট বলে কটাক্ষ মুকুল রায়ের/The News বাংলা

রাজ্যে অচলাবস্থা চলছে এবং ভোট গ্রহনের পরিবেশ নেই, রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরোধী দলগুলোর এই অভিযোগ বহুদিনের। এই অভিযোগেই কিছুদিন আগে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনে গিয়ে অভিযোগ জানিয়েছিল এবং রাজ্যের সকল বুথকে স্পর্শকাতর ঘোষনার দাবি জানিয়েছিল। আর এরপরেই রাজ্যে মুখ্য নির্বাচনী অফিসারের দফতরকে সমালোচনায় বিদ্ধ করেছিলেন মুকুল রায়। এবার বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেকেও ‘তৃণমূলের এজেন্ট’ বলে কটাক্ষ সেই মুকুল রায়ের।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় ৭ পর্বের ভোটে ঝড় তুলতে ১০ দিন জনসভা করবেন মোদী

ঘোষণা মত রবিবারই রাজ্যে আসেন বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে। ভোটের সময় রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গতিবিধি নিয়ন্ত্রন করবেন তিনিই। এর আগেই রাজ্যের রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে নির্বাচন কমিশনের তরফে রাজ্যে ৭ দফায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার ঘোষণা করা হয়েছিল। সোমবারই পুলিশ পর্যবেক্ষক রাজ্যের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ব্যক্তিদের সাথে আলোচনায় বসেন। আর তারপরেই তাঁর উদ্দেশ্যে তোপ দাগেন মুকুল রায়।

আরও পড়ুনঃ ভারতীর পর এবার মমতাকে নিজের মা বললেন মিমি

আলোচনার পর সমস্ত দিক বিবেচনা করে বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে জানান, “কিছু বুথে সমস্যা রয়েছে ঠিকই, কিন্তু তার জন্য সমস্ত বুথকে স্পর্শকাতর ঘোষনা করা সম্ভব নয়”। তিনি বলেন, “বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন দাবি থাকতেই পারে এবং রাজ্যের অবস্থা বুঝেই ৭ দফায় ভোট গ্রহনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন”।

আরও পড়ুনঃ হুমকি দিয়ে ভোট চাইবার ভিডিও প্রকাশ্যে, মিমির হয়ে শাসানি পঞ্চায়েত প্রধানের

রাজ্যের সব বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়োগের দাবি তুলেছিল বিরোধীরা, কিন্তু আলোচনার পর বিবেক দুবে পরিষ্কার করে কিছু জানাননি। ভোটের মুহুর্তে অবস্থা বুঝেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে তিনি জানান। ভোটের দিনও অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি বৈঠকে।

আরও পড়ুনঃ জম্মু কাশ্মীরের জন্য আলাদা রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী চাইলেন ওমর আবদুল্লা

এরপরেই পুলিশ পর্যবেক্ষককে এক হাত নেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। পুলিশ পর্যবেক্ষককে ‘তৃণমূলের এজেন্ট’ হিসেবে কাজ করার অভিযোগ তোলেন তিনি। বিজেপি নেতৃত্বের দাবিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি বলে তিনি অভিযোগ আনেন। দাবি মতো আলোচনায় বসে বিজেপির দাবি না মানলে তারাও আর পর্যবেক্ষককের সাথে এরপর আলোচনায় অংশ নেবেন না বলেই তিনি জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় ৭ পর্বের ভোটে ঝড় তুলতে ১০ দিন জনসভা করবেন মোদী

আর এই মারাত্মক অভিযোগের পরেই রাজ্য রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পরে গেছে। তৃণমূলের তরফ থেকে মুকুল রায়ের এই মারাত্মক অভিযোগ নিয়ে নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হবে বলেই জানান হয়েছে। এমনিতেই নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে সমস্যায় মুকুল রায়। এই মন্তব্য ভোট বাজারে তাঁকে আরও বিপদে ফেলতে পারে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুনঃ ভোট প্রচারে হেলিকপ্টার পাচ্ছেন না মমতা, অভিযোগের তীর কেন্দ্রের দিকে

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন