ফের ভূস্বর্গে চরম রাজনৈতিক ডামাডোল

337
Image Source: Google

The News বাংলা, কাশ্মীর: জম্মু-কাশ্মীরে রাজনৈতিক ডামাডোল চরমে। রাজ্যে সরকার গঠনের জন্য দাবি জানালেন পিপলস কনফারেন্স নেতা সাজিদ লোন এবং প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা পিডিপি সভানেত্রী মেহবুবা মুফতি। এর মধ্যেই বিধানসভা ভেঙে দিলেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক।

জম্মু ও কাশ্মীরের রাজনৈতিক নাটকে নয়া মোড়। ন্যাশনাল কনফারেন্স ও কংগ্রেসের সমর্থন নিয়ে মেহবুবা মুফতি সরকার গঠনের দাবি জানিয়ে চিঠি দেওয়ার কিছুক্ষণ পরেই পিডিপি-তে বিদ্রোহের কথা শোনা যায়। মেহবুবার দলের বিদ্রোহী নেতা ইমরান আনসারি দাবি করেন, তাঁর সঙ্গে ১৬ জন বিধায়ক আছেন।

আরও পড়ুন: ধর্মান্তরকরণের উদ্দেশ্যে এসে আদিবাসীদের হাতে নিহত মার্কিন খ্রীষ্টান মিশনারী

অন্যদিকে, পিপলস কনফারেন্স নেতা সাজ্জাদ গনি লোন আবার জানান, বিজেপি-র সমর্থনে সরকার গঠনের দাবি জানিয়ে তিনি রাজ্যপালকে চিঠি দিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যপালের শাসনের মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই বিধানসভা ভেঙে দেওয়া হল।

Image Source: Google

আগামী ১৯ ডিসেম্বর জম্মু-কাশ্মীরে কেন্দ্রীয় শাসনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। তার আগে রাজ্যে সরকার গঠন নিয়ে বুধবার দিনভর রাজনৈতিক মহলে আলোচনা চলে। অতীতের তিক্ততা ভুলে এ নিয়ে পাশাপাশি আসার ইঙ্গিত দেয় ন্যাশনাল কনফারেন্স এবং পিডিপি।

শোনা যায়, কংগ্রেসও এই জোটের বিষয়ে আগ্রহী। বিষয়টি জানতে পেরে সক্রিয় হয় বিজেপি শিবিরও। মত পার্থক্যগত বিরোধিতা থাকলেও পিপলস কনফারেন্স নেতা সাজিদ লোনকে সামনে রেখে ঘুঁটি সাজাতে শুরু করে তারা।

আরও পড়ুন: অমৃতসরে প্রার্থনাসভায় গ্রেনেড হামলায় পাকিস্তানের হাত

এর মধ্যেই সন্ধ্যায় রাজ্যে সরকার গঠনের দাবি জানিয়ে রাজ্যপালকে চিঠি পাঠান পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি। সরকার গঠনের মতো সংখ্যাগরিষ্ঠতা তাঁর পক্ষে আছে বলে চিঠিতে দাবি করেন তিনি।

পরে ট্যুইট করে পিডিপি নেত্রী তথা রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জানান, ফ্যাক্সের মাধ্যমে তিনি চিঠি পাঠানোর চেষ্টা করলেও তা সম্ভব হয়নি। এমনকী রাজ্যপালকে ফোন করলেও তাঁর সঙ্গে কথা বলা যায়নি।

আরও পড়ুন: ঘাসফুল ছেঁটে মমতার ‘কাননে’ কি এবার পদ্ম

এদিকে, এর কিছুক্ষণের মধ্যে রাজ্যপালের আপ্ত সহায়ককে হোয়াটসঅ্যাপে সরকার গঠনের দাবিপত্র পেশ করেন সাজিদ। ৮৭ আসনের জম্মু-কাশ্মীর বিধানসভায় সরকার গঠনের জন্য ন্যুনতম ৪৪ জন বিধায়কের সমর্থন প্রয়োজন ছিল। বিজেপির ২৬ এবং অন্যান্য ১৮ বিধায়কের সমর্থন তাঁর পক্ষে আছে বলে দাবি করেন সাজিদ।

Image Source: Google

ডামাডোলের মধ্যেই রাজভবন থেকে বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। এর বিরুদ্ধে বিরোধীরা আদালতে যাওয়ার চিন্তাভাবনা করছে বলে সূত্রের খবর।

এর আগে আজ ন্যাশনাল কনফারেন্সের সহ-সভাপতি ওমর আবদুল্লার সঙ্গে বৈঠকের পর জোট সরকার গঠনের জন্য হাত মেলানোর কথা জানান পিডিপি নেতা আলতাফ বুখারি। এরপর সন্ধেবেলা রাজ্যপালকে চিঠি দিয়ে মেহবুবা দাবি করেন, তাঁর সঙ্গে ৫৬ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে। তাই তাঁকে সরকার গড়তে দেওয়া হোক।

আরও পড়ুন: ভারতবাসীকে নেতাজীর মৃত্যুদিন জানাল বাংলার পুরসভা

সাজ্জাদ পাল্টা দাবি করেন, তাঁর সঙ্গে ৪৪ জন বিধায়কের সমর্থন আছে। তাই তাঁকে সরকার গড়ার জন্য ডাকা উচিত রাজ্যপালের। তবে কোনও দলকেই সরকার গড়ার সুযোগ না দিয়ে বিধানসভা ভেঙেই দিলেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক। ফলে,চরম ডামাডোলে জম্মু কাশ্মীরের রাজনৈতিক পরিস্থিতি।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন