যুদ্ধ লাগলে বাঁচতে সীমান্তে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করছে ভারত

362
জঙ্গি হামলা ঠেকাতে সীমান্তে নজরদারি বাড়াচ্ছে ভারত/The News বাংলা
জঙ্গি হামলা ঠেকাতে সীমান্তে নজরদারি বাড়াচ্ছে ভারত/The News বাংলা

পাকিস্তান সেনার কাজই হল সাধারণ মানুষের বাড়ি ঘর লক্ষ্য করে গুলি ও মর্টার ছোঁড়া। তাই জম্মু ও কাশ্মীরের পাকিস্তান সীমান্তবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের রক্ষায় মাটি খুঁড়ে ১৪ হাজার নিরাপদ বাঙ্কার নির্মাণ শুরু করছে ভারত। বোমা হামলা হলে ওই এলাকার বাসিন্দারা ওইসব বাঙ্কারে আশ্রয় নিতে পারে।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানে ভারতের বিমানহানার সময় জন্ম নবজাতকের নাম মিরাজ

ইটপাথর আর লোহার সমন্বয়ে নির্মিত এই বিপুল বাঙ্কার বানাতে ৫০ কোটি টাকার মতো ব্যয় হতে পারে বলে জানিয়েছেন সরকারি এঞ্জিনিয়াররা। স্থানিয় ঘরবাড়ির চেয়ে তিনগুন পুরু দেওয়াল ও ছাদ দিয়ে মাটির নিচের বাঙ্কারগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে।

যুদ্ধ লাগলে বাঁচতে সীমান্তে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করছে ভারত/The News বাংলা
যুদ্ধ লাগলে বাঁচতে সীমান্তে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করছে ভারত/The News বাংলা

মঙ্গলবার থেকেই নিয়ন্ত্রণরেখার (এলওসি) কাশ্মীর সীমান্তে ১২ থেকে ১৫টি এলাকায় ভারি বোমা বর্ষণ করে চলেছে পাকিস্তান। ভারতীয় বাহিনীর এক মুখপাত্র এমন দাবি করেছেন। ভারতও পাল্টা বোমা নিক্ষেপ করে বলে জানান তিনি।
এমন অবস্থায় ওইসব এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে জানান পুঞ্চ জেলার জেলা প্রশাসক রাহুল যাদব।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানের হাতে যুদ্ধবন্দি ভারতের যুদ্ধবিমান পাইলট উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন

তিনি আরও বলেন, ‘গত সপ্তাহে নতুন করে এসব শেল্টার নির্মাণের কাজে হাত দেওয়া হয়। সীমান্তে বাঙ্কার নির্মাণের এই প্রকল্পটি গত বছরের জুনে শুরু হয়। উভয় পক্ষ যখন বোমা বর্ষণ শুরু করে তাতে স্থানীয়দের ঘরবাড়ি ছেড়ে ছোটাছুটি করতে হয়। তাই এমন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে ভারত সরকার’।

আরও পড়ুনঃ যুদ্ধের উত্তেজনা ভারত পাক সীমান্তে নামল ট্যাঙ্ক, সমুদ্রে প্রস্তুত যুদ্ধজাহাজ

সীমান্তের ভারতপক্ষের গ্রামগুলোর বাসিন্দারা জানান, তারা ঘরবাড়ি ছেড়ে বারবার পালাতে পালাতে ক্লান্ত। এখানকার গরিব কৃষক পরিবারগুলো তাদের গবাদিপশু ও ফসল ফেলে এলাকা ছেড়ে যে কতটা ক্ষতির মুখে পড়েন তা অবর্ণনীয়। চাচওয়াল গ্রামের ৭৫ বছর বয়সি বাসিন্দা তানাত্তার সিং বলেন, ‘২০০২ সালে বাড়ির সামনে গুলিবিদ্ধ হয়ে তাঁর মেয়ের মৃত্যু হয়’।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীরে ভেঙে পড়ল ভারতীয় বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টার

ভারতীয় বাহিনীর একটি পর্যবেক্ষণ টাওয়ারের নিকটে গমক্ষেতে ঘেরা বাড়ি তানাত্তার সিংয়ের’। তিনি বলেন, ‘আমরা জানি যেকোনো সময় গোলাগুলি হতে পারে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের সীমান্ত এলাকায় থাকতে হয়।’
তানাত্তার সিং সহ গ্রামের অন্য বয়োজ্যেষ্ঠরা মাটি খোঁড়া দেখছিলেন। তাদের গ্রামের চারশো পরিবারের জন্য একটি বাঙ্কার নির্মাণে মাটি খোঁড়া হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ ভারত পাক সীমান্তে আকাশের লড়াইয়ে দুই দেশের দুই যুদ্ধবিমান ধ্বংস

বাঙ্কারগুলোর কিছু কিছু জলের নিচে, কিছু আবাদি জমির মধ্যে আবার কিছু আছে বাড়িঘরের আশপাশে।
তবে এই বাঙ্কার সাধারণ বোমা হামলা থেকে রক্ষা করতে পারবে বলে বাঙ্কার নির্মাণ প্রকল্পে নিয়োজিত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক এঞ্জিনিয়ার বলেছেন। পরিস্থিতি দেখে বিভিন্ন সীমান্ত এলাকায় স্কুলগুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ আবার সাফল্য ভারতীয় সেনার, কাশ্মীরে খতম দুই পাক জইশ জঙ্গি

কয়েক মাস ধরেই নিয়ন্ত্রণরেখার সীমান্ত ছাড়াও পাক-ভারত সীমান্তের বিভিন্ন জায়গায় গুলি ও বোমা বর্ষণের ঘটনা ঘটে চলেছে। আর গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলায় ৪৯ জন ভারতীয় আধাসামরিক সেনা নিহত হওয়ার পর উত্তেজনা তুঙ্গে উঠেছে।

এই সংক্রান্ত খবরঃ পাকিস্তানের যুদ্ধ বিমান ধ্বংস করে দিল ভারতীয় বিমান বাহিনী
এই সংক্রান্ত খবরঃ ভারতীয় যুদ্ধবিমান পাইলটকে ধরে ফেলার ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করল পাকিস্তান

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন