দূর্নীতি স্বজনপোষণ নেই- মনেও নেই

427

বিশেষ সংবাদদাতা : ২ রা অক্টোবর বললে মুহূর্তেই মহাত্মা গান্ধীর জন্মের কথা মনে পরে। জাতির জনকের জন্মদিনে জাতীয় ছুটিও দেওয়া হয়। অথচ মনেই পরে না ভারতের দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রীর কথা। আজ তাঁরও জন্মদিন।

১৮৬৯ সালের ২ রা অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী আর ১৯০৪ সালের ২ রা অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন লাল বাহাদুর শাস্ত্রী। অথচ, সারাজীবন মানুষের জন্য রাজনীতি করা সহজ সরল লাল বাহাদুর শাস্ত্রীর জন্মদিনে আমজনতার কোন পোস্ট বা প্রচার দেখা যায় না।

তাঁর আমলেই ভারতে শুরু হয় White Revolution ও Green Revolution। তৈরি হয় AMUL। তৈরি হয় National Dairy Development Board। তাঁর আমলেই চালু হয় The Food Corporation of India এবং The National Agricultural Products Board Act.

দেশে খাদ্য সংকটের সময় তাঁর একবেলা উপোস করে খাদ্যদান করার আবেদন সাড়া ফেলে দেয় গোটা ভারতবর্ষে। এখনও সেই স্মরণে দেশের অনেক জায়গায় ‘শাস্ত্রী ব্রত’ পালন করা হয়।

চীন ও পাকিস্তানের দিকে লক্ষ্য রেখে প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয়বরাদ্দ বাড়ানো তাঁর আমল থেকেই শুরু হয়। এতটাই দূরদর্শী ছিলেন তিনি।

শ্রীলঙ্কায় থাকা ভারতীয় তামিলদের জন্য শ্রীলঙ্কান প্রধানমন্ত্রী সিরিমাভো বন্দরনায়েকের সঙ্গে তাঁর চুক্তি আজও সিরিমা-শাস্ত্রী চুক্তি বলেই পরিচিত।

১৯৬৫ র ভারত-পাক যুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রী। ‘জয় জওয়ান, জয় কিষান’ (Hail the Soldier, Hail the Farmer) তিনিই প্রথম ঘোষণা করেন। যা আজও ভারতের ইতিহাসে চিরস্মরনীয় হয়ে আছে।

১৯৬৬, ১০ জানুয়ারী রাশিয়ার তাসখন্দে চুক্তির মাধ্যমে শেষ হয় ভারত-পাক যুদ্ধ। পরের দিন অদ্ভুত এক পরিস্থিতির মধ্যে মারা যান লাল বাহাদুর শাস্ত্রী। মৃত্যুর কারণ ‘Heart Attack’ হলেও এই মৃত্যু নিয়ে আজও সন্দেহের গন্ধ আছে। ভারতের দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রীর পোস্টমর্টেমও করা হয় নি। অনেকেই আজও আঙুল তোলেন ইন্দিরা গান্ধীর দিকে।

মৃত্যুর পরে পুরো কংগ্রেস আমলে লাল বাহাদুর শাস্ত্রীকে প্রচারের আলোয় আনা হয় নি। সেই ট্র্যাডিশন আজও চলছে। তাই মহাত্মা গান্ধী নিয়ে যে পরিমান পোস্ট, যা প্রচার আজ হল, তার ছিটেফোঁটাও দেখা গেল না লাল বাহাদুর শাস্ত্রীকে নিয়ে।

ভারতের সবচেয়ে সহজ সরল রাজনীতিবিদ ও সফল প্রধানমন্ত্রীকে মনে রাখার প্রয়োজন বোধ করি নি আমরা। কোন দূর্নীতিতে নাম জড়ায় নি যে !! স্বজনপোষণ করেন নি কখনও। প্রধানমন্ত্রী থাকাকালিন নিজের পরিবারকে কোনরকম সুযোগ-সুবিধা নিতে দেন নি তিনি, কেন মনে রাখব তাঁকে ??!!

আমজনতার চৈতন্য হোক।
আমাদের জন্য আজীবন কাজ করে যাওয়া লাল বাহাদুর শাস্ত্রীকে জন্মদিনে প্রণাম, শ্রদ্ধা।
শুভ জন্মদিন, ‘বোকা’ জনগণের আরও ‘বোকা’ জননেতা………..

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন