৩৬০০র বেশি পদে নিয়োগ, প্রচুর চাকরির সুযোগ নিয়ে এল সরকার

267
৩৬০০র বেশি পদে নিয়োগ, প্রচুর চাকরির সুযোগ নিয়ে এল সরকার/The News বাংলা
৩৬০০র বেশি পদে নিয়োগ, প্রচুর চাকরির সুযোগ নিয়ে এল সরকার/The News বাংলা

রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে বৃহস্পতিবার আরও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। রাজ্যে তৈরি হবে ২৫টি সাইবার ক্রাইম সেক্টর। প্রতিটি পুলিশ জেলায় থাকবে একটি করে সাইবার সেক্টর। এছাড়া সিআইডিতেও একটি সাইবার ক্রাইম সেক্টর থাকবে। এর জন্য ২৪৮টি পদ রাখা হয়েছে। এর ফলে সাইবার সংক্রান্ত অপরাধে তাড়াতাড়ি ব্যবস্থা নিতে পারবে সরকার। কমবে সাইবার অপরাধ।

এছাড়াও ২০০৭ সাল থেকে বন্ধ থাকা অঙ্গনওয়াড়ি স্কুলে সুপারভাইজার পদের নিয়োগ শুরু হবে বলে ঘোষণা রাজ্য সরকারের। ৩৩৭৬টি পদ খালি রয়েছে। খুব দ্রুত শুরু হবে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া। মূলত মহিলাদের ক্ষমতায়ন এর জন্যই এই পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের। ICDS সুপারভাইজার পদে নিযুক্ত হবেন শুধুমাত্র মহিলারাই।

আরও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় এদিন। বাড়ি করবেন? জমি কিনছেন? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার নিয়ে এল নতুন অ্যাপস। এবার বাড়িতে বসে সহজেই নিজের মোবাইলে পেয়ে যাবেন সব জমির সব তথ্য। নতুন অ্যাপস এর নাম ‘জমির তথ্য’। জমি সংক্রান্ত সব খবর মোবাইলেই পেতে সরকার আনল এই ‘জমির তথ্য’ অ্যাপস। রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর ফলে কমবে দুর্নীতি।

রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বৃহস্পতিবার। জমির নাম পরিবর্তনের সময় এবার থেকে আর লাগবে না মিউটেশন এর টাকা। কৃষি জমির ক্ষেত্রে আগেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য সরকার। এবার বসতবাড়ি এবং অন্যান্য সব জমির ক্ষেত্রে এই সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার।

জমির অবস্থান কি? জমির বর্তমান মালিক কে? কি পরিস্থিতিতে রয়েছে জমিটি? বাড়িতে বসেই জানা যাবে সব তথ্য। এবার থেকে আর কোন অফিসে গিয়ে হত্যে দিতে হবে না সাধারণ মানুষকে। তার জন্য নতুন অ্যাপস আনল রাজ্য সরকার। যার নাম রাখা হয়েছে ‘জমির তথ্য’।

যারা জমি কিনবেন বা বিক্রি করবেন তারা জমি সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য, এই নতুন অ্যাপস থেকে জানতে পারবেন। জমির দাগ নাম্বার, খতিয়ান, মালিক কে, জমির অবস্থান সহ সমস্ত তথ্য এই অ্যাপস থেকে জানতে পারা যাবে। এছাড়া আইনগত কোনো সমস্যা জমিতে রয়েছে কি না তাও জানতে পারা যাবে অ্যাপস থেকে।

ভোটের আগে চাকরি সহ বেশ কিছু চমক দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। এমনটাই বলছে রাজনৈতিক মহল। এতে লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূল সুবিধা পাবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন