অনুব্রতর অবর্তমানে বীরভূমে জায়গা নিতে পারতেন দুধকুমার, সুযোগ দেয়নি বিজেপি

87
অনুব্রতর অবর্তমানে বীরভূমে জায়গা নিতে পারতেন দুধকুমার, সুযোগ দেয়নি বিজেপি
অনুব্রতর অবর্তমানে বীরভূমে জায়গা নিতে পারতেন দুধকুমার, সুযোগ দেয়নি বিজেপি

অনুব্রতর অবর্তমানে বীরভূমে জায়গা নিতে পারতেন দুধকুমার, কিন্তু সেই সুযোগ দেয়নি বঙ্গ বিজেপি। অনুব্রত মণ্ডল আর দুধকুমার মণ্ডল। একজন তৃণমূলের দাপুটে নেতা, অন্যজন বিজেপির। তবে বীরভূমে দুই মণ্ডলের সম্পর্ক, প্রথম থেকেই একেবারে ‘সাপে-নেউলে’। অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে কোনও মন্তব্য করতে, কখনও পিছপা হননি রাজ্য বিজেপির বিদ্রোহী নেতা দুধকুমার মণ্ডল। বীরভূমে প্রথম অনুব্রতর বিরুদ্ধে, সুর চড়াতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। বীরভূমের একমাত্র বিরোধী নেতা, যিনি অনুব্রতকে হু’মকি দেবার সাহস রাখেন।

অনুব্রতর নকুলদানার পাল্টা, তিনি অনুব্রতকে ‘নির্বাচন কমিশনের নকুলদানা খাওয়া’-র হুমকি দিয়েছিলেন। আবার কখনও অনুব্রতর ‘তৃণমূলের কর্মীদের হাত কেটে নেওয়া’-র, হুমকি দিয়েছিলেন দুধকুমার। দুধকুমারের সঙ্গে অনুব্রতর বাকবিতণ্ডা, বারবারই শিরোনামে উঠে এসেছিল। এবার অনুব্রত মণ্ডলের গ্রেফতারের পরও, তা নিয়ে মুখ খুলতে পিছপা হলেন না তিনি। অনুব্রতকে ‘বাজে লোক’ বলে উল্লেখ করে বলেন, সঠিক কাজ হয়েছে আরও অনেক আগে হওয়া দরকার ছিল”।

আরও পড়ুনঃ বাবাকে মেরেছিল ‘অনুব্রতর দল’, কেষ্টদার জন্য চোখে জল তৃণমূলে ‘গদি’ পাওয়া হৃদয়ের

একটা সময় বীরভূম বিজেপির জেলা সভাপতি ছিলেন, এই দুধকুমার মণ্ডল। তখন অনুব্রতর সঙ্গে তাঁর টক্কর, দেখার মত ছিল। আজও মনে করা হয়, বীরভূমে বিজেপিকে দাঁড় করাতে পারেন, একমাত্র দুধকুমারই। কিন্তু দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জর্জরিত বিজেপি, আজও দুধকুমারকে সেই সুযোগ দেয়নি। জুনেই দুধকুমার তাঁর ফেসবুক পেজে লিখেছেন, “জেলা থেকে ব্লক কমিটি, আমার সাথে আলোচনা না করে কমিটি গঠন করেছে। তাই ভারতীয় জনতা পার্টির সমর্থক এবং কার্যকর্তাগণ আমাকে যারা ভালোবাসেন তার চুপচাপ বসে যান”।

এরপরেই তাঁকে শোকজ করে বিজেপি। জানা যায়, ব্লক কমিটি ও বুথ কমিটি গড়ার ব্যাপারে দুধকুমারের কোন প্রস্তাব মানেনই, দলেরই প্রাক্তন জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল। পরে দেখা যায় বুথ কমিটিতে দুধকুমার অনুগামীদের জায়গাই দেওয়া হয়নি। তারপরেই ওই ফেসবুক পোস্ট করেন, বিরক্ত দুধকুমার মণ্ডল। ঘটনায় দুধকুমারের পাশেই দাঁড়ান তথাগত রায় থেকে অনুপম হাজরা।

বিজেপির সর্বভারতীয় সম্পাদক অনুপম হাজরা, দুধকুমারের ফেসবুক পোস্টের ‘স্ক্রিনশট’-সহ ট্যুইট করেন। তিনি লেখেন, “বর্তমানে যাঁরা সংগঠনে আছেন, তাঁদের উচিত দুধকুমার মণ্ডলের মতো পুরনো মানুষ, যাঁরা সাংগঠনিকভাবে বলিষ্ঠ, তাঁদের অভিজ্ঞতা এবং পরামর্শকে যথাযথ সম্মান-গুরুত্ব দিয়ে সংগঠনের সামনের সারিতে আনা।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন