নতুন ভারতে আপোষ নয়, ভারতীয় পণ্য নিষিদ্ধ করার ‘পাল্টা’ দিলেন ভারতীয়রা

214
নতুন ভারতে আপোষ নয়, ভারতীয় পণ্য নিষিদ্ধ করার 'পাল্টা' দিলেন ভারতীয়রা
নতুন ভারতে আপোষ নয়, ভারতীয় পণ্য নিষিদ্ধ করার 'পাল্টা' দিলেন ভারতীয়রা

নতুন ভারতে আপোষ নয়; এবার ভারতীয় পণ্য নিষিদ্ধ করার ‘পাল্টা’ দিলেন ভারতীয়রা। পয়গম্বর হজরত মহম্মদকে নিয়ে, বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মার বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য; আরব দেশগুলি ভারতীয় পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছে। এবার পাল্টা ‘কাতার এয়ারওয়েজ বয়কটে’র ডাক দেওয়া হল; ভারতীয় নেটিজেন-দের তরফ থেকে। জোর ট্রেন্ড এই সংক্রান্ত হ্যাশট্যাগ টুইটার। টুইটারে লেখা হয়েছে, যে দেশ মকবুল ফিদা হুসেনকে নাগরিকত্ব দিয়েছে; যে দেশটি হিন্দু দেবতাদের নগ্ন এবং অশ্লীল ছবি দেখিয়ে ছবি তৈরি করেছে; সেই দেশটির নূপুর শর্মার বিবৃতি নিয়ে প্রতিবাদ করার কোনও অধিকার নেই।

কাতার এয়ারওয়েজকে বয়কট করার ডাক দিয়ে; ভিডিয়ো বানান ‘বাসুদেব’ নামে এক টুইটার ব্যবহারকারী। বাসুদেবের সেই প্রতিবাদী ভিডিয়ো নিয়েই শুরু হয়; একপ্রস্থ হাসি-ঠাট্টা। সেই থেকেই আহাদ নামের এক টুইটার ব্যবহারকারী; তাঁকে নিয়ে একটি স্পুফ ভিডিয়ো বানান। ধর্মীয় বিতর্ক। আর তার মাঝে পড়লেন; কাতার এয়ারওয়েজের সিইও আকবর আল বাকর। তাঁকে নিয়ে বানানো একটি মজার স্পুফ ভিডিয়ো; ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সবমিলিয়ে জোরদার বিতর্ক।

আরও পড়ুন; হজরত মহম্মদ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, ভারতে হা’মলার হু’মকি দিল আল কায়দা

এখানে থেমে থাকেনি অনেকেই। কেউ কেউ আবার টুইটে জানিয়েছেন; কাতার এয়ারওয়েজ-কে নিষিদ্ধ করা উচিত ভারতে। আরেক টুইটার ব্যবহারকারি লিখেছেন, “কাতার, আরব, ইরানের কোম্পানিগুলির নাম প্রকাশ করা হোক; যারা ভারতীয় পণ্য নিষিদ্ধ করেছে। আমরাও আমাদের দেশে; তাদের দ্রব্য নিষিদ্ধ করতে পারব”। বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে ইতিমধ্যেই; নূপুর শর্মাকে সাসপেন্ড করেছে বিজেপি। কিন্তু সাধারণ মানুষের একাংশের মধ্যে, বিজেপি নেত্রীর প্রতি সমর্থন যে রয়েছে; তা স্পষ্ট প্রমাণ মিলল একাধিক ব্যক্তির টুইটে। কেননা, তাঁরই সমর্থনে কাতার এয়ারলাইন্স বয়কটের ডাক দেওয়া হয়েছে।

নূপুরের মন্তব্য ইসলামের পরিপন্থি বলে; মার্কেট-সংস্থাগুলির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। ভারত থেকে পাঠানো প্যাকেটবন্দি চা, চাল, লঙ্কার গুঁড়ো, মশলাপাতি, প্লাস্টিকে মুড়িয়ে ফেলা হয়। সুপারমার্কেট থেকে ভারতীয় পণ্য যে সরিয়ে ফেলা হচ্ছে; তা আরবি-ভাষায় লেখা রয়েছে মুড়িয়ে ফেলা পণ্যগুলির উপর। ভারতীয় পণ্য বয়কটের ডাক দেওয়ার চিন্তাভাবনার কথাও; সুপার-মার্কেটগুলির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই, পাল্টা চাপ হিসেবে ভারতে; কাতার এয়ালাইন্সের উপর নিষেধাজ্ঞা জারির দাবি জানিয়ে; টুইটারে সরব হয়েছেন নেটিজেনরা।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন