বাংলায় ভোটের অশান্তি থামল না, পুরভোটেও সর্বত্র ঝামেলা সন্ত্রাস ছাপ্পা

168
West Bengal Municipality Election
বাংলার ভোটের হিংসা কমল না, পুরভোটেও সর্বত্র ঝামেলা সন্ত্রাস

বাংলায় ভোটের অশান্তি থামল না; পুরভোটেও সর্বত্র ঝামেলা সন্ত্রাস ছাপ্পা। লোকসভা বিধানসভা পঞ্চায়েত বা পুরসভা ভোট হোক; নিজের ভোট ঐতিহ্য বজায় রাখল বাংলা। সকাল থেকেই উত্তর থেকে দক্ষিন; সব জায়গা থেকেই অশান্তি ও সন্ত্রাস ও ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ আসছে। নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা পরেছে; অসংখ্য অভিযোগ। সকাল থেকে শুরু হয়ে গিয়েছে; রাজ্যের ১০৮টি পুরসভার নির্বাচন। তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় মুখপত্র জাগো বাংলায়, তৃণমূল কর্মীদের উদ্দেশ্যে; শান্তিপূর্ণ ভোটের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু রবিবার সকাল থেকেই; অন্য ছবি দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

সোনারপুরের বিদ্যানিধি স্কুলে বহিরাগতদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ; বাম, বিজেপি ও নির্দল প্রার্থীর এজেন্টকে মারধরের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। রিপোর্ট তলব করল নির্বাচন কমিশন।

কোন্নগর পুরসভার ১০ নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপি প্রার্থী কৃষ্ণা ভট্টাচার্যকে মারধরের অভিযোগ; অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে। কোন্নগর বটতলা জিটি রোড অবরোধ করে বিজেপি কর্মীরা। কৃষ্ণা ভট্টাচার্য নির্বাচনী কার্যালয় থেকে ফেরার সময়; ২৪ পল্লীর কাছে কয়েকজন দুষ্কৃতী তাঁকে ঘিরে ধরে মারধর করে বলে অভিযোগ।

মেদিনীপুর পুরসভার আট নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপি প্রার্থী কুহেলি দত্তের টেন্ট অফিস পোড়ানোর অভিযোগ উঠল শাসকদলের বিরুদ্ধে; বিজেপি অভিযোগ জানিয়েছে নির্বাচন কমিশনে। কাঁথি পুরসভার ৩ নং ওয়ার্ডে; ব্যপক ছাপ্পা ভোটের ভিডিও ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে রাজ্য জুড়ে।

বারাসতের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপি প্রার্থী শ্যামলী দাসের বিরুদ্ধে; ইভিএম আছাড় মেরে ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। পাল্টা শ্যামলী দাসের অভিযোগ; সেখানে বহিরাগতদের প্রবেশ হচ্ছিল। ভোটগ্রহণে ব্যাপক অনিয়ম চলছিল বলেই; তিনি ক্ষোভের জেরে ইভিএম ভেঙে দেন। ঘটনার পরই স্থানীয়রা বিজেপি প্রার্থীকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান।

বহরমপুর পুরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের জিটি আই স্কুলে ৪৬ নম্বর বুথের ভেতরে; কংগ্রেস এজেন্টকে ব্যপক মারধরের অভিযোগ; ঘটনাস্থলে কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী। বহরমপুর পুরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের জিটি আই স্কুলে ৪৬ নম্বর বুথের ভিতরে; কংগ্রেস এজেন্টকে ব্যাপক মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। সেখানেও ঘটনাস্থলে ছুটে যান অধীর চৌধুরী।

কোচবিহার পুরসভার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্গত মহারানি ইন্দিরা দেবী হাইস্কুলে ১৭৯ বুথে; তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভুয়ো এজেন্ট বসানোর অভিযোগ। বারংবার তিনি বিরোধীদের এজেন্টকে ধমকাচ্ছিলেন বুথের ভিতরে। বিরোধীদের অভিযোগে পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। যদিও তৃণমূল প্রার্থী অভিজিৎ মজুমদার জানিয়েছেন; ধৃত ব্যক্তি তৃণমূলের কেউ নয়।

জলপাইগুড়ি পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডে কংগ্রেস প্রার্থীকে বুথ থেকে বার করে দেবার অভিযোগ উঠল; পুলিশের এক ডিএসপি-র বিরুদ্ধে। সকালে ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণ ভাবে শুরু হলেও; কিছুক্ষণ পরেই উত্তেজনা সৃষ্টি হয় জলপাইগুড়ি হাইস্কুল বুথে। কংগ্রেসের তরফে অভিযোগ করা হয়; বাইরের লোকজন বুথের ভেতরে রয়েছে। কিন্তু পুলিশের এক ডিএসপি। অপরদিকে ডিএসপি হেডকোয়াটার্স-এর পক্ষ থেকে; এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

১০৮টি পুরসভার নির্বাচনে মোট ২২৭৬টি বুধ রয়েছে; নিরাপত্তার দায়িত্বে মোট ৪৪ হাজার রাজ্য পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বুথে বুথে মোতায়েন রয়েছে ইএফআর, এসটিএফ এবং কম্যান্ডো। কিন্তু তারপরেও ভোটগ্রহণের শুরুর থেকেই; উত্তেজনা দেখা গেল বুথে বুথে; নীরব দর্শক পুলিশ। পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি; তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে কাজ করছে পুলিশকর্মীরা; বলে অভিযোগ তুলেছে বিরোধী দলের এজেন্টরা। অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন