মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত বিজেপি নেত্রী সাধ্বী প্রজ্ঞা ভোটযুদ্ধকে ধর্মযুদ্ধ বললেন

296
ভোটযুদ্ধ কে ধর্মযুদ্ধ বললেন বিজেপি নেত্রী/The News বাংলা
ভোটযুদ্ধ কে ধর্মযুদ্ধ বললেন বিজেপি নেত্রী/The News বাংলা

ভোপালে এক সভায় এসে চলতি লোকসভা ভোটকে ধর্মযুদ্ধ বলে উল্লেখ করলেন মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত বিজেপি নেত্রী সাধ্বী প্রজ্ঞা। ভোট প্রচারের মঞ্চে আবারও হিন্দুধর্ম নিয়ে ধর্মীয় সুড়সুড়ি দিলেন বিজেপি নেত্রী। সাধ্বী প্রজ্ঞা হিন্দুত্বের প্রচার মুখ হিসেবে বিশেষ পরিচিত। ছাত্রীবস্থায় সংঘ পরিবারের ছাত্র সংগঠন এবিভিপি বা অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের সাথে যুক্ত ছিলেন তিনি। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের মহিলা শাখা এবং দুর্গাবাহিনীর সাথেও যুক্ত তিনি।

আরও পড়ুনঃ ভোটের দায়িত্বে থাকা অর্ণব রায়ের উধাও হওয়া ফিরিয়ে এনেছে রাজকুমার রায়ের স্মৃতি

বুধবার আনুষ্ঠানিক ভাবে বিজেপিতে যোগ দেন সাধ্বী প্রজ্ঞা ঠাকুর। বিজেপিতে যোগ দিয়েই এবারের চলতি লোকসভা নির্বাচনে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে ঘোষণা করেন তিনি। তিনি জানান, আনুষ্ঠানিক ভাবে তিনি বিজেপিতে যোগদান করে এবার তিনি ভোটে লড়ে নিশ্চিত জয়লাভ করবেন। ভোপালে দিগ্বিজয় সিংহের বিরুদ্ধে সাধ্বীকেই শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মনে করছে বিজেপি।

আরও পড়ুনঃ নদিয়ায় ইভিএমের দায়িত্বে থাকা নোডাল অফিসার নিখোঁজ, ভোটকর্মীদের মধ্যে চাঞ্চল্য

তিনি হিন্দু ও কাশ্মীরের সন্ত্রাসের ধারণার প্রচার করার প্রতিবাদে তার প্রতিপক্ষ দিগ্বিজয় সিংহের বিরুদ্ধে অভিযুক্ত করেন। ভোপাল লোকসভা কেন্দ্রে মোট ১৮ লক্ষ ভোটার, যার মধ্যে ২৫ শতাংশ সংখ্যালঘু। বিজেপি বহুদিন ধরেই কংগ্রেসের দিগ্বিজয় সিংহকে হিন্দু বিরোধী আখ্যা দিয়ে আসছে। সাধ্বী প্রজ্ঞা আগেই জানিয়েছিলেন, দিগ্বিজয় সিংহের মতো কংগ্রেসের কোনো হিন্দু বিরোধী নেতার বিরুদ্ধেই তিনি লড়াই করতে ইচ্ছুক।

আরও পড়ুনঃ ভোটের পরেও অশান্ত চোপড়ায় গুলির লড়াই, গুলিবিদ্ধ সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র

বৃহস্পতিবার একটি দলীয় সম্মেলনে কারাগারের অত্যাচারের কাহিনী বর্ণনা করতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন তিনি। সেখানে তিনি এমনও দাবি করেন যে জোর করে তাঁকে মালেগাঁও বিস্ফোরণে যুক্ত বলানোর জন্য কম চেষ্টা করেনি জেল কর্তৃপক্ষ। জেলের অত্যাচারের স্মৃতি রোমন্থন করে কেঁদে ফেললেন সাধ্বী প্রজ্ঞা। মালেগাঁও বিস্ফোরণের সাথে যুক্ত সন্দেহে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। সম্প্রতি তিনি জামিনে মুক্তি পাবার পরেই মধ্যপ্রদেশের ভোপাল লোকসভা কেন্দ্রে তাঁকে বিজেপি প্রার্থী ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুনঃ মমতার সভা আলো করে বসে দাগী সমাজবিরোধী, নির্বাচন কমিশনে গেল বিরোধীরা

১৯৮৯ সাল থেকে ভোপাল লোকসভা কেন্দ্রে একবারের জন্যেও জয়লাভ করেনি কংগ্রেস এবং ওই সময় থেকেই ভোপাল বিজেপির দুর্ভেদ্য গড় হিসেবে পরিচিত। বিজেপি সাংসদ অশোক সঞ্জার ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে ৩ লক্ষ ৭০ হাজার ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেন।

আরও পড়ুনঃ ভুল করে বিএসপি কে ভোট না দিয়ে নিজের হাতের আঙুল কেটে প্রায়শ্চিত্ব

চলতি ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেস এই আসনে দিগ্বিজয় সিংহকে প্রার্থী করেছে। ২০১৮ মধ্যপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনে ভোপাল লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত ৮ টি বিধানসভার মাত্র ৩ টি তে জয়লাভ করেছে কংগ্রেস।

আরও পড়ুনঃ দুদফায় ভোট থেকে শিক্ষা নিয়ে বাংলায় তৃতীয় দফায় সব বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন