ভোটের মধ্যেই ফের লজ্জায় রাহুল, হাতজোড় করে ক্ষমা চাইতে হল আদালতে

372
ভোটের মধ্যেই ফের লজ্জায় রাহুল, হাতজোড় করে ক্ষমা চাইতে হল আদালতে/The News বাংলা
ভোটের মধ্যেই ফের লজ্জায় রাহুল, হাতজোড় করে ক্ষমা চাইতে হল আদালতে/The News বাংলা

না, একের পর এক ভুল থেকেও শিক্ষা নেন নি কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। একবার ভুল করে সুপ্রিম কোর্টে ক্ষমা চেয়েও ফের একই ভুল করায় এবার সুপ্রিম কোর্ট চরম লজ্জায় ফেলল তাঁকে। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এর বেঞ্চে মঙ্গলবার ফের ক্ষমা চাইলেন রাহুল গান্ধী।

ভোটের মধ্যেই রাফাল বিতর্ক বা চৌকিদার চোর বিতর্কে আবার একরাশ লজ্জা নিয়ে এল কংগ্রেস ও কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর জন্য। চৌকিদার চোর বলায় সুপ্রিম কোর্টে ক্ষমা চাইতে হয়েছিল রাহুল গান্ধীকে। ভোট প্রচারে ভুল হয়ে গেছে বলেই গত সোমবার ক্ষমা চেয়েছিলেন রাহুল। কোথায় ক্ষমা চেয়েছেন প্রশ্ন করে দেশের শীর্ষ আদালত।

আরও পড়ুনঃ পায়ের ছাপ দেখিয়ে ভারতীয় সেনার দাবি, ইয়েতির অস্তিত্ব আজও আছে হিমালয়ে

চৌকিদারকে চোর বলে ভোটের মুখে সুপ্রিম কোর্টের নোটিশ পেয়েছিলেন রাহুল। ২২ শে এপ্রিলের মধ্যে জবাব দিতে হত কংগ্রেস সভাপতিকে। ২৩ শে এপ্রিল দেশের শীর্ষ আদালত এই নিয়ে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানানর কথা ছিল। কিন্তু তাঁর আগেই নিঃশর্তে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী।

কিন্তু ক্ষমা চাওয়ার পর ফের চৌকিদার চোর বলায় ফের আদালতের শরণাপন্ন হয় বিজেপি। মঙ্গলবার দেশের শীর্ষ আদালত প্রশ্ন করে কোথায় ক্ষমা চেয়েছেন রাহুল? এরপর আদালতে নিঃশর্তে ক্ষমা চেয়ে নেন রাহুল গান্ধী।

আরও পড়ুনঃ ভোটের মধ্যেই চরম সমস্যায় রাহুল, ভারতীয় নাগরিক প্রমাণ দিতে হবে দু সপ্তাহের মধ্যে

রাফাল চুক্তি নিয়ে তৈরি হওয়া বিতর্কে নানা সময়ে অযৌক্তিক ও বিতর্কিত মন্তব্য করে সকলকে বিভ্রান্ত করেছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, এমনটাই অভিযোগ ছিল বিজেপির। সুপ্রিম কোর্ট রাফাল নিয়ে রায় দেওয়ার পরও তা ভুল উদ্ধৃত করে বলেছেন, “সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, চৌকিদার চোর হ্যায়”।

এরই বিরুদ্ধে আদালতে আবেদন করেছিলেন বিজেপি নেত্রী মীনাক্ষী লেখি। তারই শুনানিতে রাহুল গান্ধীকে নোটিশ পাঠিয়েছিল শীর্ষ আদালত। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল, আদালত নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি বা নির্দেশ দেয়নি। ফলে রাহুলের মন্তব্য করা সঠিক হয়নি।

মানুষকে কেন ভুল বোঝাচ্ছেন রাহুল? ভোটের মুখে জবাব তলব করে সুপ্রিম কোর্ট নোটিশ দিয়েছিল কংগ্রেস সভাপতিকে। আর এই জন্যই তড়িঘড়ি ক্ষমা চেয়ে নেন রাহুল। কিন্তু ফের সেই এক ভুল করায় মামলা আবার গড়ায় আদালতে।

আরও পড়ুনঃ সনিয়া গান্ধীর থেকে মোদীকে দেশপ্রেম শিখতে বললেন সিধু

কোথায় ক্ষমা চেয়েছেন? এই বলে আদালত হুঁশিয়ারি দেয় রাহুল গান্ধীকে। এরপর মঙ্গলবার ফের সরাসরি ক্ষমা চেয়ে নিলেন কংগ্রেস সভাপতি। ভোটের মধ্যে ফের একবার ‘চৌকিদার চোর’ নিয়ে ল্যাজেগোবরে সনিয়া পুত্র।

চৌকিদার চোর হ্যায়। যা সুপ্রিম কোর্ট সরাসরি নাকচ করেছে। এর আগেও কংগ্রেস বারবার দাবি করেছে, রাফালে চুক্তির টাকা নিয়ে মোদী অনিল আম্বানিকে দিয়ে দিয়েছেন। যা শীর্ষ আদালত কখনও বলেনি। তাই সেই নিয়েই জবাব চাওয়া হয়।

কেন সুপ্রিম কোর্টের মুখে কথা বসাচ্ছেন রাহুল? ক্ষমাও চেয়ে নেন রাহুল। কিন্তু ফের সেই একই ভুল করে টুইট করেন কংগ্রেস সভাপতি। ফের আদালতে যায় বিজেপি। আবার ক্ষমা চাইতে হয় রাহুলকে।

আরও পড়ুনঃ বুধবার বাংলায় আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড় ফনি, টানা তিনদিন ধরে প্রবল ঝড় বৃষ্টির আশঙ্কা

রাহুলের বিরুদ্ধে রাফাল মামলায় অবমাননার অভিযোগ করেন বিজেপি নেত্রী মীনাক্ষী লেখি। সুপ্রিম কোর্টের বক্তব্য বিকৃত করে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করেছেন রাহুল, এমন অভিযোগই করা হয়। যার প্রেক্ষিতেই মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এর বেঞ্চ রাহুলকে নোটিশ পাঠিয়ে ছিল।

বিজেপির দায়ের করা মামলাতেই ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে নেন রাহুল। কিন্তু কোথায় ক্ষমা চেয়েছেন রাহুল, এই প্রশ্নের পর আবার ক্ষমা চাইতে হল রাহুলকে।

আর এটাকেই এই মুহূর্তে ভোটের ইস্যু করেছে বিজেপি। শুরু হয়ে গিয়েছে বিজেপি কংগ্রেস তরজা। তবে এই ঘটনায় যে কংগ্রেস ভোট প্রচারে বেশ ব্যাকফুটে চলে গেল সেটা বলছে রাজনৈতিক মহল।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন