উত্তরপ্রদেশে মহাজোটকে ‘শরাব’ বলে কটাক্ষ নরেন্দ্র মোদীর

227
উত্তরপ্রদেশে মহাজোটকে 'শরাব' বলে কটাক্ষ নরেন্দ্র মোদীর/The News বাংলা
উত্তরপ্রদেশে মহাজোটকে 'শরাব' বলে কটাক্ষ নরেন্দ্র মোদীর/The News বাংলা

উত্তরপ্রদেশে মহাজোটকে ‘শরাব’ বলে কটাক্ষ নরেন্দ্র মোদীর। উত্তরপ্রদেশের মেরঠ থেকে এবারের লোকসভা নির্বাচনের প্রচার শুরু করে এই ভাষাতেই রাজ্যে সপা-বিএসপি-আরএলডি জোটকে শরাব বা মদ বলে কটাক্ষ করলেন নরেন্দ্র মোদী। আর এরপরেই কংগ্রেসের তরফ থেকে মোদীকে ‘ভাষার ঠিক নেই’ বলে কটাক্ষ করা হয়।

আরও পড়ুনঃ বিজেপিকে সমর্থন করে কংগ্রেসের গরিবি হটাওকে কটাক্ষ মায়াবতীর

“সপার স, আরএলডির রা এবং বিএসপির ব আসলে শরাব, যা আপনাদের শেষ করে দেবে”। বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের মেরঠ থেকে এবারের লোকসভা নির্বাচনের প্রচার শুরু করে এই ভাষাতেই উত্তরপ্রদেশে সপা-বিএসপি-আরএলডি জোটকে শরাব বা মদ বলে কটাক্ষ করলেন নরেন্দ্র মোদী। সপা-বসপা মহাজোটকে ‘শরাব’ বলে কটাক্ষ, প্রচারের শুরুতেই স্বমহিমায় মোদী।

আরও পড়ুনঃ ওয়াইনাদে হিন্দুরা সংখ্যালঘু হওয়ায় জয় নিশ্চিত রাহুলের, অদ্ভুত যুক্তি কংগ্রেস নেতার

লোকসভা ভোটের প্রচারের শুরুতেই বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। উত্তরপ্রদেশে সপা-বসপা-আরএলডি মহাজোটকে ‘শরাব’ তথা মদের সঙ্গে তুলনা করলেন প্রধানমন্ত্রী। জনসভা থেকে মোদী বলেন, সমাজবাদী পার্টির. ‘স’ রাষ্ট্রীয় লোক দলের ‘রা’ আর বসপার ‘ব’ মেলালেই হয়ে যাবে ‘শরাব’।

আরও পড়ুনঃ মহাকাশে শত্রুর স্যাটেলাইট ধ্বংসে ভারতের হাতে অ্যান্টি স্যাটেলাইট অস্ত্র, বললেন মোদী

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য, দেশকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখতে এই ‘শরাব’ থেকে দূরে থাকতে হবে। শরাব মানেই ক্ষতিকর। মোদীর এই শরাব কটাক্ষের তীব্র প্রতিবাদ করেছে কংগ্রেস। দলের মুখপাত্র রণদীপ সূরজেওয়ালা বলেছেন, “প্রধামন্ত্রীর মতো সাংবিধানিক পদে থাকা একজন ব্যক্তির মুখে এমন কুরুচিকর ভাষা মানায় না”। সপা সুপ্রিমো অখিলেশ যাদব কটাক্ষ করে বলেছেন, টেলিপ্রম্পটারের ভুলেই হয়ত এমনটা বলে ফেলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়ুনঃ পায়ে নয় বুকে গুলি চালান, বিতর্কিত বিজেপির সায়ন্তন

দেশের প্রথম স্বাধীনতা সংগ্রাম সিপাই বিদ্রোহ যে মেরঠেই শুরু হয়েছিল সেকথা মনে করিয়ে দিয়ে মোদী মেরঠবাসীর ভালোবাসা ফের প্রার্থনা করে বললেন, “আমি নিজের কাজের হিসেব যেমন জনতাকে দেব, তেমনই সবার কাজের হিসেবও বুঝে নেব। এই নির্বাচন হবে চৌকিদারের বিরুদ্ধে দাগদারদের‌। চৌকিদার কোনও অন্যায় হতে দেবে না”।

এদিন নাম না করে গান্ধী পরিবারকেও ঠুকে মোদী বলেছেন, “একটি পরিবারই শুধু চাপে রয়েছে”। তাঁর সরকারই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানোর সাহস দেখিয়েছে বলে সদর্প দাবি করে বালাকোট ইস্যুতে মোদীর বক্তব্য, “দেশের সুপুত্ররাই দেশের প্রমাণ। যারা সেই সুপুত্রদের কাজের প্রমাণ দাবি করে তারা দেশের পক্ষে কলঙ্ক”।

আরও পড়ুনঃ ভোটের আগে স্যাটেলাইট অস্ত্রের ঘোষণা কেন, মোদীর বিরুদ্ধে কমিশনে নালিশ তৃণমূলের

এ-স্যাট ইস্যুতে বিরোধীদের ‘‌বুদ্ধিমান’‌ বলে ব্যঙ্গ করে মোদী বলেন, “এ-স্যাটকে অনেকে নাটকের মঞ্চ ভেবেছিল। কারণ তাদের অন্তরীক্ষ এবং অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিশনের জ্ঞান নেই”। এরপরই ইউপিএ সরকারকে তীব্র কটাক্ষ করে বলেন, “আমাদের বিজ্ঞানীরা মহাকাশে স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক উত্‍ক্ষেপণের অনুমতি চেয়েছিলেন। কিন্তু ইউপিএ সরকার সেই সিদ্ধান্ত পিছিয়ে দেয়। ভারতকে ২১ শতকের জন্য শক্তপোক্তভাবে গড়ে তুলতে এবং নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে এই সিদ্ধান্ত আরও অনেক আগেই নেওয়া উচিত ছিল”।

আরও পড়ুনঃ শত্রু দেশের গোয়েন্দা উপগ্রহের বিরুদ্ধে মহাকাশেও ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক

প্রধানমন্ত্রী অবশ্য এখানেই থেমে থাকেননি। তিনি আরও বলেন, মাটি হোক, আকাশ হোক বা মহাশূন্য, সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সাহস একমাত্র এই চৌকিদারের সরকারই দেখিয়েছে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে এটাই ছিল প্রধানমন্ত্রীর প্রথম জনসভা। আর প্রচারের প্রথম দিনই জনতার সামনে হিসাব মেলাতে বসেন মোদী। জানান, নিজের কাজের হিসাব দেবেন। পাশাপাশি অন্যের হিসাব নেবেনও। নিজেকে ফের দেশের চৌকিদার বলে দাবি করে বলেন, চৌকিদার কখনও অবিচার মেনে নেয় না।

কিন্তু মোদীর “শরাব” মন্তব্য নিয়ে এখন দেশ জুড়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া ছেয়ে গেছে মোদীর “শরাব” মন্তব্য। কংগ্রেসের পাশাপাশি অখিলেশ-মায়াবতীর দলের নেতারাও এই নিয়ে তুমুল সমালোচনা করেছেন নরেন্দ্র মোদীর।

আরও পড়ুনঃ নির্বাচন কমিশনের নতুন অ্যাপ সি ভিজিল, জনতার অভিযোগে ১০০ মিনিটের মধ্যে ব্যবস্থা

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন