মানুষের সেবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে উধাও গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের খোঁজ পাওয়া গেল ইউক্রেনে

4050
Indian Student in Ukraine Crisis
মানুষের সেবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে উধাও গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের খোঁজ পাওয়া গেল ইউক্রেনে

মানুষের সেবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে উধাও; গ্রাম-পঞ্চায়েত প্রধানের খোঁজ পাওয়া গেল ইউক্রেনে! গল্প হলেও সত্যি! অনেকদিন থেকেই খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না; গ্রাম-পঞ্চায়েত প্রধানের। শেষে একটি ভাইরাল ভিডিও-তে দেখা গেল; সেই পঞ্চায়েত প্রধানকে। তাও আবার ইউক্রেনে! সাহায্য চাইছেন কেন্দ্র সরকারের।

মেয়েটির নাম বৈশালী যাদব; উত্তরপ্রদেশের হারদই জেলার বাসিন্দা। ২০২১ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে; সমাজবাদী পার্টির টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন এই বৈশালী। উত্তরপ্রদেশের হারদই জেলার তেরা পুরসালি গ্রাম থেকে জিতেও যান তিনি। এখানেই শেষ নয়; বাবা সমাজবাদী পার্টির বড় নেতা মেয়েকে গ্রাম-পঞ্চায়েত প্রধানও বানিয়ে দেন। তারপরেই আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না; গ্রাম-পঞ্চায়েত প্রধান বৈশালী যাদবের। কোথায় গেলেন তিনি? গ্রামের উন্নয়নের সব কাজ আটকে গেলেও; সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না তাঁর।

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হবার পরে; খোঁজ মিলল গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান বৈশালীর। তিনি এখন ইউক্রেনে ডাক্তারি পড়ছেন। যুদ্ধ শুরু হওয়ায় তিনিও; অন্যান্য-দের সঙ্গে আটকে পরেন ইউক্রেনে। একটি ভাইরাল ভিডিও-তে দেখা যায়; তিনি সাহায্য প্রার্থনা করছেন ভারত সরকারের কাছে। ভিডিও ভাইরাল হতেই গ্রামের মানুষরা দেখতে পান; তাঁদের গ্রাম-পঞ্চায়েত প্রধানকে।

ভারত সরকারের সতর্কবার্তায় কানই দেয়নি, ইউক্রেনে পড়তে যাওয়া পড়ুয়াদের অভিভাবকরা

একজন গ্রাম-পঞ্চায়েত প্রধান কিভাবেই বা প্রশাসনকে না জানিয়ে, বিদেশে রয়েছেন; অভিযোগ তুলেই শুরু হয় তদন্ত। জানা যায়, বৈশালী যাদব গত তিনবছর ধরেই; ইউক্রেনে মেডিক্যালে পড়াশোনা করছেন। ইউরোপ থেকে ডাক্তারি পড়তেই; তাঁর ইউক্রেনে যাওয়া। মেডিক্যালের চতুর্থ বছরে, তিনি নিজের গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান পদে প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে দাঁড়ান। ভাগ্যের খেলায় প্রথমবার প্রার্থী হিসাবে দাঁড়িয়েই; পঞ্চায়েত প্রধানের পদ জিতে নেন তিনি। তারপর আবার ইউক্রেনেই চলে যান। তবে গ্রামে তার প্রধান পদে নির্বাচনের পিছনে; অন্য সমীকরণ দেখতে পান গ্রামের অনেক বাসিন্দারা। বৈশালীর বাবা পঞ্চায়েত ব্লকের প্রাক্তন সভাপতি; বাবার এই পদকেই কোনওভাবে কাজে লাগিয়ে তাঁর উত্থান কি না; এই নিয়েও রয়েছে বিতর্ক।

ইউক্রেনে আটকে পড়া হারদই জেলার তেরা পুরসালি গ্রামের প্রধান বৈশালী যাদবের ভিডিও, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পরেই; কীভাবে তিনি অনুমতি ছাড়াই বিদেশে গেলেন তা নিয়ে ফের তদন্ত শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। অন্যদিকে, তাঁকে গ্রামেই পাওয়া গেছে বলে; ফেক নিউজ ছড়িয়ে পরেছে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন