তদন্তের আগেই জঙ্গি হামলায় পাকিস্তানকে দোষী বলা ঠিক নয় বললেন মমতা

510
তদন্তের আগেই জঙ্গি হামলায় পাকিস্তানকে দোষী বলা ঠিক নয় বললেন মমতা/The News বাংলা
তদন্তের আগেই জঙ্গি হামলায় পাকিস্তানকে দোষী বলা ঠিক নয় বললেন মমতা/The News বাংলা

তদন্তের আগেই জঙ্গি হামলায় পাকিস্তানকে দোষী বলা ঠিক নয়, বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কাশ্মীরের পুলওয়ামা জঙ্গি হামলা ও তার জেরে ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যুতে উত্তপ্ত গোটা দেশ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ইতিমধ্যেই পাকিস্তানকে এই হামলার জন্য দায়ী করেছেন। কিন্তু তদন্তের আগেই পাকিস্তানকে দোষী চিহ্নিত করা নিয়ে এবার প্রশ্ন তুলে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে বিজেপির দাবি, মমতা ইতিমধ্যেই জঙ্গি হামলা নিয়ে রাজনীতি শুরু করে দিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ প্রাক্তন সেনাকর্তাকে রাজ্যপাল করে কাশ্মীরে পাক জঙ্গি নিধনে নামছে কেন্দ্র

পুলওয়ামা কাণ্ডে ক্ষুব্ধ গোটা দেশ। ইতিমধ্যেই বদলার আওয়াজ উঠতে শুরু করেছে গোটা দেশ জুড়েই। ইতিমধ্যেই সর্বদল বৈঠক ডেকেছে কেন্দ্র। তার আগে শুক্রবারই নবান্নে বিস্ফোরক প্রশ্ন তুলে দিলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তদন্ত না করেই যে পাকিস্তানকে দোষারোপ শুরু হয়েছে তা ঠিক হচ্ছে না, বলে মন্তব্য করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুনঃ পাক জঙ্গিদের খুঁজে বের করে মারতে সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিল মোদী সরকার

সন্দেহ নেই প্রধানমন্ত্রী বা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কোনরকমেই একমত নন মমতা। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের মধ্যে স্পষ্ট সেই তথ্য ধরাও পড়ছে। কিন্তু এইসময়ে কেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই মন্তব্য করলেন? বিজেপি কাশ্মীরের জঙ্গি হামলা নিয়ে রাজনীতি করছে বলেও আজ পরিস্কার জানিয়ে দেন মমতা। যদিও কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এইসময়ে মমতার সম্পূর্ণ উল্টো রাস্তায় হেঁটে কেন্দ্রকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন। এমনকি এই ঘটনা নিয়ে কোন সমালোচনা করেননি তিনি।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীরে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় শহিদদের মধ্যে বাংলার ২জন সেনা জওয়ান

এই ব্যাপারে বিজেপি নেতারা বলছেন, পুলওয়ামার ঘটনা নিয়েও রাজনীতি করছেন মমতা। তিনি সংখ্যালঘুদের তুষ্ট করার জন্য এতটাই মরিয়া যে পুলওয়ামার ঘটনার পর পাকিস্তানের উপর দোষারোপেও তিনি আপত্তি জানাচ্ছেন। যদিও মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, পুলওয়ামার ঘটনা নিয়ে রাজনীতি শুরু করে দিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রীই। এ দিন তিনি আরও বলেন, পুলওয়ামায় যা হয়েছে তা নিয়ে রাজনীতি করা উচিত নয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক ভাবে ওই মর্মান্তিক ঘটনা নিয়েও রাজনীতি শুরু হয়ে গিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উচিত ছিল এই দিনের সরকারি অনুষ্ঠান বাতিল করে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করে দেওয়া।

আরও পড়ুনঃ দেশ জুড়ে বদলার দাবি, কাউকে ছাড়া হবে না জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

শুক্রবার সন্ধ্যায় নবান্ন থেকে বেরনোর সময়ে মুখ্যমন্ত্রী পরিস্কার বলেন, “পররাষ্ট্র বিষয়ে আমি সচরাচর মন্তব্য করি না। এ সব ক্ষেত্রে দেশের অবস্থানই আমার অবস্থান। তবে গতকাল ঘটনার পরে পরেই জানিয়ে দেওয়া হয়, এ ঘটনার নেপথ্যে পাকিস্তানের হাত রয়েছে। বিশদে না গিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়া ঠিক নয়। বিষয়টা খুবই স্পর্শকাতর। সেটা মাথায় রেখে আগে তদন্ত করা হোক। তার পর দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া যাবে”।

আরও পড়ুনঃ সংসদে ক্যাগ রিপোর্ট, কংগ্রেসের চেয়ে সস্তায় রাফায়েল কিনেছে মোদী সরকার

যদিও ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি, এমনকি খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও নাম না করে জানিয়েছেন, “এই হামলার পিছনে যে পাক সরকারের মদত রয়েছে তার প্রমাণ রয়েছে”। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, “কবে কোথায়, কী ভাবে জবাব দেওয়া হবে সে নির্দেশ দিয়ে দেওয়া হয়েছে সেনাবাহিনীকে”।

আরও পড়ুনঃ ব্যর্থ পার্থর শিক্ষা দফতর, মাধ্যমিকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের হ্যাটট্রিক বাংলায়

এই হামলার জেরে ইতিমধ্যেই ভারত সরকারের পক্ষ থেকে পাকিস্তানকে দেওয়া ‘পছন্দের দেশ’ তকমা বাতিল করা হয়েছে। ভারতের সুরে সুর মিলিয়ে আমেরিকা-সহ অন্যান্য দেশও পাকিস্তানের নিন্দায় সরব হয়েছে। এদিকে মমতা প্রশ্ন তুলেছেন, এত বড় ঘটনা ঘটে গেল আর জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা কি করছিলেন? জঙ্গি হামলার এই ঘটনাকে সম্পূর্ণ কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলির ব্যর্থতা বলেই জানান বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

নেতা থেকে সাধারণ মানুষ সবাই পাক জঙ্গি হাত দেখছে এই ঘটনায়। এই পরিস্থিতিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন উল্টো রাস্তায় হেঁটে, পাকিস্তানকে তদন্তের আগেই দোষী চিহ্নিত করা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন, সেটাই এখন প্রশ্ন। নবান্নে মমতার মন্তব্যের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। শুধু কি বিজেপির বিরোধীতা করার জন্যই এই পরিস্থিতিতে এমন ধরণের মন্তব্য করলেন মমতা? ভেবে পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষ!

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন