মমতা নিজেই রাজ্যে বিজেপিকে আমন্ত্রণ করেছেন, বিস্ফোরক সুজন

5049
মুখ্যমন্ত্রী নিজে রাজ্যে বিজেপি আমন্ত্রণ করেছেন, মন্তব্য সুজনের/The News বাংলা
মুখ্যমন্ত্রী নিজে রাজ্যে বিজেপি আমন্ত্রণ করেছেন, মন্তব্য সুজনের/The News বাংলা

মুখ্যমন্ত্রী নিজে রাজ্যে বিজেপি আমন্ত্রণ করেছেন, বিস্ফোরক সুজন। রাজ্যে বাড়তে থাকা সাম্প্রদায়িক হিংসা মোকাবিলায়; তৃণমূল সরকার যে একা অক্ষম তা বুঝে গেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বুধবার বিধানসভায় বাম ও কংগ্রেসের ‘হাত ধরা’র আহ্ববান জানান মুখ্যমন্ত্রী। তারপরেই মমতাকে আক্রমণ করে; একথাই বললেন বামনেতা সুজন চক্রবর্তী।

মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন; “তৃণমূলের সাথে হাত ধরার কোন কারণ বা প্রবৃত্তি আমাদের নেই। তৃণমূল ডুবন্ত একটা নৌকো”। মুখ্যমন্ত্রীকে ‘দিবাস্বপ্ন’ দেখতেও মানা করলেন এই সিপিএম নেতা।

আরও পড়ুনঃ জনতার অসন্তোষে আক্রান্ত শাহরুখকে, মমতার ক্ষতিপূরণ কি নাম ধর্ম দেখে, প্রশ্ন বিজেপির

তিনি বলেন; “ধর্মকে ভিত্তি করে বাংলায় কেউ বেশিদিন রাজনীতি করতে পারেনি। বিজেপি খুব বিপদজনক একটি দল। ধর্মকে রাজনীতির হাতিয়ার করেছে তারা। বিজেপি তার দাপট বাড়াচ্ছে বাংলায়”। দখলের রাজনীতিকে আটকানোর ক্ষমতা তৃণমূলের নেই; কারণ তারাই এই তোলাবাজির রাজনীতি শুরু করেছেন বলে দাবী সুজনের।

আরও পড়ুনঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ রক্ষার দায় বামেদের নেই

সাম্প্রতিককালে সাম্প্রদায়িক হিংসায়; মাদ্রাসের শিক্ষক নিগ্রহকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, এই ঘটনা বাংলায় বিরল। সুজনবাবু বলেন, প্রশাসন সম্পূর্ণ ব্যর্থ। রাজ্যে বিজেপি বৃদ্ধির দায় কে নেবে; সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ মি টু আন্দোলনে আবারও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

পরে অবশ্য তৃণমূল নেতারা বলেন; মুখ্যমন্ত্রী রাজনৈতিক জোট করার কথা বলেননি। যেভাবে জাতীয় স্তরে ২৩টি রাজনৈতিক দল লড়াই করছে; সেইভাবেই লড়াইটা চালিয়ে যেতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন মমতা।

আরও পড়ুনঃ Breaking News; ভারত সরকারের চাপে নীরব মোদীর ২৮৩ কোটি টাকার সুইস ব্যাঙ্ক আকাউন্ট বন্ধ হল

বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান জানান; সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে বাম কংগ্রেস শুরুর থেকেই লড়াই করে এসেছে। এদিন আব্দুল মান্নান বলেন; “গোধরা কাণ্ডের পরেও বিজেপির সঙ্গে ছিলেন মমতা”। অন্যদিকে রাজ্যের বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন; “রাজ্যের তৃণমূল পরিষদ ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সম্মুখীন। বিরল প্রজাতিতে পরিণত হবে এই দল”।

মুখ্যমন্ত্রীর জোট বাধার ডাককে; হাওয়ায় উড়িয়ে দিলেন বাংলার বামপন্থীরা। বামনেতা মহম্মদ সেলিম পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন বামেদের অবস্থান। ডুবন্ত তৃণমূল দলের হাল ধরার দায় বামেরা নেবে না; সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে দিলেন তিনি।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন