মদ বিক্রিতে ১০ হাজার কোটি টাকার সর্বকালিন রেকর্ড গড়ল মা মাটি মানুষের সরকার

2005
মদ বিক্রিতে ১০ হাজার কোটি টাকার সর্বকালিন রেকর্ড গড়ল মা মাটি মানুষের সরকার/The News বাংলা
মদ বিক্রিতে ১০ হাজার কোটি টাকার সর্বকালিন রেকর্ড গড়ল মা মাটি মানুষের সরকার/The News বাংলা

মা মাটি মানুষের সরকারের সাফল্যের মুকুটে আর একটি পালক। আবগারি আইন চালু হওয়ার ১০০ বছর পর এই রাজ্য মদ বিক্রি থেকে ১০,০০০,০০,০০,০০০ টাকা (দশ হাজার কোটি টাকা) রাজস্ব আদায়ে সক্ষম হল রাজ্য সরকার। তাও এই হিসাব ২০১৯ এর জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত। এর জেরে রাজস্ব দফতরের মুখে চওড়া হাসি।

দুর্গা পুজোয় মদ বিক্রির রেকর্ডঃ মায়ের পুজোয় মদ বিক্রিতে রেকর্ড গড়ল মমতার বাংলা

পশ্চিমবঙ্গে আবগারি আইন চালু হয়েছিল ১৯০৯ সালে। ২০১১-১২ অর্থবর্ষে যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার ক্ষমতায় আসে তখন মদ বিক্রি করে রাজস্ব আসত প্রায় ২১১৭ কোটি টাকা। ১০০ বছর বছর পরে এই প্রথম বাংলার আবগারি রাজস্ব ১০ হাজার কোটি টাকা ছুঁয়েছে। যেটা ১০০ বছরের সর্বকালিন রেকর্ড। ২০১৯ মার্চের ৩১ তারিখের মধ্যে ১০,৫০০ কোটি টাকার লক্ষ্য বেঁধে দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। সেই লক্ষ্য অনেক আগেই পূরণ হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ সেনার খাবারের মান নিয়ে প্রশ্ন তোলা তেজ বাহাদুর বারাণসীতে প্রার্থী মোদীর বিরুদ্ধে

বর্তমান রাজ্য সরকার প্রাথমিক পর্যায়ে প্রায় ২,০০০ এর বেশি মদের দোকান ও পানশালা খোলার সিদ্ধান্ত নেন। পরে আরও মদের লাইসেন্স দেবার সিদ্ধান্ত নেয় বর্তমান সরকার। যেখানে মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি এক্সিডেন্ট রুখতে ২০১৭ সালে সমগ্র দেশের জাতীয় সড়কগুলির ১,৫০০ মিটারের আওতায় মদের দোকান বা মদ বিক্রিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের এই পুরো পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে বাংলার আবগারি রাজস্ব বেড়ে হবে ২০,০০০ কোটি টাকা!

আরও পড়ুনঃ কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে মোদীর নীতি আয়োগ তুলে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেন রাহুল

রাজ্যের আবগারি দফতরের খবর, জানুয়ারির মাঝামাঝি মদ বিক্রি বাবদ সরকার ১০ হাজার কোটি ঘরে তুলেছে। ২০১১-১২ সালে তৃণমূল সরকার যখন ক্ষমতায় আসে, সেই সময় মদ বেচে কোষাগারে আসত ২১১৭ কোটি টাকা। আট বছরের মধ্যেই সেটা ১০ হাজার কোটিতে পৌঁছে দিয়েও সরকারের তরফে অবশ্য কেউ এই নিয়ে মুখ খোলেননি।

আরও পড়ুনঃ মোদীর ব্রিগেড সভার অনুমতি নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়ে দিল সেনা

২০১৮ সালেই পুজোর মাসে সরকার ১২৭৫ কোটি টাকার মদ বিক্রি করে। আবগারি দফতর তৈরি হওয়ার পর কোনও এক মাসে এত রাজস্ব নাকি আগে কখনও আসেনি। সেটাও ছিল সর্বকালীন রেকর্ড। তখনই বোঝা গিয়েছিল যে এই আর্থিক বছরে রেকর্ড গড়তে চলেছে তৃণমূল সরকার। তবে সেটা ১০ হাজার কোটি টাকায় পৌঁছে যাবে সেটা ভাবা যায়নি বলেই জানাচ্ছে রাজ্য আবগারি দফতর।

আরও পড়ুনঃ মোদীর মিশন শক্তির ঘোষণায় নির্বাচনী আচরনবিধি লঙ্ঘন হয়নি, জানিয়ে দিল কমিশন

তবে এখানেই শেষ নয়। মদ বিক্রি থেকে রোজগার আরও বাড়ানোর জন্য অফিসারদের কাছে নির্দেশও গিয়েছে নবান্ন থেকে। নবান্নের আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, সরকারি মদের বিক্রি বেড়েছে বলেই রাজস্ব বেড়েছে। বেআইনি মদের কারবারের ক্ষেত্রে তৃণমূল সরকার কঠোর অবস্থান নেওয়ায় চোলাই, পচাই, ধেনোর ইত্যাদির বিক্রিতে রাশ টানা গিয়েছে। পরিবর্তে সরকারি মদের বিক্রি বেড়েছে। ফলে রোজগারও বেড়েছে লাফিয়ে লাফিয়ে।

আরও পড়ুনঃ খোদার কসম মোদীকে জেলে ঢোকাবো, এনসি নেতা জাভেদ রানার মন্তব্যে উত্তাল দেশ

কি করে বাড়ল বাংলার আবগারি রাজস্বঃ

আবগারি কর্তারা জানাচ্ছেন, গত কয়েক বছরে আবগারি ক্ষেত্রে ব্যাপক সংস্কার হয়েছে। এখন দিশি বা বিলিতে বলে আলাদা আর কোনও মদের দোকান নেই। যে-কোনও দোকানে এখন সব ধরনের মদ পাওয়া যায়। যেমন বিলিতি মদের দোকানে এখন সরকারি ‘বাংলা’ মদ পাওয়া যায়। আবার প্রত্যন্ত এলাকার ‘দেশি মদের দোকান’ এও পাওয়া যায় ‘বিলিতি’। এ ছাড়া সরকার সমস্ত বার, রেস্তরাঁতেও মদ বিক্রির ঢালাও অনুমতি দিয়ে দিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিপুল উত্থান পদ্মের, ইঙ্গিত সমীক্ষায়

আবগারি-কর্তারা জানান, জিএসটি-পরবর্তী সময়ে রাজ্যের নিজস্ব রোজগারের অন্যতম পথ মদ বিক্রি। আগে মদের উপরে আবগারি শুল্ক ছাড়াও অতিরিক্ত বিক্রয়কর আদায় করত সরকার। এখন সেই বিক্রয়কর তুলে দিয়ে আবগারি শুল্কের পরিমাণ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। গড়ে ১০০ টাকায় ৬৫ থেকে ৭০ টাকা শুল্ক নেয় আবগারি দফতর।

আরও পড়ুনঃ ৬ বারের জয়ী সিপিএম সাংসদের বাড়িতে অর্জুন, শুরু জল্পনা

বিক্রি বেড়েছে, দোকান বেড়েছে আর শুল্ক বেড়েছে। ফলে মদ বেচে রাজকোষ উপচে পড়াই স্বাভাবিক বলে মনে করছেন আবগারি কর্তারা। সরকারের রাজস্ব আদায় বাড়ায় তা দিয়ে রাজ্যে উন্নয়ন করতে পারবে রাজ্য সরকার। তবে মদের বিক্রি বাড়ায় ও ঢালাও মদের দোকানের অনুমতি দেওয়ায় যুব সমাজে কি প্রভাব পরছে, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

আরও পড়ুনঃ পাক জঙ্গিদের সাহায্যকারি দেশের বিশ্বাসঘাতকদের খুঁজতে ৮ সদ্যসের গোয়েন্দা দল

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন