যোগী আদিত্যনাথকে আদৌ বাংলায় নামার অনুমতি দেবে মমতা ব্যানার্জী সরকার

318
যোগী আদিত্যনাথকে আদৌ বাংলায় নামার অনুমতি দেবে মমতা ব্যানার্জী সরকার
যোগী আদিত্যনাথকে আদৌ বাংলায় নামার অনুমতি দেবে মমতা ব্যানার্জী সরকার/The News বাংলা

বাঁকুড়াতেও বাতিল। রবিবার দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট ও উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জের পর সোমবার বাঁকুড়া। কোনোরকমেই যোগী আদিত্যনাথের হেলিকপ্টার নামানোর অনুমতি পাচ্ছে না বঙ্গ বিজেপি। ফলে ম্যাড়ম্যাড়ে হয়ে যাচ্ছে বিজেপির একের পর এক সভা। যোগী আদিত্যনাথকে কি বাংলায় নামার অনুমতি দেবে না মমতার সরকার? প্রশ্ন বিজেপির। যোগী আদিত্যনাথ এর মত ভিভিআইপির চপার নামাবার মত হেলিপ্যাড দেখাচ্ছে না বিজেপি, দাবি জেলা প্রশাসনের।

আরও পড়ুনঃ সারদা কেলেঙ্কারির পাল্টা এবার সিবিআইকেই প্রতারণা মামলার নোটিশ মমতার পুলিশের

না কোনরকমেই যোগী আদিত্যনাথকে বাংলায় নামার অনুমতি দিচ্ছে না মমতা সরকার। রবিবারের পর ফের সোমবার। রবিবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের হেলিকপ্টার নামার অনুমতি দেয়নি মমতা সরকার। তারপর উনি ফোনের মাধ্যমে দুটি সভায় বক্তৃতা রাখেন। ফোনে জনসভায় কথা বলার সময় যোগী বলেন, “আমি নির্ধারিত সময়েই সভায় যোগ দিতাম, কিন্তু তৃণমূল ভয়ে আমাকে সভা করতে দেয়নি। আর সেই জন্যই মোদীজির ডিজিট্যাল ইন্ডিয়ার মাধ্যমে আমি আপনাদের কাছে পৌঁছালাম”। উনি বলেন, “বাংলার মমতা ব্যানার্জীর নেতৃত্বে থাকা তৃণমূল সরকার গণতন্ত্র বিরোধী এবং জন সাধারণ বিরোধী”।

আরও পড়ুনঃ মমতার নির্দেশে সিবিআই অফিসারদের আটক করে বাংলার আইপিএসরা বিপদে

তাঁর হেলিকপ্টার নামার অনুমতি না দেওয়ায়, যোগী আদিত্যনাথ বলেন, “পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসন তৃণমূল কংগ্রেসের ক্যাডারের মত কাজ করছে”। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ রবিবার ফোনের মাধ্যমে সভাতে ভাষণ দেওয়ার সময় বলেন, “পশ্চিমবঙ্গের সরকার অরাজকতাকে সমর্থন করে রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার সাথে ছিনিবিনি খেলছে। এই সরকার বিজেপিকে চরম ভয় পায়, তাই মমতা ব্যানার্জীর সরকার প্রথমে অমিত শাহ-এর রথযাত্রা আর এখন আমাকে আটকানোর চেষ্টা করল। আমি গোটা পশ্চিমবঙ্গের মানুষকে মমতা ব্যানার্জীর এই অগণতান্ত্রিক এবং অরাজকতার সরকারের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য আবেদন করছি”।

আরও পড়ুনঃ তথ্যপ্রমাণ নষ্টের প্রমাণ পেলে পুলিশ কমিশনারকে উচিত শিক্ষা দেওয়া হবে হুঁশিয়ারি সুপ্রিম কোর্টের

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বালুরঘাট ও রায়গঞ্জ এর দুটি সভাতেই হাজির হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু যোগীর হেলিকপ্টার এরাজ্যের মাটিতে না নামতে দেওয়ার জন্য উনি ফোনের মাধ্যমে সভা করতে বাধ্য হন। বিজেপির তরফ থেকে অভিযোগ করা হয়, “উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের লোকপ্রিয়তাকে ভয় পেয়েই মমতা ব্যানার্জী প্রত্যেকদিন তাঁর সভা করতে দিচ্ছে না”।

আরও পড়ুনঃ পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়িতে সিবিআইকে ঢুকতে বাধা কলকাতা পুলিশের

তবে তৃণমূলের তরফ থেকে এই অভিযোগ উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, সমাবেশে লোক না হওয়ার জন্যই আসছেন না উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। আর তাঁর মত ভিভিআইপি-র হেলিপ্যাডও সমাবেশের কাছে ঠিক মত তৈরি করছে না বিজেপি। তবে এই নিয়ে জেলায় জেলায় তৃনমূল-বিজেপি ঝামেলা প্রতিদিন লেগেই আছে। আর লোকসভা ভোট পর্যন্ত এই ঝামেলা চলতেই থাকবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন