ভালবাসার স্বীকৃতি পেতে এবার প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসল প্রেমিকা

337
ভালবাসার স্বীকৃতি পেতে এবার প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন প্রেমিকা/The News বাংলা
ভালবাসার স্বীকৃতি পেতে এবার প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন প্রেমিকা/The News বাংলা

ধূপগুড়ি ঘটনার পর এবার ভালোবাসাকে নিজের করে পেতে; প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্ণায় বসল প্রেমিকা। ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়ার কালীগঞ্জ থানার; রাধাকান্তপুরের পূর্বপাড়ায়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে হঠাৎ পিঠে একটি ব্যাগ নিয়ে; প্রেমিক জিন্নাত আলীর বাড়ির সামনে এসে হাজির হয় প্রেমিকা মাফিজা খাতুন। এই ঘটনায় এলাকায় লোকেদের ভিড় জমতে শুরু করে।

ব্যাগে করে আনা কাগজ পেতে; জিন্নাত আলীর বাড়ির বাইরে এক কোনে বসে পরে মাফিজা খাতুন। সেই দেখে প্রেমিকের বাড়ির লোকজন; বাড়িতে তালা লাগিয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যায়। সূত্রের খবর ফেসবুকের মাধ্যমে প্রথমে আলাপ হলেও; দুজনেই পলাশী কলেজের বিএ তৃতীয় বর্ষের পড়ুয়া। বেশ কয়েকবছর দুজনের সম্পর্ক থাকলেও; ইদানিং পরিবারের চাপে বেঁকে বসে জিন্নাত।

তারপরই সোমবার প্রেমিকের বাড়ির সামনে; সারাদিন ধর্ণায় বসে মাফিজা। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন; প্রেমিকের মা রবিনা বিবি। এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কালীগঞ্জ থানায়; কোনো অভিযোগ দায়ের হয়নি বলেই পুলিশ সূত্রের খবর।

বিয়ের দাবিতে প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্নায় বসার ঘটনা; বাংলায় একাধিকবার ঘটে গিয়েছে। এরই মধ্যে কারও কার্যসিদ্ধি হয়েছে; কেউ আবার গণধোলাই খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তবে এবার ঘটল একটু উল্টো ঘটনা। উদ্দেশ্য এক হলেও এবারের চরিত্র আলাদা। প্রেমের স্বীকৃতি পেতে এবার প্রেমিকের বাড়ির সামনে; ধর্নায় বসল প্রেমিকা। সোমবার বেশ কয়েক ঘন্টা ধরে; প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্না চালিয়ে যায় ওই প্রেমিকা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় পুলিশ। কিন্তু পুলিশের কাছে প্রেমিকার স্পষ্ট দাবী; যতক্ষন না পর্যন্ত প্রেমের স্বীকৃতি দিয়ে; তার প্রেমিক তাকে বিয়ে না করছে; ততক্ষন পর্যন্ত সে ধর্না চালিয়ে যাবে। কিন্তু পরিস্থিতি বেগতিক বুজে; পরিবারের লোকজন সহ বাড়িতে তালা দিয়ে চম্পট দেয় প্রেমিক।

প্রেমিকের বিরুদ্ধে ওই প্রেমিকার অভিযোগ; বিগত তিন বছর তারা সম্পর্কে রয়েছে। বেড়েছে ঘনিষ্ঠতাও। এমনকি ভালোবাসত বলে; প্রেমিককে আর্থিক ভাবেও সাহায্য করতে পিছুপা হয়নি সে। কিন্তু বেশ কিছুদিন হল তার প্রেমিক জিন্নাত আলী; কথা বলছে না তার সঙ্গে। এমনকি ফোন করাও বন্ধ করে দিয়েছে। সে স্পষ্ট করে জানায়; তার প্রেমিককে সে খুব ভালোবাসে এবং তাকেই বিয়ে করবে। আর সেজন্যই প্রেমিকের বাড়িতে ফের ধর্নায় বসবে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন