‘বেআইনি মদের টাকা যায় মমতার ভাইপো অভিষেকের বাড়িতে’ কৈলাশ বিজয়বর্গীয়

616
কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র মারাত্মক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে/The News বাংলা
কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র মারাত্মক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে/The News বাংলা

The News বাংলা, শান্তিপুর: শান্তিপুর বিষমদ কাণ্ডে অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। বিষমদ খেয়ে ১২ জনের মৃত্যুর পর বিরোধীদের নিশানায় রাজ্য প্রশাসন। তবে এবার দোষারোপ ও পাল্টা-দোষারোপের পালায় জুড়ে গেল ব্যক্তিগত আক্রমণও। ‘বেআইনি মদ বিক্রির টাকা যায় মমতার ভাইপো অভিষেকের পকেটে’, শান্তিপুরে মারাত্মক অভিযোগ বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র।

শুক্রবার শান্তিপুরে গিয়ে মৃতদের পরিবার পিছু দুলক্ষ টাকার আর্থিক অনুদানের চেক তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর সঙ্গে ছিলেন জেলার তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের কারামন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস। এ দিন তাঁরা শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে অসুস্থদের সঙ্গে দেখা করেন। তবে বিজেপির প্রতিনিধি দলকে আটকে দেওয়া হয় শহরে ঢোকার মুখেই।

আরও পড়ুনঃ মমতার নির্দেশকে বুড়ো আঙুল, সিন্ডিকেট জুলুমে রাজ্য ছাড়ছেন শিল্পপতি

বিজেপি নেতা মুকুল রায় এবং কৈলাশ বিজয়বর্গীয়-সহ বিজেপি প্রতিনিধি দল যখন শহরে ঢুকতে যায়, তখন একদল মানুষ তাঁদের উদ্দেশ্যে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। তাদের কারো কারো হাতে ছিল কালো পতাকা। এ ব্যাপারে বিজেপি নেতৃত্ব দাবি করেন, তাঁদের এলাকায় ঢুকতে না-দেওয়ার জন্যই তৃণমূল কংগ্রেস পরিকল্পনা মাফিক এই কর্মসূচি নিয়েছে।

আরও পড়ুন: রথযাত্রা উপলক্ষে বাংলায় মোদীর জনসভায় লোকসভার দামামা

এ দিন ঘটনাস্থলে গো ব্যাক স্লোগান ওঠার পর সেখানে দাঁড়িয়েই তৃণমূলের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন কৈলাশ। তিনি সংবাদমাধ্যমের কাছে বলেন, ‘সরকারি মদ বিক্রির টাকা যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। আর বেআইনি মদ বিক্রির টাকা যায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরে। এই মৃত্যুর সম্পূর্ণ দায় নিতে হবে তাঁদেরই’।

কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র মারাত্মক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে/The News বাংলা
কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র মারাত্মক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে/The News বাংলা

আর এইভাবেই শান্তিপুর বিষ মদ কাণ্ডে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। পাশে দাঁড়িয়ে মাথা দুলিয়ে অভিযোগ সমর্থন করেন মুকুল রায়।

আরও পড়ুন: পাপ ঢাকতে শিশু বলিদান, জন্মেই অনাথ শিশুরা অসহায়

বিজেপির এরাজ্যের অন্যতম পর্যবেক্ষক বলেন,কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন, ‘রাজ্যে যে অবৈধ মদের ব্যবসা চলছে তাকে সুরক্ষা দিচ্ছেন অভিষেক ব্যানার্জি। এই রাজ্যে দুটি সরকার চলছে। মমতা ব্যানার্জির সরকার এবং অভিষেক ব্যানার্জির সরকার। মমতা ব্যানার্জির সরকার বৈধ মদের সরকার চালাচ্ছে এবং অভিষেক ব্যানার্জি অবৈধ মদের সরকার চালাচ্ছে। অবৈধ মদের বিক্রির সমস্ত টাকা অভিষেক ব্যানার্জির বাড়িতে সরাসরি যাচ্ছে। এই মৃত্যুর জন্য মমতার ভাইপো অভিষেক দায়ি। এরাজ্যে যে সব অবৈধ কাজকর্ম হচ্ছে, তার জন্য দায়ি অভিষেক’।

কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র মারাত্মক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে/The News বাংলা
কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র মারাত্মক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে/The News বাংলা

বিহার-ঝাড়খণ্ড থেকে মদ আসার ব্যাপারে কৈলাস বলেন, ‘এটি সরকারের ব্যর্থতা। সরকার কাউকে ধরতে পারছে না। সরকারের আধিকারিকরা কি চুড়ি পরে বসে আছেন? তাদের ইস্তফা দেওয়া উচিত’। শান্তিপুরে আসার আগে চারবার আটকানো হয় তাঁকে। এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘এই রাজ্যে গণতন্ত্র নেই’।

তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বিজেপি নেতাকে ‘বর্গী নেতা’ বলে কটাক্ষ করেন। পার্থবাবু বলেন, ‘মমতার উন্নয়নের কোন জবাব নেই বিজেপির কাছে, তাই ব্যক্তিগত আক্রমণে নেমেছে তারা’। তৃণমূল সূত্রে জানা গেছে, কৈলাশ এর এই মন্তব্যের বিরুদ্ধে আদালতে মানহানির মামলা করতে চলেছেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন