ছেলেকে টিউশনে দিয়ে ফেরার পথে গৃহবধূকে গণধর্ষণ

378
ছেলেকে টিউশনে দিয়ে ফেরার পথে গৃহবধূকে গণধর্ষণ/The News বাংলা

The News বাংলাঃ ছেলেকে টিউশনে দিয়ে ফিরছিলেন! এরপর বাড়ির কাছে পিছন থেকে টান, তারপরই ঘটল সেই ভয়ংকর ঘটনা। ঝোপে টেনে নিয়ে গিয়ে গৃহবধূকে গণধর্ষণ করল চার দুষ্কৃতি। অভিযোগ পেয়েই নড়েচড়ে বসেছে পুলিশ। এই ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

আরও পড়ুন: ‘রাম’কে ছেড়ে আসা লক্ষণকে ‘হাতে’ নিয়ে বাংলায় তুলকালাম

ভর সন্ধ্যায় জনবহুল এলাকায় গৃহবধূকে গণধর্ষণের মারাত্মক অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরশহরতলীর খড়দহে। ছেলেকে টিউশনে দিয়ে বাড়ির দিকে আসছিলেন বছর ৪০-এর ওই বধূ। সেই সময় পিছনের দিক থেকে আসা দুই ব্যক্তি একটি নির্মীয়মান বহুতলের পাশের ঝোঁপে তাঁকে টেনে নিয়ে যায় বলেই অভিযোগ।

আরও পড়ুন: কংগ্রেস ছেড়ে মমতার ‘মহানায়িকা’ এবার মোদীর বক্স অফিসে

সেখানে আগে থেকেই আরও দুজন ছিল। এরপর ৪ জন দুষ্কৃতি মিলে গণধর্ষণ করে ওই গৃহবধূকে। বধূর চিৎকারে আশপাশের লোকজন চলে আসায় অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। ঝোপ থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় বেরিয়েই অচৈতন্য হয়ে পড়েন ওই মহিলা। মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। খড়দহ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: টানা ২ দিন ধরে সন্ধান নেই ‘শচীনের’, বিপদ চিন্তায় প্রশাসন

বুধবার রাত আটটা। অন্যদিনের মতো ছেলেকে টিউশনে দিয়ে ফিরছিলেন খড়দহের গৃহবধূ। বাড়ির কাছাকাছি একটি নির্মীয়মাণ বহুতলের সামনে আসতেই পিছন থেকে মুখ ঢাকা দুই ব্যক্তি মহিলার ঘাড়ের কাছে ধরে। পরে মুখ চেপে ধরে বহুতলের পাশে নিয়ে যায়। সেখানে আগে থেকেই মুখ ঢাকা অবস্থায় আরও দুজন ছিল বলে জানিয়েছেন ওই বধূ।

আরও পড়ুন: নারী ঢোকায় ‘অপিবত্র’ শবরীমালা, ‘শুদ্ধ’ করার জন্য বন্ধ মন্দির

সেখানেই চলে পাশবিক অত্যাচার। বধূর চিৎকারে আশপাশের লোকজন চলে আসেন। ঝোপের মধ্যে থেকে রাস্তায় এসেই অচৈতন্য হয়ে পড়েন ওই বধূ। তাঁকে পানিহাটি স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান স্থানীয়রা। বাড়িতে খবর গেলে, তাঁরাও হাসপাতালে যান। বধূর এক আত্মীয় জানিয়েছেন, অত্যাচারে সময় মুখ ঢাকা অভিযুক্তরা বলেছেন, “স্বামী তো বড় নেতা হয়ে গিয়েছে, মেরে দে”।

আরও পড়ুনঃ দেশপ্রেম বাড়াতে স্কুলের রোল কলে এবার ‘জয় হিন্দ’ ও ‘জয় ভারত’

বৃহস্পতিবার ওই বধূর মেডিক্যাল টেস্ট করা হবে বলে জানা গিয়েছে হাসপাতাল সূত্রে। পুলিশের তরফে তল্লাশি অভিযান শুরু করা হয়েছে। বধূকে জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি পারিপার্শ্বিক তথ্য সংগ্রহের কাজও শুরু করা হয়েছে পুলিশের তরফে। ঘটনার জেরে ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন