কাশ্মীরের সোপরে চলছে গুলির লড়াই, নিকেশ এক পাক জঙ্গি

340
জম্মু কাশ্মীরে আরএসএস নেতাকে গুলি করল জঙ্গিরা/The News বাংলা
জম্মু কাশ্মীরে আরএসএস নেতাকে গুলি করল জঙ্গিরা/The News বাংলা

দক্ষিণের পর উত্তর। জইশ ই মহম্মদের পর এবার লস্কর ই তৈবা। উত্তর কাশ্মীরের সোপরে চলছে ম্যরাথন গুলির লড়াই। বড়সড় নাশকতা চালাতে হাজির পাক জঙ্গিরা। লস্কর ই তৈবা জঙ্গি সাজ্জাদ তার দলবল নিয়ে সোপরে একটি এলাকায় লুকিয়ে আছে বলে খবর পায় সেনা। তারপরেই এলাকা ঘিরে চলছে গুলির লড়াই।

গতকাল বিকাল ৪টে থেকেই এই অপারেশন ও টানা গুলির লড়াই চলছে বলেই জানা যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই নিকেশ এক পাক জঙ্গি। ঘিরে ফেলা হয়েছে আরও ৩ জঙ্গিকে, এমনটাই জানা যাচ্ছে। লস্কর ই তৈবা জঙ্গি সাজ্জাদকে শেষ করতে পারলে সেটা সেনার বড় সাফল্য হবে।

উত্তর কাশ্মীরের সোপরের ওয়ারপোরা এলাকায় চলছে ভয়ঙ্কর গুলির লড়াই। এই ঘটনার জেরে গোটা এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। গোটা এলাকা ঘিরে ফেলেছে নিরাপত্তা বাহিনী। চলছে মুহুর্মুহু গুলি।

সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াইয়ে ফের উত্তপ্ত জম্মু-কাশ্মীর। শুক্রবার সকালে উত্তর কাশ্মীরের সোপোরের ওয়ারপোরা এলাকায় শুরু হয়েছে গুলির লড়াই। তবে এই অপারেশন বৃহস্পতিবার বিকাল থেকেই চলছে বলেই জানা গেছে। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত এক জঙ্গিকে নিকেশ করা হয়েছে।

এই সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াইয়ের জেরে এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকেই সোপরে ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। টানা গুলির লড়াই চলছে। বাসিন্দাদের বাড়ি থেকে বের হতে বারণ করেছেন সেনা আধিকারিকরা। মাইকিং করা হয়েছে এলাকায়।

গত সোমবারই দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার পিংলান এলাকায় প্রায় ১৬ ঘণ্টা ধরে চলে সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াই। সেদিনের এনকাউন্টারে নিহত হন এক মেজর-সহ চারজন ভারতীয় জওয়ান। গুলির লড়াইয়ে প্রাণ হারান এক পুলিশ কর্মী ও এক স্থানিয় বাসিন্দাও। সেদিনের এনকাউন্টারে নিহত হয় চার জঙ্গিও। গুলির লড়াইয়ে জখম হন এক ব্রিগেডিয়ার, দক্ষিণ কাশ্মীরের ডিআইজি অমিত কুমার ও এক লেফটেন্যান্ট কর্নেল।

এদিকে কাশ্মীরের সোপিয়ানে রাষ্ট্রীয় রাইফেলস এর একটি সেনা শিবিরের কাছে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চলল গুলি। সেনা শিবিরের কাছে ফের জঙ্গি কার্যকলাপ লক্ষ্য করা গেছে বলেই খবর। এরপরই গুলি চলে। শুরু হয় গুলির লড়াই। এলাকা ঘিরে ফেলে কোন আতঙ্কবাদী লুকিয়ে আছে কিনা তা দেখতে শুরু হয়েছে চিরুনি তল্লাশি।

কোন বাড়িতে জঙ্গিরা লুকিয়ে আছে কিনা তা দেখছে জওয়ানরা। অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে কি রাষ্ট্রীয় রাইফেলস এর ওই সেনা শিবিরে হামলা চালাতে এসেছিল জঙ্গিরা? সেটা দেখতেই শুরু হয়েছে তল্লাশি। বাড়ি বাড়ি ঢুকে তল্লাশি করছে সেনা জওয়ানরা।

তবে জইশ ই মহম্মদের পর এবার লস্কর ই তৈবাও যে কাশ্মীরে বড়সড় হামলার ছক কষছে সেটা পরিস্কার। দক্ষিণে জইশ ই মহম্মদের পর এবার উত্তর কাশ্মীরে লস্কর ই তৈবা হামলা শুরু করল।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন