বিরোধী মহিলা প্রার্থীদের ‘মাল’ সম্বোধন করে কুরুচিপূর্ণ আক্রমণ ফিরহাদের

1705
বিরোধী মহিলা প্রার্থীদের 'মাল' সম্বোধন করে কুরুচিপূর্ণ আক্রমণ ফিরহাদের/The News বাংলা
বিরোধী মহিলা প্রার্থীদের 'মাল' সম্বোধন করে কুরুচিপূর্ণ আক্রমণ ফিরহাদের/The News বাংলা

ভোট যত এগিয়ে আসছে, ততই প্রতিপক্ষের প্রতি আক্রমনের তীব্রতা বাড়ছে। মাঝে মাঝে আক্রমণ এমন জায়গায় যাচ্ছে যে সেটা শালীনতার মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। বিজেপির দিলীপ ঘোষ ও আরএসপির ক্ষিতি গোস্বামীর পর এবার সেই দলে নাম লেখালেন বাংলার মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বিরোধী মহিলা প্রার্থীদের ‘মাল’ বলে সম্বোধন করে বিতর্কে জড়ালেন তৃণমূল নেতা ও কলকাতার মেয়র ফিরহাদ ‘ববি’ হাকিম।

বিজেপির দিলীপ ঘোষ ও আরএসপির ক্ষিতি গোস্বামীর পর এবার তালিকায় নয়া সংযোজন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। দক্ষিণ কলকাতার সিপিএমের প্রার্থী নন্দিনী মুখোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করতে গিয়ে মাত্রাছাড়া অশালীন মন্তব্য করে বসলেন কলকাতার মেয়র। ব্যঙ্গাত্মক সুরে তিনি বলেন, “কে তুমি নন্দিনী, আগে তো দেখিনি”।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূলের তারকা প্রার্থী নিয়ে অশ্লীল ও বিতর্কিত মন্তব্য ক্ষিতির

এখানেই থেমে থাকেননি তিনি। এরপর বিজেপির প্রার্থীর উদ্দেশ্যেও নিম্নমানের শব্দ প্রয়োগ করেন তিনি। দক্ষিণ কলকাতায় বিজেপির সম্ভাব্য প্রার্থীর ব্যাপারে তিনি বলেন, “এরপর কোনো ফরেন মাল আসবে এই কেন্দ্রে, বিজেপি হয়তো আনবে”।

এর আগে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরেই যাদবপুরের তৃণমূল প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী ও বসিরহাটের তৃণমূল প্রার্থী নুসরত জাহানকে নিয়ে তৈরি মিমে স্যোসাল মিডিয়া ছেয়ে যায়। তা নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। কুরুচিকর মন্তব্যের জন্য দুই বিজেপি সমর্থককে গ্রেফতারও করা হয়।

আরও পড়ুনঃ মিমি নুসরত এর চরিত্র নিয়ে কটাক্ষ বিতর্কে জড়ালেন দিলীপ ঘোষ

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিরোধী দলের সমর্থকরা বিরূপ মন্তব্য করলেও বিরোধী দলের নেতারা কেউ কেউ চলচ্চিত্র জগতের হেভিওয়েটদের রাজনৈতিক ধ্যান ধারণা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কিন্তু তাদের কাউকেই মহিলা প্রার্থীদের নিয়ে এরকম মাত্রাছাড়া কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করতে দেখা যায়নি।

আরও পড়ুনঃ ২০২৫ সালের পর ভারতের অংশ হবে পাকিস্তান, ঘোষণা আরএসএস নেতার

কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে প্রায়শই বাংলার শিক্ষা সংস্কৃতি নিয়ে গর্ব করতে শোনা যায়। বাংলার সংস্কৃতির মাটিতে গোবলয়ের দল দাগ কাটতে পারবে না বলেও তাকে প্রায়ই বলতে শোনা যায়। কলকাতার মেয়রের মতো দায়িত্বশীল পদে থেকে স্বয়ং ফিরহাদ হাকিম কিভাবে শালীনতার সীমা ছাড়িয়ে গেলেন, তা নিয়ে সমালোচনার মুখর হয়েছে বিরোধীরা।

তবে নেতাদের এইভাবে শালীনতার মাত্রা অতিক্রম করাকে একদম ভাল চোখে দেখছেন না সাধারণ মানুষ। তাঁদের ক্ষোভ সব দলের সব নেতাদের বিরুদ্ধেই। বিশেষ করে মহিলাদের প্রতি কুরুচিপূর্ণ আক্রমণ সহ্য করছে না বাংলার মানুষ।

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন