রাহুলের কংগ্রেস মোদীর বিজেপির বি টিম বলে কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রীর

315
রাহুলের কংগ্রেস মোদীর বিজেপির বি টিম বলে কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রীর/The News বাংলা
রাহুলের কংগ্রেস মোদীর বিজেপির বি টিম বলে কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রীর/The News বাংলা

কংগ্রেসকে বিজেপির বি টিম বলে কটাক্ষ কেজরিওয়ালের। এদিকে অধরাই থেকে গেলো দিল্লিতে আপ-কংগ্রেসের জোট। মঙ্গলবার দিল্লিতে রাহুল গান্ধীর উপস্থিতিতে দলীয় কমিটির বৈঠকে জোটের সম্ভাবনার কথা সম্পূর্ণ উড়িয়ে দেন দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেসের সভানেত্রী তথা দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত। অন্যদিকে জোটের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ও আম আদমি পার্টির প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়ালও। এরপরেই রাহুলের কংগ্রেস মোদীর বিজেপির বি টিম বলে কটাক্ষ করেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুনঃ নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসা করে দল থেকে বরখাস্ত নেতা

বিজেপিকে সরাতে বিরোধী দলগুলোর এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় দাবি মোদী বিরোধী মহাজোট গড়ে তোলা। তার জন্য যে যে লোকসভা এলাকায় যে দল শক্তিশালী, মোদী বিরোধী দলগুলোকে সেখানে সেই দলকেই সমর্থন করার কথা বলা হচ্ছে বিরোধী দলগুলোর তরফে। এই সূত্রকে কাজে লাগাতে প্রায়ই অগ্রনী ভূমিকা নিয়েছেন কেজরিওয়াল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল দিল্লিতে এই সূত্র প্রয়োগ করে কংগ্রেসকে বারবার কাছে টানতে চেয়েছেন বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুনঃ পুলওয়ামা জঙ্গিহানাকে দুর্ঘটনা বলে দেশ ও সেনাকে অপমান

এই সংক্রান্ত আলোচনার জন্য মঙ্গলবার দিল্লিতে রাহুল গান্ধীর উপস্থিতিতে দলীয় কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু সেখানে জোটের সম্ভাবনার কথা সম্পূর্ণ উড়িয়ে দেন দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেসের সভানেত্রী তথা দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত।

আরও পড়ুনঃ ভোটের আগে ভারতবাসীকে নতুন উপহার মোদীর

রাহুল গান্ধী এর আগেও দিল্লিতে একা লড়ার পক্ষে ছিলেন। আম আদমি পার্টির তরফে একাধিকবার কংগ্রেসের সাথে জোট করার প্রস্তাব দেওয়া হলেও সেই প্রস্তাবকে বিশেষ গুরুত্ব দেয়নি কংগ্রেস। এবার তারা পরিষ্কারভাবেই জানিয়ে দিল, আপের সাথে কোনও প্রকার আসন সমঝোতায় যাচ্ছে না কংগ্রেস।

আরও পড়ুনঃ ভারতের চাপে মাথা নত করল পাকিস্তান

কেজরীওয়ালের আম আদমি পার্টি যদিও এখনো সম্ভাবনার দিক খোলা রাখছে। দিল্লিতে ৭টি লোকসভা আসনের মধ্যে আম আদমি পার্টি ৬টিতেই প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়েছে। জোট হলে বাকী ১টি আসন কংগ্রেসকে ছাড়া হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে অতিরিক্ত ১টি আসনও কংগ্রেসকে ছাড় দিতে পারে আপ। কিন্তু জোট হলে কংগ্রেস ৪-৩ আসন চায় যা মানতে নারাজ আপ।

আরও পড়ুনঃ মোদীকে হত্যা কর, কংগ্রেস নেতার প্রকাশ্য নির্দেশ

লোকসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে জোটের প্রস্তাব দেওয়া হলেও আপের ওপর ক্ষুব্ধ দিল্লির কংগ্রেস। কোনও অবস্থাতেই জোট না হওয়ায় কেজরিওয়াল কংগ্রেসকেই কটাক্ষ করেন। তার মতে, মোদী বিরোধী জোটে আপের সাথে না থেকে প্রকারান্তরে বিজেপিকে সুবিধা করে দিচ্ছে কংগ্রেস, যে কারনে কংগ্রেসকে বিজেপির বি টিম বলে কটাক্ষ করতেও ছাড়েননি তিনি।

আরও পড়ুনঃ জঙ্গিদের সরাসরি সেনাবাহিনীতে নিচ্ছে ইমরানের পাকিস্তান

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে দিল্লি বিধানসভার ভোটে কংগ্রেসকে সরিয়ে ক্ষমতায় আসে আপ। প্রাথমিকভাবে আপের সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় কংগ্রেসকে সাথে নিয়ে সরকার চালাতে হয়। এরপর মাত্র ৪৯ দিনের মাথায় সরকার ভেঙ্গে দেন কেজরিওয়াল।

আরও পড়ুনঃ ম্যাডাম খুব তাড়াতাড়ি যুদ্ধ বিমানে বসতে চাই, নির্মলাকে অভিনন্দন

এরপর ২০১৫ সালে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে দিল্লি বিধানসভার ৭০টির মধ্যে ৬৭টি আসন দখল করে ক্ষমতায় আসে আম আদমি পার্টি। কংগ্রেস একটিও সিট পায়নি। এদিকে ২০১৪ লোকসভা ভোটে আপ ভালো সংখ্যক ভোট পেলেও আপ বা কংগ্রেস কেউই কোনো আসন জিততে পারেনি। এবার ত্রিমুখী লড়াইয়ে বিজেপির কতটা সুবিধা হয় সেটাই এখন দেখার।

আরও পড়ুনঃ মুম্বাই হামলার মত ফের জলপথে জঙ্গি হামলার ছক
আরও পড়ুনঃ ভারতীয় সাবমেরিনের ভয়ে কাঁপছে পাকিস্তান

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন