তৃণমূলের অনুব্রতর নকুলদানার পাল্টা বিজেপির সায়ন্ত্বনের নুন

400
তৃণমূলের অনুব্রতর নকুলদানার পাল্টা বিজেপির সায়ন্ত্বনের নুন/The News বাংলা
তৃণমূলের অনুব্রতর নকুলদানার পাল্টা বিজেপির সায়ন্ত্বনের নুন/The News বাংলা

প্রথমে গুড় বাতাসা, তারপর পাচন আর এখন নকুলদানা। বীরভূম তৃণমূলের জেলা সভাপতি নতুন নতুন শব্দ নিয়ে বিরোধীদের প্রকাশ্যেই প্রচ্ছন্ন হুমকি দেন বারবার। এবারের ভোটেও তাঁর নতুন শব্দ নকুলদানা। এর পাল্টা এবার দিলেন বিজেপি নেতা সায়ন্ত্বন বসু। নকুলদানার উত্তরে নুন ছেটাতে বলেছেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ ভোটের দিন ঘোষণার পরেই প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে বাংলায় এগিয়ে তৃণমূল

অনুব্রত-র নকুলদানার পাল্টা দিলেন বিজেপির সায়ন্ত্বন বসু। নুন ছেটানোর নিদান দিয়েছেন তিনি। অনুব্রত মণ্ডল ভোটারদের নকুলদানা দেওয়ার কথা বলেছিলেন। যার বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানায় বিজেপি ও সিপিএম। অনুব্রত মণ্ডলের মন্তব্যের পাল্টা সায়ন্ত্বন বসু, কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের হাতে নুন তুলে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ ক্ষমতায় ফের মোদী, ভোটের আগেই জানাচ্ছে সাট্টাবাজার

সোমবার মেদিনীপুর শহরে দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছিলেন সায়ন্ত্বন বসু। সেখানে তিনি, গুণ্ডা বদমাইশদের রাস্তায় ফেলে পেটানোর সময় নুন ছেটানোর নিদান দেন। আর এই নিয়েই সরগরম রাজ্য রাজনীতি।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় চার দলের লড়াই, ২০১১ র ভুল ২০১৯ এ করল না কংগ্রেস

সূত্রের খবর অনুযায়ী, গুন্ডা বদমাশদের পেটানোর সেই কাজে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ব্যবহারের কথা জানিয়েছেন তিনি। জেলার পুলিশ সুপারদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, সবাই তৃণমূলের পা চাটা। তৃণমূলে যোগ দেওয়া ভারতী ঘোষ, অর্জুন সিং সম্পর্কে তার সাফাই, তৃণমূলের নির্দেশে সাধারণের ওপর অত্যাচার করেছিলেন তারা।

আরও পড়ুনঃ ভাটপাড়ায় অনাস্থা, তৃণমূল বনাম বিজেপি

বিজেপির নুন ছেটানোর নিদানের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে তৃণমূল। সূত্রের খবর অনুযায়ী, পশ্চিম মেদিনীপুরের যুব তৃণমূল সভাপতি রমাপ্রসাদ গিরির অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ব্যবহারের চেষ্টা করছে তৃণমূল। বিজেপি নেতা সায়ন্ত্বন বসুর মন্তব্য থেকে তা পরিষ্কার, দাবি করেছেন ওই নেতা। বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের সামনে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ চোখ মেরে শাড়ির আঁচল ফেলে প্রচার মুনমুনের, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়

ফলে নকুলদানা ও নুন নিয়েই আপাতত তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। ভোটের মুখে আর কি কি শব্দ বাংলার রাজনীতিতে আসে সেটার জন্যই এখন অপেক্ষা। তবে এই ভোট যুদ্ধ আর শব্দ যুদ্ধের রেশ বেশ মজার সঙ্গেই তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করছেন সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুনঃ মোদীর সঙ্গে সবাই চৌকিদার, অদ্ভুত প্রচার বিজেপির

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন