মিসাইল দফতরের ভারতীয় কর্মী পাকিস্তানের গুপ্তচর

819
Image Source: Google Image

নিজস্ব সাংবাদদাতাঃ মহারাষ্ট্রের নাগপুর থেকে গ্রেফতার নিশান্ত আগরওয়াল নামের এক ভারতীয়। ওই ব্যক্তি নাগপুরের ব্রাহ্মস মিসাইল ইউনিট দফতরের কর্মী। তার বিরুদ্ধে পাকিস্তানের স্পাই বা গুপ্তচর সংস্থার হয়ে কাজ করার অভিযোগ, উত্তরপ্রদেশ ও মহারাষ্ট্রের Anti Terrorism Squads, (ATS) এর।

উত্তরপ্রদেশ ও মহারাষ্ট্রের Anti Terrorism Squads, (ATS) সোমবার গ্রেফতার করে নিশান্ত আগরওয়াল নামে এক ভারতীয়কে। সে নাগপুরে ব্রাহ্মস মিসাইল দফতরের কর্মী। তার বিরুদ্ধে রয়েছে মারাত্মক অভিযোগ। পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা ISI কে ব্রাহ্মস মিসাইলের গোপন কাগজপত্র পাচার করছিলেন তিনি।

নিশান্ত আগরওয়াল নামে ওই ব্যক্তির Official Secrets Act র আন্ডারে বিচার হবে। তার বিরুদ্ধে রয়েছে পাকিস্তানকে ব্রাহ্মস মিসাইলের গোপন ফর্মুলা পাচার করার মারাত্মক অভিযোগ।

এই ঘটনার পর নড়েচড়ে বসেছে ইন্ডিয়ান ইন্টেলিজেন্স। গোয়েন্দা দফতরের আধিকারিকরা তদন্ত করে দেখছেন এর পিছনে আর কেউ জড়িত আছে কিনা। ব্রাহ্মস মিসাইলের গোপন টেকনোলজিক্যাল ফর্মুলা আদৌ ফাঁস হয়ে গিয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দা দফতরের আধিকারিকরা।

Image Source: Google Image

ব্রাহ্মস মিসাইল সাবমেরিন, জাহাজ, এয়ারক্রাফট ও মাটি থেকেও নিক্ষেপ করা যায়। সবচেয়ে দ্রুতগতির ক্ষেপণাস্ত্র হিসাবে ব্রাহ্মস বিশ্বের অন্যতম সেরা। ব্রাহ্মস ক্ষেপণাস্ত্রের গোপন তথ্য অভিযুক্ত জোগাড় করেছিলেন বলেই সন্দেহ ATS এর। গোয়েন্দাদেরও ভাবাচ্ছে ভারতীয়দের ISI সংস্থার সঙ্গে যুক্ত থাকার ব্যপারটা। ব্রাহ্মস ক্ষেপণাস্ত্র এর গোপন ফর্মুলা পাক গোয়েন্দা সংস্থার হাতে পৌঁছে গেলে তা ভারতের নিরাপত্তার পক্ষে খুব একটা স্বস্তির হবে না।

একমাস আগেই ATS, পাকিস্তান গুপ্তচর সংস্থা ISI এর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে BSF বা বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের এক কর্মীকে গ্রেফতার করেছিল। অচ্যুতানন্দ মিশ্র নামের ওই BSF জওয়ান পাকিস্তান গোয়েন্দা সংস্থার ‘হানি ট্রাপে’ পরে ফেঁসে গিয়েছিলেন বলেই প্রাথমিক সন্দেহ ছিল গোয়েন্দাদের। তারপর ব্রাহ্মস ক্ষেপণাস্ত্রের দফতরে কাজ করা কর্মীর পাক-যোগসাজশের জন্য গ্রেফতার, চোখ কপালে তুলে দিয়েছে গোয়েন্দাদের।

পাক গোয়েন্দা সংস্থা ISI এর জন্য এমন কতজন স্পাই বা গুপ্তচর ভারতীয় প্রতিরক্ষা দফতরে কাজ করছেন, সেটা ভেবেই আশঙ্কিত ভারতীয় গোয়েন্দারা। যে ভাবে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে, মিসাইল দফতরে ও অনান্য প্রতিরক্ষা দফতরে একের পর এক ভারতীয় অফিসার, পাক গুপ্তচর সংস্থার হয়ে কাজ করতে গিয়ে ধরা পরছেন তাতে চোখ কপালে উঠেছে ভারতের গোয়েন্দাদের। প্রতিরক্ষা দফতরে এই ভাবে কাজ করা পাক স্পাই আর কোথায় কোথায় আছে, সেই ভেবেই আশঙ্কিত গোয়েন্দারা।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন