ভারতের ৫টি খুঁজে না পাওয়া কোটি কোটি টাকার খাজানা

694
Five Hidden Treasure of India/The News বাংলা
ভারতের ৫টি খুঁজে না পাওয়া কোটি কোটি টাকার খাজানা/The News বাংলা

প্রাচীন কাল থেকেই ভারতকে ‘সোনার পাখি’ বলা হয়। বহুদেশ এই খাজানা লুট করার জন্য এই দেশে আক্রমন করেছে। আর এই লুটপাটে অনেক খাজানা হারিয়ে গেছে। আসুন দেখে নেই এমন ৫টি খাজানা যার কোন হদিশ পাওয়া যায় নি ।

১. গোলকোন্ডার কৃষ্ণা নদীর গুপ্তধনঃ
প্রাচীন কালে এই গোলকোন্ডাই ছিল সারা পৃথিবীর একমাত্র হিরের খনি। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ হিরে কোহিনূর এই খনি থেকেই পাওয়া যায়। গোলকোন্ডায় শেষ খনন কাজ চালানো হয় ১৭০০ সালে। কিন্তু আসল খনি ঠিক কোথায় তা কেউ জানে না। মনে করা হয় এই খনিতে এখনও এত হিরে রয়েছে যা ভারতকে তার পুরনো সমৃদ্ধি ফিরিয়ে দিতে পারে।

আরও পড়ুনঃ টিভি চ্যানেল দেখা নিয়ে ভুল বোঝাচ্ছে কেবল অপারেটররা

২. নাদীর শাহ-র খাজানাঃ
১৭৩৯ সালে নাদীর শাহ ভারতে আক্রমণ করেন আর প্রচুর ধনরত্ন লুটপাট করেন। বলা হয় লুটপাট এতই বেশি ছিল যে তিনি যখন সৈন্য নিয়ে ফিরছিলেন তখন সেই লাইন নাকি প্রায় ২৪ কিমি লম্বা ছিল । নাদীর শাহ ফেরার পথে তার নিজের সৈন্যের হাতেই মারা যান। তারপর এই খাজানার কি হয়েছে তা কেউ জানেনা।

আরও পড়ুনঃ প্রেমিকাকে নিজের করে পেতে কি কি করতে হয় পুরুষকে

৩. মির ওসমান আলীর খাজানাঃ
হায়দ্রাবাদের শেষ নিজাম ছিলেন মির ওসমান আলি। তিনি ১৯৩৭ সালে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধনী ব্যাক্তি ছিলেন। বলা হয় তিনি যে প্যালেসে জীবনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছেন সেই প্যালেসের নিচে প্রায় ২২লক্ষ কোটি টাকার সম্পত্তি আছে । কিন্তু ঠিক কোথায় তা কেউ জানে না।

আরও পড়ুনঃ জন্মতিথিতে ঠাকুর রামকৃষ্ণের জীবনের ৮টি অলৌকিক ঘটনা

৪. গ্রস ভেনরের খাজানাঃ
গ্রস ভেনর ব্রিটিশ ইন্ডিয়ার সবথেকে বড় জাহাজ ছিল । এই জাহাজ চেন্নাই থেকে ১৪০০০ সোনার বার , ১৯ টা হিরে ভর্তি সিন্দুক আর আর ২৬ লক্ষ সোনার মুদ্রা নিয়ে ইংল্যান্ডে যাত্রা করে। কিন্তু দক্ষিন আফ্রিকার কাছে টা ডুবে যায় । বলা হয় সেই ধনরত্ন এখনও সমুদ্রের নিচে আছে।

আরও পড়ুনঃ বিশ্বজুড়ে বাড়ছে নারীদের স্তন ক্যানসার, ভয়াবহ এই রোগের প্রধান ৮টি লক্ষণ

৫. সোনভদ্র গুহাঃ
রাজগিরে অবস্থিত এই গুহাতে রাজা বিম্বিসারের খাজানার দরজা আছে। আর গুহার দেওয়ালে রয়েছে সেই দরজা খোলার সংকেত। কিন্তু আজ পর্যন্ত সেই সংকেত উদ্ধার করা সম্ভব হয় নি। ব্রিটিশরা এই পাথরের দরজা কামান দিয়ে ভাঙ্গার চেষ্টা করে। কিন্তু অসফল হয়। এখনও সেই কামানের দাগ এখানে দেখা যায়।

কেমন লাগলো আমাদের এই তথ্য? কমেন্টে জানান আর ভালো লাগলে শেয়ার করুন। আরও খবর পেতে লাইক করুন ‘The News বাংলা’ ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন