মানুষের আত্মহত্যার কারণগুলি জেনে নিন

359
জেনে নিন আত্মহত্যার কারণ সমূহ/The News Bangla বাংলা
জেনে নিন আত্মহত্যার কারণ সমূহ/The News Bangla বাংলা

ঠিক কোন কোন কারণে মানুষ আত্মহত্যা করে তা সঠিকভাবে খুঁজে বের করা বেশ কঠিন। কিছু গবেষণার মাধ্যমে জানা গেছে কেন একজন মানুষ আত্মহত্যা করে। মানুষের আত্মহত্যার কারণগুলি জেনে নিন।

ব্যক্তিগত কারণঃ দীর্ঘদিন অসহনীয় শারীরিক ও মানসিক যন্ত্রণা বা কষ্টের কারণে মানুষ আত্মহত্যা করতে পারে। দীর্ঘদিন এই অসহনীয় যন্ত্রণা একসময় তারা আর সইতে না পেরে আত্মহত্যা করতে পারে। একই সাথে যদি অনেকগুলো সমস্যা এসে হাজির হয় এবং তখন ব্যক্তি সবগুলো সমস্যার সম্মিলিত চাপ যদি নিতে না পারে, তখন ব্যক্তি আত্মহত্যার চেষ্টা করতে পারে।

আরও পড়ুনঃ টিভি চ্যানেল দেখা নিয়ে ভুল বোঝাচ্ছে কেবল অপারেটররা

ব্যক্তি জীবনের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির মাঝে দুরত্ব, ব্যক্তির মাঝে হতাশার জন্ম দিতে পারে এবং তখন মানুষ আত্মহত্যা করতে পারে। কতটুকু প্রত্যাশা করা যাবে আর কতটুকু করা যাবে না, এই বিষয়ে যদি ব্যক্তির সচেতনতার অভাব থাকে তবে তাদের হতাশা তত বেশি হবে। কেউ যদি অন্যের কাছ থেকে আদর, ভালোবাসা, স্নেহ, শ্রদ্ধা ইত্যাদির প্রাপ্তির জন্য অতিরিক্ত প্রত্যাশা থাকে তবে তারা বেশ ঝুঁকিতে আছে বলা যায়।

আরও পড়ুনঃ জন্মতিথিতে ঠাকুর রামকৃষ্ণের জীবনের ৮টি অলৌকিক ঘটনা

মাদকসেবনঃ যে সব ব্যক্তি মাদকদ্রব্য গহণ করে বা বিভিন্ন ধরনের ড্রাগ নেয় তাদের আত্মহত্যার ঝুঁকি সাধারণ মানুষের তুলনায় প্রায় ১০ গুণ বেশি। আাবার যারা ইনজেকশনের মাধ্যমে মাদকদ্রব্য গহণ করে তাদের আত্মহত্যার ঝুঁকি সাধারণ একজন মানুষের তুলনায় প্রায় ১৪ গুণ বেশি। কারণ এসব ব্যক্তি এমনিতেই মাদকদ্রব্য গ্রহণজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগতে থাকে এবং এর সাথে তাদের ব্যক্তিগত ও সমাজিক নানা সমস্যা দেখা দিলে তারা আর নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনা।

আরও পড়ুনঃ প্রেমিকাকে নিজের করে পেতে কি কি করতে হয় পুরুষকে

বংশগতি বা জেনেটিক ফ্যাক্টরঃ শুধুমাত্র ব্যক্তিগত ও সামাজিক বিষয়গুলো আত্মহত্যা বিষয়টিকে পুরোপুরি ব্যাখ্যা করতে পারে না। আত্মহত্যার সাথে বংশগতির কোন সম্পর্ক আছে কিনা তা জানার জন্য বিজ্ঞানীরা পরিবার, অভিন্ন যমজ ও পোষ্যপুত্রদের নিয়ে গবেষণা করে দেখেছেন যে, আত্মহত্যার সাথে বংশগতির একটা গুরুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ বিদ্যাসাগর, বিবেকানন্দ, নেতাজির সঙ্গেই সেরা বাঙালি প্রতিভা মমতা

সামাজিক কারণঃ আত্মহত্যার জন্য সামাজিক বিভিন্ন ফ্যাক্টর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সামাজিক অন্যান্য ফ্যাক্টরগুলোর মধ্যে আছে পরিবারে আত্নহত্যার ইতিহাস থাকা, বন্ধু-বান্ধবদের কটু কথার স্বীকার হওয়া, বাবা মা বা পরিবারের অন্যান্য মানুষের দ্বারা ক্রমাগত কটুকথা শুনতে থাকা, কৃষ্টিগত বিশ্বাস, লিঙ্গগত বৈষম্য, পরিবারের আর্থিক অবস্থা, আধুনিক জীবনের চাপ, বিবাহিত জীবনের ঝগড়া বিবাদ, বিচ্ছেদ, চাকরী চলে যাওয়া, অর্থনৈতীক ধস, শিক্ষা, অ্যাবিউজ, প্রিয় কোন মানুষের মৃত্যু ইত্যাদি।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানি চায়ের বিজ্ঞাপনের ভাইরাল ছবিতেও ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন

বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে বিবাহিতদের তুলনায় অবিবাহিতদের ভিতর আত্মহত্যার হার বেশি, কারণ অবিবাহিতদের তুলনায় বিবাহিতদের সামাজিক বন্ধন বেশি থাকে। গবেষণাতে দেখা যায় যে, যেসব মহিলাদের বা মানুষের সন্তান হয়না তারা বেশি আত্মহত্যা করে। আবার পরিবার,সমাজ বা রাষ্ট্র যদি অতিরিক্ত নিয়ন্ত্রণ আরোপ করে তখন ব্যক্তি আত্মহত্যা করতে পারে।

আরও পড়ুনঃ বাংলাতে এখন গরুর দুধের থেকেও অনেক বেশি দামি গো মুত্র

সামাজিক অন্যান্য ফ্যাক্টরগুলোর মধ্যে আছে পরিবারে আত্নহত্যার ইতিহাস থাকা, বন্ধু-বান্ধবদের কটু কথার স্বীকার হওয়া, বাবা মা বা পরিবারের অন্যান্য মানুষের দ্বারা ক্রমাগত কটুকথা শুনতে থাকা, কৃষ্টিগত বিশ্বাস, লিঙ্গগত বৈষম্য, পরিবারের আর্থিক অবস্থা, আধুনিক জীবনের চাপ, বিবাহিত জীবনের ঝগড়া বিবাদ, বিচ্ছেদ, চাকরী চলে যাওয়া, অর্থনৈতীক ধস, শিক্ষা, অ্যাবিউজ, প্রিয় কোন মানুষের মৃত্যু ইত্যাদি।

আরও পড়ুনঃ অদ্ভুত জেল যেখান থেকে আর বাড়ি ফিরতে চায় না কয়েদিরা

মানসিক কারণঃ আত্মহত্যার জন্য মানসিক কারণগুলোও গুরুত্বপূর্ণ। মানসিক কারণগুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো আশাহীনতা। এছাড়া সারাক্ষণ নেগেটিভ চিন্তা করাও গুরুত্বপূর্ণ। যারা সর্বদা নেতিবাচক চিন্তা করতে থাকে তাদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা বেশি থাকে।

আরও পড়ুনঃ নিয়ম মেনে ভারতের জাতীয় পতাকা তুলে রাখা যায় রাতেও

তাছাড়া যারা এক বা একাধিকবার প্রচেষ্টা করেও সফল হতে পারেনা, তাদের পিতা মাতা, পরিবার বেশির ভাগ সময় তাদের বিভিন্ন অন্যায় আবদার মেনে নেয়, ফলে তারা তাদের অবিভাবকদের ভয় ভীতি দেখানোর জন্য আত্মহত্যার প্রচেষ্টা চালায়। অনেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অপরাধবোধে ভোগে এবং আত্মহত্যার দিকে ধাবিত হয়। আবার অনেকে সমস্যার সমাধান করার ক্ষমতার অভাবে কি করবে বুঝতে না পেরে আত্মহত্যা করে বসে।

আরও পড়ুনঃ জওহরলাল নেহেরুর গলায় মালা দিয়ে ৬০ বছর পরেও একঘরে ‘নেহেরুর বউ’
আরও পড়ুনঃ জয় হিন্দ, ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের সোনার অক্ষরে লেখা ইতিহাস

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন