ফের লজ্জার অন্ধকারে সিবিআই, চরম অপমানের শাস্তি সিবিআই প্রধানকে

890
ফের লজ্জার অন্ধকারে সিবিআই, চরম অপমানের শাস্তি সিবিআই প্রধানকে/The News বাংলা
ফের লজ্জার অন্ধকারে সিবিআই, চরম অপমানের শাস্তি সিবিআই প্রধানকে/The News বাংলা

ফের চূড়ান্ত লজ্জা সিবিআই এর। ফের লজ্জার অন্ধকারে সিবিআই, অপমানের শাস্তি প্রাক্তন সিবিআই প্রধানকে। মোদী ঘনিষ্ঠ আইপিএস নাগেশ্বর রাওকে আদালত অবমাননার জেরে মঙ্গলবার সারাদিন আদালতের এক কোনে বসে থাকতে হবে। যতক্ষণ না সুপ্রিম কোর্টের কাজ শেষ হচ্ছে। সঙ্গে ১ লাখ টাকার জরিমানা। দেশের শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এর বেঞ্চ এই অপমানজনক নির্দেশ দিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ হোটেলে ভয়াবহ আগুন, জীবন্ত দগ্ধ ১৫, লাফ মেরে মৃত আরও ২

“যান আদালতের কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত এক কোনে দাঁড়িয়ে থাকুন”, ঠিক এই ভাষাতেই প্রাক্তন অন্তর্বর্তী সিবিআই প্রধান নাগেশ্বর রাওকে অপমান করল দেশের শীর্ষ আদালত। সঙ্গে আদালত অবমাননার দায়ে ১ লাখ টাকার জরিমানা করা হয়েছে তাঁকে। বিহারের মুজাফফরপুর হোম কাণ্ডে তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় আগেই ক্ষমা চান প্রাক্তন অন্তর্বর্তী সিবিআই প্রধান নাগেশ্বর রাও। কিন্তু ক্ষুব্ধ শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ তাঁকে মঙ্গলবার এই অপমানজনক শাস্তি শোনান।

আরও পড়ুনঃ ধর্মতলায় আন্দোলনের অধিকার শুধু মমতার, বাকি সবার জন্য নিষিদ্ধ

৫ দিন আগেই সুপ্রিম কোর্টের তীব্র ক্ষোভের মুখে পড়েন সিবিআইয়ের বিশেষ অধিকর্তা নাগেশ্বর রাও। অলোক ভার্মাকে সরিয়ে দেওয়ার পর তিনিই কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বাহিনীর দায়িত্ব অস্থায়ী ভাবে হাতে নিয়েছিলেন। গত বৃহস্পতিবারই শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, “আদালতের নির্দেশ অমান্য করে সিবিআই আধিকারিককে বদলি করে আদালত অবমাননার অপরাধ করেছেন নাগেশ্বর রাও”।

আরও পড়ুনঃ রাহুলকে সরিয়ে লোকসভা ভোটে মোদী বিরোধী মুখ প্রিয়াঙ্কাই

ক্ষুব্ধ প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ আদালত অবমাননার নোটিস জারি করে রাওকে এজলাসে তলব করেন। আজ মঙ্গলবার হাজিরা দিতে হত তাঁকে। বিচারপতি গগৈ গত বৃহস্পতিবারই বলেন, “আইন হল আপনার একমাত্র বস। কোনও রাজনৈতিক নেতা নয়। অন্যের কথায় হলফনামা দেবেন না”। তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বিচারপতি গগৈ সিবিআইয়ের আইনজীবীকে রাঘবচারুলুকে বলেন, “সিবিআই আধিকারিকরা আমাদের নির্দেশ নিয়ে খেলা করেছেন। এটা আদালত আবমাননার সামিল। এখন একমাত্র ভগবানই আপনাদের সাহায্য করতে পারবেন”।

আরও পড়ুনঃ লোকসভা ভোটের আগে হত্যা মামলা থেকে মুক্তি নরেন্দ্র মোদীর

আজই আদালতে হাজির হয়ে নাগেশ্বর রাও জানান, কেন তিনি শীর্ষ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে বিহারের মুজফ্‌ফরপুরে অনাথ আশ্রম সংক্রান্ত মামলার তদন্তের দায়িত্বে থাকা আধিকারিক এ কে শর্মাকে বদলি করেছেন। রাওয়ের ব্যাখ্যায় বিচারপতিরা সন্তুষ্ট না হওয়ায় এবার বেশ বড়সড় ও অপমানজনক শাস্তির মুখে পড়লেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ রথী মহারথীদের নাম লেখা ১২ পাতার গোপন চিঠি সিবিআইকে দিলেন কুণাল ঘোষ

সুপ্রিম কোর্ট সূত্রে খবর, বিষয়টিতে রাও যথেষ্ট ব্যাকফুটেই ছিলেন। তাঁর স্বল্প সময়ের কার্যকালে হওয়া ৪০ জন আধিকারিকের বদলিতে এত বড় সমস্যা হয়নি, যা এবার তৈরি হল। শীর্ষ আদালতের রোষানলে তৈরি আইনি জটিলতা নাগেশ্বর রাওয়ের সার্ভিস কেরিয়ারে কালো দাগ লাগিয়ে দিল বলেই মনে করছেন আইনজীবীরা।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তান চিনের চিন্তা বাড়িয়ে ভারতীয় সেনার হাতে এল ভয়ঙ্কর চিনুক হেলিকপ্টার

আইনজীবীরা মনে করছেন, ‘সিবিআই প্রধান হিসেবে তাঁর কার্যকালে গৃহীত বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে এমনিতেই সুপ্রিম কোর্টে একাধিক মামলা চলছে। নোটিসও জারি হয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। অন্তর্বর্তী সিবিআই প্রধান হিসেবে তাঁর নিয়োগের বিরোধিতা করেও মামলা চলছে। এমন অবস্থায় আদালত অবমাননার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় নিশ্চিতভাবেই বড় সমস্যায় পড়লেন তিনি’৷

আরও পড়ুনঃ মমতার ধর্ণায় বসা পুলিশ অফিসারদের কড়া শাস্তি দিতে চলেছে মোদী সরকার

রাওয়ের মতোই মুজফ্ফপুরের হোমে হওয়া যৌন অত্যাচারের মামলায় এদিন শীর্ষ আদালতের রোষানলে পড়ে বিহার সরকারও। ক্ষুব্ধ প্রধান বিচারপতি বিহার থেকে এই মামলা দিল্লিতে সরিয়ে আনার নির্দেশ দেন। বলেন, “যথেষ্ট হয়েছে। শিশুদের ভবিষ্যত নিয়ে ছেলেখেলা চলতে পারে না। বিচারের স্বার্থরক্ষার জন্যই বিহারের বাইরে মামলার বিচারপর্ব নিয়ে যাওয়া হবে”। বিচারপতি গগৈয়ের নির্দেশ, ছমাসের মধ্যে শেষ করতে হবে বিচার প্রক্রিয়া।

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন