চিত্র পরিচালক ও লেখকদের পর ঘৃণার রাজনীতি নিয়ে সরব দেশের সেরা বিজ্ঞানীরা

484
চিত্র পরিচালক ও লেখকদের পর ঘৃণার রাজনীতি নিয়ে সরব দেশের সেরা বিজ্ঞানীরা/The News বাংলা
চিত্র পরিচালক ও লেখকদের পর ঘৃণার রাজনীতি নিয়ে সরব দেশের সেরা বিজ্ঞানীরা/The News বাংলা

লোকসভা ভোট ও ঘৃণার রাজনীতি নিয়ে এবার আমজনতার কাছে মুখ খুললেন দেশের বিজ্ঞানীরাও। ১০০ জন চিত্র পরিচালক ও প্রায় ২০০ জন লেখকের পর দেশের প্রায় ১৫০ জন বিজ্ঞানী ‘ঘৃণার রাজনীতি’র বিরুদ্ধে সরব হলেন। নাম না করে বিরোধিতা করলেন দেশের শাসক দল বিজেপির।

“Weigh arguments and evidence critically”, to remember our constitutional commitment to scientific temper and to vote against inequality, intimidation, discrimination, and unreason”। ঠিক এই ভাষাতেই নিজেদের বক্তব্য জানালেন দেশের বিখ্যাত ১৫০ জনের বেশি বিজ্ঞানী।

আরও পড়ুনঃ ঘৃণার রাজনীতির বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার আবেদন জানালেন দেশের ২০০ জন লেখক

অমিতাভ যোশী, গগনদ্বীপ কং, নরেশ দাধিচ, প্রজ্বল শাস্ত্রী, সুভাষ লাখোটিয়া প্রভৃতি গবেষকরাও আছেন তালিকায়। আসন্ন লোকসভা ভোটে সাধারণ মানুষ যেন অসাম্য, বৈষম্য, অযৌক্তিকতা এবং হুমকির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান, এই মর্মেই দেশের এইরকম প্রায় ১৫০ জন বিজ্ঞানী ও গবেষক একটি আবেদন পত্রে সই করেছেন।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূলের মিমির বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু তোষণের অভিযোগ বিজেপির

মুম্বইয়ের টাটা ইন্সটিটিউট অব ফান্ডামেন্টাল রিসার্চ, দিল্লির ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিস্টিকাল ইন্সটিটিউটের মতো দেশের বড় প্রতিষ্ঠানগুলির স্বনামধন্য বিজ্ঞানী ও গবেষকরা রয়েছেন এই তালিকায়। গোটা দেশের বেশ কিছু স্বনামধন্য বিজ্ঞানী ও গবেষকরা এই আবেদন পত্রে সই করেছেন।

আরও পড়ুনঃ ভোট প্রচারে হেলিকপ্টার পাচ্ছেন না মমতা, অভিযোগের তীর কেন্দ্রের দিকে

বুধবার এই বিবৃতিটি ইন্ডিয়ান কালচারাল ফোরামের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়। বিজ্ঞানীরা এই লোকসভা ভোটকে ‘অতি গুরুত্বপূর্ণ’ বলে বর্ণনা করেছেন। দেশের মানুষের কাছে তাঁদের আবেদন, যেখানে মৌলিক অধিকার খর্ব হয়, সমান অধিকারে গুরুত্ব দেওয়া হয় না, মানুষের ভাষা, সংস্কৃতি থেকে বাক অধিকার খর্ব হয়, তেমন কোনও রাজনৈতিক দলকে যেন ভোট না দেন কোন ভোটার।

আরও পড়ুনঃ দলের প্রার্থীকে জেতালেই পুরষ্কার সোনার গহনা, বিদেশ ভ্রমনের টিকিট

বিজ্ঞানীদের অভিযোগ, যেখানে গবেষক, লেখক, যুক্তিবাদীদের লাঞ্ছিত করা হয় নানাভাবে, এমনকী জেলে দেওয়া হয়, হত্যা করা হয়, তাদেরকে কোনওভাবেই এদেশের ভবিষ্যতের ভার দেওয়া উচিত নয়। এই মৌলবাদী চিন্তা ও কাজকর্ম শেষ করতে হবে, তবেই কর্মক্ষেত্র, শিক্ষাক্ষেত্র বা গবেষণায় সুযোগ সুবিধা বাড়বে বলে যুক্তি বিজ্ঞানীদের।

আরও পড়ুনঃ অভিষেকের স্ত্রী রুজিরাকে শুল্ক দফতরের সামনে হাজিরার নির্দেশ হাইকোর্টের

বিজ্ঞানী ও গবেষকরা ওই বিবৃতিতে জানিয়েছেন, মানুষে মানুষে ভেদাভেদ তৈরি করে, এমন রাজনীতিকে তাঁরা সমর্থন করেন না। যে রাজনৈতিক দল সমাজের মধ্যে ভয় ও ঘৃণার আবহ তৈরি করে তাদের পাশে যেন কেউ না থাকেন বলে বিবৃতিতে জানান বিজ্ঞানীরা।
তাই দেশের মানুষের উদ্দেশে তাঁদের বার্তা, আওয়াজ তুলুন, সমালোচনা করুন আর ভোট দিন চিন্তা-ভাবনা করে।

আরও পড়ুনঃ মোদী কি করে প্রধানমন্ত্রী হল ভগবান জানে, মাথাভাঙায় বিস্ফোরক মমতা

বিজ্ঞানীরা আরও জানান, প্রত্যেক নাগরিক যেন দেশের সংবিধান সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থাকেন। সংবিধানের দেওয়া অধিকার যেন মানুষ ভুলে না যান। তবে লেখক বা চিত্র পরিচালকদের মতো কোনও বিশেষ রাজনৈতিক দলের সরাসরি নাম নেননি বিজ্ঞানীরা। তাঁরা কেবল নরেন্দ্র মোদী সরকারের আমলে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ইস্যুকে তুলে ধরে মানুষকে ভাবনা-চিন্তা করে নির্বাচনে অংশীদার হতে আবেদন করেছেন।

আরও পড়ুনঃ ভোটের মুখে তৃণমূল সভাপতির বাড়ি থেকে উদ্ধার অস্ত্র ও কোটি কোটি টাকা

সপ্তাহখানেক আগেই ১০০ জনের বেশি চিত্র পরিচালক বিজেপিকে ভোট না দেওয়ার জন্য মানুষের কাছে আবেদন রেখেছিলেন। গত সোমবারই ২০০ জনের বেশি ভারতীয় লেখক ‘ঘৃণার রাজনীতি’র বিরুদ্ধে মানুষকে ভোট দিতে আবেদন করেছিলেন। এবার প্রায় ১৫০ জন বিজ্ঞানী বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে সোচ্চার হলেন।

আরও পড়ুনঃ অ্যান্টি স্যাটেলাইট টেস্ট নিয়ে নাসার অভিযোগ উড়িয়ে দিল ভারত

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতা ধার করে আমজনতাকে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন দেশের সেরা বিজ্ঞানীরা। “চিত্ত যেথা ভয়শূন্য, উচ্চ যেথা শির, জ্ঞান যেথা মুক্ত, যেথা গৃহের প্রাচীর”। রবীন্দ্রনাথের কবিতা দিয়ে সাধারণ ভোটারদের বোঝাতে এবার আসরে বিজ্ঞানীরা।

আরও পড়ুনঃ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ না মেনে বিমল গুরুং কে গ্রেফতার করতে পারেন মমতা

লোকসভা ভোট নিয়ে চিত্র পরিচালক ও লেখকদের পর ঘৃণার রাজনীতি নিয়ে সরব দেশের সেরা বিজ্ঞানীরা। বুদ্ধিজীবী মহল হঠাৎ ভোটের আগে ভারতবাসীকে ‘ঘৃণার রাজনীতি’র বিরুদ্ধে বোঝাতে কেন এলেন, প্রশ্ন উঠেছে সেই নিয়েও।

আরও পড়ুনঃ মমতার দাবি না মেনে জঙ্গলমহল থেকে ৩০ কোম্পানি বাহিনী তুলছে নির্বাচন কমিশন

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন