বাংলায় ভোটে সত্যজিত রায়ের গুপি বাঘার শরণাপন্ন হল নির্বাচন কমিশন

264
বাংলায় ভোটে সত্যজিত রায়ের গুপি বাঘার শরণাপন্ন হল নির্বাচন কমিশন/The News বাংলা
বাংলায় ভোটে সত্যজিত রায়ের গুপি বাঘার শরণাপন্ন হল নির্বাচন কমিশন/The News বাংলা

বাংলায় ভোটে সত্যজিত রায়ের গুপি বাঘার শরণাপন্ন হল বাংলার মুখ্য নির্বাচনী অফিসার দফতর বা নির্বাচন কমিশন। গুপি বাঘার মত অভিনয় করে ভোট দেবার প্রচার করছেন দুই অভিনেতা, এমন একটা ভিডিও প্রকাশ্যে এনেছে নির্বাচন কমিশন। তবে অনেকেই মজা করে বলছেন, গুপি বাঘা নয়, বাংলার ভোটের বুথে হিংসা ও সন্ত্রাস বন্ধ করতে পারে একমাত্র ভূতের রাজা।

আরও পড়ুনঃ অর্জুন সিংহের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ চার কাউন্সিলর সহ কয়েক হাজার তৃণমূল কর্মীর

দেখুন রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার দফতর থেকে প্রকাশিত গুপি বাঘাকে নিয়ে সেই ভিডিও টিজারঃ

সত্যজিৎ রায় কেবলমাত্র বাংলারই নন। তিনি বিশ্ব বরেণ্য চিত্র পরিচালক। তাঁর তৈরি করা যে সব সিনেমা আছে তার মধ্যে গুপী গাইন বাঘা বাইন আজও সকলের মন জয় করে নেয়। আর এবার নির্বাচন কমিশন সেই গুপী বাঘা কে নিয়েই মানুষকে ভোট দানের জন্য সচেতন করার উদ্যোগ গ্রহণ করল। গুপি বাঘাকে নিয়ে এবার ভোটারদের বুথে যাবার টিজার বের করল রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার দফতর বা সিইও দফতর।

আরও পড়ুনঃ দুদফায় ভোট থেকে শিক্ষা নিয়ে বাংলায় তৃতীয় দফায় সব বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী

নির্বাচন কমিশন ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে তাদের মূল লক্ষ্য রেখেছিল দেশের প্রত্যেক ভোটারকে ভোটদান কেন্দ্রের নিয়ে যাওয়া। ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশন অনেক ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সারা রাজ্য জুড়ে। এবার দ্বিতীয় দফার নির্বাচনের পর গুপি বাঘা কে সঙ্গে করে নতুন উদ্যোগ নিল নির্বাচন কমিশন। তাদের গান আর ঢাকের মাধ্যমে রাজ্যবাসীকে ভোট দেবার জন্য উৎসাহিত করছে কমিশন।

আরও পড়ুনঃ ভোটের পরেও অশান্ত চোপড়ায় গুলির লড়াই, গুলিবিদ্ধ সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র

আর দেরি নয় এবার ভোটদান কক্ষে গিয়ে নিজের ভোট দিতে হবে নিজের হাতেই। নিজের ভোট নিজে দিন। এই প্রচার করতেই, ছোট্ট একটি ভিডিও ক্লিপ বানিয়ে গুপি বাঘার মাধ্যমে মানুষের কাছে তাঁরা পৌঁছতে চাইছেন বাকি পাঁচ দফার সকল ভোটারের কাছে। এইভাবেই বাংলায় ভোটে সত্যজিত রায়ের গুপি বাঘার শরণাপন্ন হল বাংলার মুখ্য নির্বাচনী অফিসার দফতর বা নির্বাচন কমিশন।

আরও পড়ুনঃ ভোটের দায়িত্বে থাকা অর্ণব রায়ের উধাও হওয়া ফিরিয়ে এনেছে রাজকুমার রায়ের স্মৃতি

তবে মুখ্য নির্বাচনী অফিসার দফতর এর এই টিজার দেখে ও প্রথম দুই দফার ভোটে বেশ কিছু জায়গায় হিংসা ও সন্ত্রাস দেখে সাধারণ ভোটাররা অবশ্য বলছেন, গুপি বাঘা নয়, সরাসরি ভূতের রাজার শরণাপন্ন হতে পারত বাংলার মুখ্য নির্বাচনী অফিসার দফতর বা নির্বাচন কমিশন। তাহলে বুথের বাইরে ও ভিতরে ঢুকে নৃত্য করা দলের ভূতগুলোকে শায়েস্তা করতে পারত ভূতের রাজা। যেটা সবটা পারছে না নির্বাচন কমিশন।

আরও পড়ুনঃ মমতার সভা আলো করে বসে দাগী সমাজবিরোধী, নির্বাচন কমিশনে গেল বিরোধীরা

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন