তমলুকের বিজেপি প্রার্থীকে এইট পাস বলে কটাক্ষ শুভেন্দুর

332
তমলুকের বিজেপি প্রার্থীকে এইট পাস বলে কটাক্ষ শুভেন্দুর/The News বাংলা
তমলুকের বিজেপি প্রার্থীকে এইট পাস বলে কটাক্ষ শুভেন্দুর/The News বাংলা

তমলুকের বিজেপি প্রার্থীকে এইট পাস বলে কটাক্ষ শুভেন্দু অধিকারীর। আর এই নিয়েই তৃণমূল বিজেপি জোর তরজা শুরু হয়েছে। সৌজন্যবোধ হারিয়েছেন শুভেন্দু, দাবি বিজেপির। সত্যি বলা হয়েছে, আপত্তি কোথায়? দাবি তৃণমূলের।

পূর্ব মেদিনীপুরের রাজনীতি বলতে প্রথমেই যাদের কথা মাথায় আসে, তা হল অধিকারী পরিবার। এই অধিকারী পরিবারের হাতে থাকা পূর্ব মেদিনীপুর জেলা যেন তৃণমূল কংগ্রেসের দুর্ভেদ্য এক দুর্গ। তৃণমূলের এই খাসতালুকে বিজেপি প্রার্থী ভাগ বসাবে, ব্যাপারটাই যেন ভাবা যায় না।

আর সেই সুরেই পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী আক্রমন করলেন তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থীকে। প্রশ্ন তুললেন বিজেপি প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে। আর এই নিয়েই তোলপাড় জেলার রাজনীতি।

আরও পড়ুনঃ মোদী সরকারের বড় সাফল্য, মাসুদ আজাহার আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণা

তমলুক লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সিদ্ধান্ত নস্কর, যার বাড়ি নদীয়ার নবদ্বীপে। উল্লেখ্য, অধিকারীদের গড় তালুকে অধিকারী পরিবারের দুই সদস্যকে লোকসভার প্রার্থী করেছে তৃণমূল। কাঁথি লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন শিশির অধিকারী, অন্যদিকে তমলুক কেন্দ্রে শিশির পুত্র দিব্যেন্দু অধিকারী লড়ছেন ঘাসফুল প্রতীকে।

তমলুকে দিব্যেন্দু অধিকারীর হয়ে প্রচারে গিয়ে বিজেপি প্রার্থীকে কটাক্ষ করেন শুভেন্দু। বলেন ক্লাস এইট পাস প্রার্থীকে কেউ ভোট দেবে না। যার যোগ্যতা নেই তাঁকে মানুষ ভোট দেবে কেন? জেলার মানুষ শিক্ষিত মানুষকেই ভোট দেবে বলেই ইঙ্গিত দেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ দক্ষিন পূর্ব রেলের সঙ্গে কথা বলে পুরী থেকে পর্যটকদের ফেরাতে বিশেষ ট্রেন পাঠাচ্ছে বাংলা

এদিন শুভেন্দু বলেন, তমলুকবাসী বহিরাগত প্রার্থীকে এই জেলায় জায়গা দেবে না। এরপরেই বিজেপি প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে কটাক্ষ করা হয়। শুভেন্দু বলেন, পূর্ব মেদিনীপুর জেলা রাজ্যে শিক্ষার হারে ও পরীক্ষায় ভালো ফলাফলের বিচারে সবচেয়ে এগিয়ে থাকে।

সেখানে একজন এইট পাস প্রার্থীকে এই জেলার মানুষ গ্রহণ করবে না। কোন ভদ্রলোককে বিজেপি তমলুকে প্রার্থী করার জন্য খুঁজে পায়নি বলে কটাক্ষ করেন তিনি। স্বাভাবিকভাবেই শুভেন্দুর বক্তব্যের নিন্দা করেছে বিজেপি।

আরও পড়ুনঃ মন্দারমনি ও দিঘাতে নিষিদ্ধ হল পর্যটকদের সমুদ্র সৈকতে যাওয়া

সারা রাজ্যে বিজেপির গ্রাসে তৃণমূলের হৃদয়ে কম্পন শুরু হয়েছে, তাই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী থেকে দলের নেতারা ব্যক্তি আক্রমণের পথ ধরছেন বলে বিজেপির তরফে বলা হয়েছে। বিজেপির বক্তব্য, এটাই তৃণমূলের সংস্কৃতি ও মানসিকতার পরিচয়।

তবে বিজেপির এই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। শুভেন্দু অধিকারী ঠিক কথাই বলেছেন জানিয়েছেন জেলা নেতারা। ভোটের মধ্যে আপাতত প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা ও মন্ত্রীর কটাক্ষ নিয়েই তোলপাড় বিদ্যাসাগরের জেলা।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন