বাবুলকে হারাতে ১ কোটি টাকার কাজের টোপ, বিতর্কিত ঘোষণা মেয়রের

613
বাবুলকে হারাতে ১ কোটি টাকার কাজের টোপ, বিতর্কিত ঘোষণা মেয়রের/The News বাংলা
বাবুলকে হারাতে ১ কোটি টাকার কাজের টোপ, বিতর্কিত ঘোষণা মেয়রের/The News বাংলা

নিজের ওয়ার্ডে ৫ হাজারের বেশি ‘লিড’ দিতে পারলেই মেয়র দেবেন ১ কোটি টাকার কাজ। আর এই বিতর্কিত ঘোষণা করেই চমকে দিয়েছেন আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি। আর তাঁর এই বক্তব্যের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পরেই চরম বিতর্ক শুরু হয়েছে রাজ্য জুড়ে। বিজেপির তরফ থেকে ইতিমধ্যেই আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারির এই ভিডিও জমা দেওয়া হয়েছে নির্বাচন কমিশনে।

দেখে নিন, শুনে নিন আসানসোলের মেয়রের সেই কোটি টাকার অফারঃ

আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারির এই ঘোষণার সমালোচনা করেছেন আসানসোলের বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়। তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন, এইভাবেই ভোট কেনার চেষ্টা করছে তৃণমূল কংগ্রেস। কি বলেছেন আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি?

আরও পড়ুনঃ বাবুলকে ‘বাচ্চা ছেলে’ বলে কটাক্ষ করলেন ‘সেন্সেশনাল’ মুনমুন

দলের এক কর্মীসভায় আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি ঘোষণা করেন, এবারের লোকসভায় যে কাউন্সিলর নিজের ওয়ার্ডে ৫ হাজারের বেশি লিড দেবে তাঁকে তিনি আসানসোল পুরসভার মেয়র হিসাবে ১ কোটি টাকার অতিরিক্ত কাজ দেবেন। ৩ হাজারের বেশি লিড দিতে পারলে তাঁকে দেওয়া হবে ৫০ লক্ষ টাকার অতিরিক্ত কাজ। আর ২ হাজারের বেশি লিড দিতে পারলে তাঁকে দেওয়া হবে ৩০ লক্ষ টাকার কাজ। আর ১ হাজারের বেশি লিড দিলে দেওয়া হবে ১০ লক্ষ টাকার অতিরিক্ত কাজ। আর লিড দিতে না পারলে তাঁকে পদত্যাগ করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় বিজেপির সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা

আর এই ঘোষণার পরেই শোরগোল পরে যায় গোটা রাজ্যে। আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারির এই ঘোষণার ভিডিও মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। সমালোচনার ঢেউ ওঠে বিজেপির তরফ থেকে। যদিও কলকাতার মেয়র ও রাজ্যের পুরমন্ত্রী হিরহাদ হাকিম বলেন, ওটা ভোট নয়, উন্নয়ন নিয়ে কাজ নিয়ে বলা হয়েছে। এদিকে আসানসোলের বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয় এই নিয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করছেন বলেই জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ ক্ষমতায় ফের মোদী, ভোটের আগেই জানাচ্ছে সাট্টাবাজার

এর আগেও দলিয় কর্মীদের সচেতন করতে আসানসোলের মেয়র বলেন, “গোপনে খবর পেয়েছি পার্টি ৭০ জনকে আসানসোলে পাঠিয়েছে। যারা আমার উপর, আমাদের উপর নজর রাখছে, দাশুদার উপরে নজর রাখছে, সমস্ত বিধায়কদের উপরে নজর রাখছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিন্তু আর আগের মতো নেই”।

আরও পড়ুনঃ চোখ মেরে শাড়ির আঁচল ফেলে প্রচার মুনমুনের, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়

২০১৪ সালে লোকসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে অপ্রত্যাশিতভাবে জিতেছিলেন বিজেপির বাবুল সুপ্রিয়। শোচনীয় হার হয়েছিল তৃণমূল প্রার্থী দোলা সেনের। পরাজয়ের খবর পেয়েই মন্ত্রীত্ব থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন মলয় ঘটক। অভিযোগ উঠেছিল গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে দোলা সেনকে হারতে হয়েছিল। সেই ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে তাই এবার অনেকটা সাবধানী নেতারা। আর সেই বিষয়ে জোর দিতেই কোটি টাকার কাজ দিয়ে ভোট কেনার চেষ্টা বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুনঃ ভোটের দিন ঘোষণার পরেই প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে বাংলায় এগিয়ে তৃণমূল

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন