মোদীর গেরুয়া রথকে আটকাতে পারল না মমতার সরকার

456
মোদীর গেরুয়া রথকে আটকাতে পারল না মমতার সরকার/The News বাংলা
মোদীর গেরুয়া রথকে আটকাতে পারল না মমতার সরকার/The News বাংলা

The News বাংলা, কলকাতাঃ মোদীর গেরুয়া রথকে আটকাতে পারল না মমতার সরকার। হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চে হার রাজ্য সরকারের। শর্তসাপেক্ষে রথ যাত্রার অনুমতি দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী। রায়ের পরই বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় জানিয়ে দিয়েছেন, ‘বাংলায় রথ যাত্রার উদ্বোধন করবেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ’।

আরও পড়ুনঃ শিক্ষিতদের বিধায়ক করল তেলাঙ্গানা, কবে শিখবে বাংলা

গেরুয়া রথ নিয়ে বৃহস্পতিবার ফের লড়াই শুরু হয় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তীর এজলাসে। আবার সম্মুখ সমরে নামে বঙ্গ বিজেপি ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। সোমবার, ‘গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রা’ বা ‘রথ যাত্রা’র পক্ষে এবং বিপক্ষে দুটি মামলায় হয় সিঙ্গেল বেঞ্চ এবং ডিভিশন বেঞ্চে। দুই বিচারপতির উপর নির্ভর করছিল যে বিজেপির এই রথযাত্রা আদৌ বাংলায় চালতে পারবে কিনা। দুই বিচারপতির কাছেই আজ জিত হয়েছে বিজেপির।

আরও পড়ুনঃ মঙ্গলবার হাইকোর্টের দুই বিচারপতির ঘরে বাংলায় ‘গেরুয়া রথ’ এর ভবিষ্যৎ

কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দার ও বিচারপতি অরিন্দম মুখোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব এবং রাজ্য পুলিশের ডিজি, বিজেপির প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করবেন। তারপর রাজ্যের সিদ্ধান্ত জানাবেন। বৈঠকের পরই নবান্ন থেকে রথ যাত্রার অনুমতি দেওয়া হয় নি। তারই বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তীর বেঞ্চে মামলা করে বিজেপি।

আরও পড়ুনঃ নেতাদের গুন্ডা পোষা না গুন্ডাদের নেতা হওয়া, প্রকাশ্যে বন্দুকবাজির কারন কি

আজ বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী রাজ্যের রথ অনুমতি না দেওয়া বাতিল করে শর্তসাপেক্ষে রথ যাত্রার অনুমতি দিলেন। এর ফলে বিজেপির রথকে বাংলায় চলা থেকে আর আটকাতে পারছে না মা মাটি মানুষের সরকার। তবে সিঙ্গেল বেঞ্চে এই রায়ের পর ফের কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে মামলা নিয়ে যেতে চলছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুনঃ EXCLUSIVE: কলকাতা থেকে পুলিশ ও ব্যবসায়ীদের টাকা যাচ্ছে জঙ্গিদের হাতে

হাইকোর্টের বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তীর এই সিদ্ধান্ত, ‘রাজ্য সরকারের গালে একটা থাপ্পড়’ বলেছেন বিজেপি নেতারা। কলকাতা হাইকোর্টের অনুমতি পাবার পরই বিজেপির তরফ থেকে রাজ্য জুড়ে ৫টি রথ বের করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ শহীদ জওয়ানকে সম্মান নয়, সেনাকে পাথর ছুঁড়ে দেশদ্রোহীরাই ভারতে ‘নায়ক’

অন্যদিকে, প্রধান বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্তর ডিভিশন বেঞ্চে এই ‘রথ যাত্রা’ বন্ধ করতে চেয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন আইনজীবী রমাপ্রসাদ সরকার। তার বক্তব্য ছিল, এই ‘রথ যাত্রা’র ফলে রাজ্যের আইন শৃংখলার অবনতি ঘটতে পারে। পাশাপাশি জনজীবন স্তব্ধ হয়ে যাবে। সাধারণ মানুষকে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হবে। এই মামলাও আজ খারিজ করে দেন প্রধান বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্তর ডিভিশন বেঞ্চ। ফলে জোড়া মামলায় সিঙ্গেল ও ডিভিশন বেঞ্চে জয় পেল বিজেপির রথ।

আরও পড়ুনঃ ‘কৃষি ঋণ মকুব’, মানুষ ও মিডিয়াকে চরম বোকা বানিয়ে ছলচাতুরী কংগ্রেসের

গত বৃহস্পতিবার লালবাজারে বৈঠক শেষে, নবান্ন ‘রথ যাত্রা’র অনুমতি দেয় নি। নবান্ন জানায়, ‘গোয়েন্দা সূত্রে পাওয়া খবর অনুসারে কয়েকটি জেলায় আরএসএস, বজরং দল এবং বিশ্ব হিন্দু পরিষদের মত উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন এই যাত্রায় যোগ দেবে। সে ক্ষেত্রে রথযাত্রার সময়ে এবং পরবর্তীকালে শান্তিভঙ্গের গুরুতর আশঙ্কা রয়েছে’। এর প্রমাণে জেলাশাসক, পুলিশ সুপার ও গোয়েন্দাদের ৩১ টি রিপোর্ট কোর্টে জমা দিয়েছিল রাজ্য। তবে, সবকিছুই খারিজ করে রথযাত্রার অনুমতি দিল আদালত।

আরও পড়ুনঃ EXCLUSIVE: ডাক্তারের প্রোফাইল হ্যাক করে মহিলাদের ন্যুড ভিডিও পাঠাল ইঞ্জিনিয়ার

তবে, বেশ কিছু শর্তসাপেক্ষে রথ যাত্রার অনুমতি দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী। রাজ্যে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হবে। মানুষের জীবন বা সম্পত্তির ক্ষতি হলে তা ক্ষতিপূরণ করতে হবে বিজেপিকেই। কোন রকম আইন শৃঙ্খলা অবনতি হলে দায়ী থাকবে বিজেপি।

আরও পড়ুনঃ ‘ইন্দিরা গান্ধী ভারতে এমারজেন্সি লাগু করেছিলেন, বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’

আরও বেশ কিছু শর্ত দিয়েছে আদালত। রথ যাত্রার ১২ ঘণ্টা আগে জানাতে হবে প্রশাসনকে। যান চলাচলে ব্যাঘাত ঘটান যাবে না। রাজ্যকেও উপযুক্ত পুলিশি ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছে বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী।

পড়ুন হাড়হিম করা অদ্ভুত সত্য গল্প:
পড়ুন প্রথম পর্বঃ পৃথিবী এগোলেও তান্ত্রিকের কালো জাদু টোনায় ডুবে আফ্রিকা
পড়ুন দ্বিতীয় পর্বঃ পৃথিবী এগোলেও তান্ত্রিকের কালো জাদু টোনায় ডুবে আফ্রিকা
পড়ুন তৃতীয় ও শেষ পর্বঃ পৃথিবী এগোলেও তান্ত্রিকের কালো জাদু টোনায় ডুবে আফ্রিকা

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন