হাইকোর্টে স্বস্তি ববি হাকিমের, চরম অস্বস্তিতে দিলীপ ঘোষ

375
হাইকোর্টে স্বস্তি ববি হাকিমের, চরম অস্বস্তিতে দিলীপ ঘোষ/The News বাংলা
হাইকোর্টে স্বস্তি ববি হাকিমের, চরম অস্বস্তিতে দিলীপ ঘোষ/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

The News বাংলা, কলকাতা: শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টে স্বস্তি কলকাতার মেয়র হতে চলা রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ ‘ববি’ হাকিমের। অন্যদিকে চরম অস্বস্তিতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

মেয়র পদে মামলায় হাইকোর্টে ধাক্কা খেল বামেরা। শুক্রবার, সিপিআইএম কাউন্সিলর বিলকিস বেগম এর করা মামলা খারিজ করে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। মেয়র পদে ববি হাকিমের নাম প্রস্তাব করায়, কলকাতা হাইকোর্টে বিধানসভায় পাস হওয়া সংশোধনী আইনকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছিলেন কলকাতা পুরসভার সিপিআইএম কাউন্সিলর বিলকিস বেগম।

সেই মামলার দীর্ঘ শুনানি হয় বিচারপতি দেবাংশু বসাকের এজলাসে। মামলা চলাকালীন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত সংশোধিত আইনের পক্ষেই সওয়াল করেন আদালতে।

শোভন চ্যাটার্জী কলকাতার মেয়র পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরই রাজ্য সরকার বিধানসভা অধিবেশনে তড়িঘড়ি করে ১৯৮০ সালের কলকাতা পুরসভা আইনে সংশোধনী আনে। সংশোধনী আইন অনুযায়ী, বাইরের কেউ (কাউন্সিলর না হলেও) মেয়র হতে পারবেন। তবে তাকে ৬ মাসের মধ্যে পুরসভার যে কোন ওয়ার্ড থেকে জয়লাভ করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ
হাতি খাঁচা ক্যামেরা ড্রোন তল্লাশি নজরদারি সব ব্যর্থ, ৩ দিনেও লবডঙ্ক্যা
EXCLUSIVE: নতুন বছরে সুখবর, রাজ্য সরকারি কর্মীরা পাচ্ছেন বকেয়া ডিএ
বাংলায় আবার নক্ষত্র পতন, চলে গেলেন বিখ্যাত সাহিত্যিক
‘রাম’কে ছেড়ে আসা লক্ষণকে ‘হাতে’ নিয়ে বাংলায় তুলকালাম
কংগ্রেস ছেড়ে মমতার ‘মহানায়িকা’ এবার মোদীর বক্স অফিসে

সংশোধনী আইনকে চ্যালেঞ্জ করে কলকাতা পুরসভার ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডের সিপিএম কাউন্সিলর বিলকিস বেগম হাইকোর্টে মামলা করেন। বিচারপতি দেবাংশু বসাকের এজলাসে মামলার শুনানি চলাকালীন মামলাকারীর পক্ষের আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, “সংবিধানের ২৪৩ আর (২৫৩আর) ধারা অনুযায়ী পুরসভার মেয়র হতে পারেন একমাত্র নির্বাচিত কাউন্সিলরই”।

মামলায় প্রশ্ন তোলা হয়, “অনির্বাচিত কাউন্সিলরের যোগ্যতা নেই মেয়র পদে বসার। কিন্তু শোভন চ্যাটার্জী পদত্যাগ করার পরই রাজ্য সরকার বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে চটজলদি ১৯৮০ সালের আইনে সংশোধনী আনে। বিশেষ উদ্দেশ্য না থাকলে সরকারের কি এমন দরকার পড়ল অনির্বাচিত কাউন্সিলর ফিরহাদকে মেয়র পদে বসানোর?”।

মামলায় বলা হয়, “রাজ্যের শাসকদলের হাতে তো সর্বাধিক কাউন্সিলর রয়েছে ওই পুরসভায়। তাদের বাদ দিয়ে হঠাৎ অনির্বাচিত কোন ব্যক্তিকে মেয়র করা হচ্ছে কেন? এটা তো সংবিধানের ২৪৩ আর ধারার পরিপন্থী। এছাড়া, অনির্বাচিত হওয়ায় ফিরহাদের তো মেয়র পদে নির্বাচন বেআইনি”। মেয়র নির্বাচন স্থগিত করার আর্জি জানান হয় আদালতে।

এর বিরোধিতা করেন রাজ্যের আডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। তিনি বলেন, “সংবিধান মেনেই কলকাতা পুরসভার আইনে সংশোধনী আনা হয়েছে। সংশোধিত আইন সংবিধানের পরিপন্থী নয়। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী পদের ক্ষেত্রেও তো বাইরের কাউকে সেই পদে বসালে সেই ব্যক্তিকে ৬ মাসের মধ্যে ভোটে জিতে আসতে হয়। তাহলে মেয়র পদের ক্ষেত্রে হবে না কেন?”

আরও পড়ুনঃ
শীতের বাংলায় বৃষ্টি আনতে আন্দামান থেকে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘পাবুক’
দেশপ্রেম বাড়াতে স্কুলের রোল কলে এবার ‘জয় হিন্দ’ ও ‘জয় ভারত’

কলকাতার পুরসভার আইনজীবী শক্তিনাথ মুখোপাধ্যায়ের দাবি, “বিধানসভায় রাজ্য সরকারের অধিকার রয়েছে পুরসভার বিলে সংশোধনী আনার। তাকে আইনে পরিনত করার। আর এই আইন সংশোধনের জন্য রাষ্ট্রপতির অনুমোদনের দরকার নেই”।

শুক্রবার, বিচারপতি দেবাংশু বসাক রায় দেন, কলকাতা পুরসভার মেয়র নির্বাচনে কোনো বাধা নেই। সরকারের আইন পরিবর্তন বৈধ বলেই জানিয়ে দেন তিনি।

অন্যদিকে, শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে দিলীপ ঘোষের অস্বস্তি আরও বাড়াল কলকাতা হাইকোর্ট। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে জনস্বার্থ মামলায় কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের কাছে রিপোর্ট তলব করল আদালত।

রিপোর্ট তলব করলেন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দার ও বিচারপতি অরিন্দম মুখোপাধ্যায় ডিভিশন বেঞ্চ। আগামী ১৪ দিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ। ফলে শিক্ষাগত যোগ্যতার কাঁটা রয়েই গেল দিলীপ ঘোষের।

আরও পড়ুনঃ
শীতের বাংলায় বৃষ্টি আনতে আন্দামান থেকে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘পাবুক’
EXCLUSIVE: সংখ্যালঘুদের ধর্মে সুড়সুড়ি দিয়ে প্রকাশ্যে ভারতের টাকার কালোবাজারি
লোকসভার সঙ্গেই জম্মু কাশ্মীরে ভোট করতে প্রস্তুত মোদী সরকার
ভোরবেলায় শবরীমালা মন্দিরে ঢুকে ইতিহাস সৃষ্টি ‘মা দুর্গার’

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন