“যতটা দুঃখ, ততটাই লজ্জা”, কেকে’র অস্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক কুণাল সরকার

93
"যতটা দুঃখ, ততটাই লজ্জা", কেকে'র অস্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক কুণাল সরকার

“যতটা দুঃখ, ততটাই লজ্জা”; কেকে’র অস্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক কুণাল সরকার। কেন মারা গেলেন কেকে? বিখ্যাত গায়কের অকাল মৃত্যুর জন্য; চারটি কারণকেই নিজের টুইটে লিখে দায়ী করলেন বিখ্যাত চিকিৎসক।

মঙ্গলবার কলকাতার নজরুল মঞ্চে, উল্টোডাঙার গুরুদাস মহাবিদ্যালয়ের; গানের অনুষ্ঠান করছিলেন বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী কেকে। শুরু থেকেই তিনি অসুস্থতা বোধ করতে থাকেন; এমনটাই জানা যাচ্ছে প্রতক্ষ্যদর্শীদের কাছ থেকে, বেশ কয়েকটি ভিডিও দেখে। তারপর সময়ের আগেই ফিরেছিলেন হোটেলে; তার কিছুক্ষণের মধ্যেই সব শেষ। প্রায়ত হয়েছেন বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী কেকে। এই খবর বিনা মেঘে বজ্রপাতের মত নেমে এসেছিল গোটা দেশে। হার্ট অ্যাটাক বলা হলেও, কেকের মৃত্যুর পর; উঠেছে একাধিক প্রশ্ন। যা নিয়েই এবার মুখ খুলেছেন; রাজ্যের বিশিষ্ট কার্ডিওলজিস্ট ডঃ কুণাল সরকার।

আরও পড়ুনঃ মৃত্যুতেও রূপঙ্করকে কামানোর সুযোগ দিয়ে গেলেন কেকে

"যতটা দুঃখ, ততটাই লজ্জা", কেকে'র অস্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক কুণাল সরকার
“যতটা দুঃখ, ততটাই লজ্জা”, কেকে’র অস্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক কুণাল সরকার

ডঃ কুণাল সরকার তাঁর ফেসবুক পোস্টে ও টুইটে মঙ্গলবারের কথা উল্লেখ করে লিখেছেন; “বেদনা আর লজ্জার সন্ধ্যা; যতটা দুঃখ, ততটাই লজ্জা”। কেকে’র ছবি দিয়ে তিনি লিখেছেন; মঙ্গলবারের নজরুল মঞ্চের বেশ কয়েকটি অবস্থার কথা। কুণাল সরকার লিখেছেন, “বেসামাল ভিড়, এসি বেহাল, ভীষণ গরম, মুখের উপর Fire Extinguisher Spray করা। ২ ঘণ্টার উপর সময় নষ্ট করে, শেষ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া”। তারপরেই প্রয়াত কেকের উদ্দেশ্যে তিনি লিখেছেন; “আমাদের ক্ষমা কর”।

আরও পড়ুনঃ কেকের মৃত্যুর পর, বাংলায় আর কেউ গান গাইতে আসবে তো

গায়কের মৃত্যু-তদন্তে উঠে আসছে একাধিক জল্পনা। কেউ বলছেন হার্ট অ্যাটাক, কেউ বলছেন হোটেলের সিঁড়িতে পড়ে গিয়েছিলেন; বমি করেছিলেন, সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলে ছিলেন। আবার কেউ বলছেন গায়কের মুখে মাথায়; আঘাতের চিহ্ন দেখা গিয়েছিল। বুধবার এসএসকেএম হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য; গায়কের দেহ পাঠানো হয়েছে। বুধবার সকালে কলকাতায় এসে পৌঁছেছেন, প্রয়াত সংগীতশিল্পীর স্ত্রী ও পুত্র সহ; পরিবারের বাকি সদস্যরা। সঙ্গীতশিল্পীর মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ। মর্মান্তিক ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন; প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নজরুল মঞ্চের দর্শক ধারণ ক্ষমতা ২৪০০ আসনের। কেকে’র অনুষ্ঠান চলাকালীন দর্শক প্রবেশ করেছিল প্রায় সাতহাজার। তাই এসিও কাজ করেনি; এমনটাই অভিযোগ কুণাল সরকারেরও।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন