বিধায়ক খুনে রাম নেতাকে বাঁচাতে আসরে বাম নেতা

502
বিধায়ক খুনে রাম নেতাকে বাঁচাতে আসরে বাম নেতা/The News বাংলা
বিধায়ক খুনে রাম নেতাকে বাঁচাতে আসরে বাম নেতা/The News বাংলা

রামকে বাঁচাতে আসরে বাম। রাম নেতার জেল যাওয়া ঠেকাতে আদালতে দাঁড়ালেন বাম নেতা। ঘটনা এটাই। তৃণমূল বিধায়ক খুনে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের আগাম জামিনের মামলা লড়ছেন সিপিএম নেতা ও আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য্য। চলতি সপ্তাহে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানির সম্ভাবনা। এই নিয়ে তুমুল সমালোচনা শুরু করেছে তৃণমূল এর তরফ থেকে।

আরও পড়ুনঃ পরীক্ষা শুরুর আগেই হোয়াটস অ্যাপে ফাঁস মাধ্যমিক প্ৰশ্নপত্র

গত শনিবার রাতে সরস্বতী পুজোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গিয়ে দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হন নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিত বিশ্বাস। তৃণমূল বিধায়ক খুনের ঘটনায় সরাসরি বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয় নদিয়া তৃণমূলের পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুনঃ ডানলপে ভয়াবহ আগুন, লেলিহান আগুনের গ্রাসে সব

এছাড়াও আরও ৩জনের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানায় তৃণমূল নেতৃত্ব। মুকুল রায় ও অন্যান্য বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে করা হয় এফআইআর। তৃণমূল বিধায়ক খুনের ঘটনায় দায়ের হওয়া এফআইআর-এর প্রেক্ষিতে গ্রেফতারি আটকাতে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

আরও পড়ুনঃ ফের লজ্জার অন্ধকারে সিবিআই, চরম অপমানের শাস্তি সিবিআই প্রধানকে

মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে আগাম জামিনের আবেদন জানিয়েছেন মুকুল রায়। সম্ভবত চলতি সপ্তাহেই মুকুলের আবেদনের প্রেক্ষিতে শুনানি হবে কলকাতা হাইকোর্টে। জানা যাচ্ছে, সেখানেই মুকুল রায়ের হয়ে সওয়াল করবেন সিপিএম নেতা ও হাইকোর্টের আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য।

আরও পড়ুনঃ হোটেলে ভয়াবহ আগুন, জীবন্ত দগ্ধ ১৫, লাফ মেরে মৃত আরও ২

মামলার বয়ান অনুযায়ী ২০১৭ সালের নভেম্বরে মুকুল রায় তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন। তারপর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন থানাগুলিতে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে ২৫টির বেশী মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই সমস্ত মামলাগুলোর মধ্যে কলকাতা হাইকোর্ট রেলের চাকরির প্রতারণা মামলায় ১২টি মামলা খারিজ করে দেয়। পরবর্তী পর্যায়ে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে আরও ৭টি মামলা দায়ের করা হয়।

আরও পড়ুনঃ মমতার ধর্ণায় বসা পুলিশ অফিসারদের কড়া শাস্তি দিতে চলেছে মোদী সরকার

মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে হাঁসখালি থানায় তৃণমূল নেতা সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের দায়ে ৩০২, ১২০ বি, ষড়যন্ত্র এর অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনায় চারজনের বিরুদ্ধে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে যার মধ্যে একজন ফেরার এবং কার্তিক মন্ডল ও সুজিত মন্ডল নামে দুই অভিযুক্তকে ইতিমধ্যেই পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বিরদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে তাঁকে বারবার ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে, বলে জানান মুকুল রায়ের আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য্য ও শুভাশীষ দাশগুপ্ত।

আরও পড়ুনঃ মমতার বাংলায় ১ লাখ চাকরির প্রতিশ্রুতি দিলেন মুকেশ আম্বানি

গত শনিবার রাতে সরস্বতী পুজোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গিয়ে খুন হন কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিত বিশ্বাস। সত্যজিতের মৃত্যুর পরই তৃণমূল জেলা সভাপতি গৌরিশঙ্কর দত্ত দাবি করেন, “এই হত্যাকাণ্ডের মূল চক্রী মুকুল রায়”। তারপরেই মুকুল রায় সহ বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়। খুনের ঘটনার সঙ্গে তাঁর জড়িত থাকা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মুকুল রায়। তিনি দাবি করেন গোষ্ঠী কোন্দলেই খুন হয়েছেন সত্যজিৎ।

আরও পড়ুনঃ রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এর বড় ঘোষণা, লোকসভা ভোটের আগে মধ্যবিত্তের মুখে হাসি

যদিও, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করেন, “তৃণমূলের অন্তরদ্বন্দেই এই খুন”। সিবিআই তদন্তের দাবিও জানান তিনি। এই বাকযুদ্ধের মধ্যেই মুকুল রায়-সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়। এফআইআর হওয়ার পরেই মঙ্গলবার মুকুল রায় কলকাতা হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করেন। মুকুল রায় আগাম জামিন পাবেন কি পাবেন না, তা জানা যাবে চলতি সপ্তাহেই। আর সেখানেই তাঁর হয়ে সওয়াল জবাব করবেন বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য, এমনটাই জানা যাচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ রাহুলকে সরিয়ে লোকসভা ভোটে মোদী বিরোধী মুখ প্রিয়াঙ্কাই

এদিকে সোমবার হাঁসখালিতে মৃত বিধায়কের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মুকুল রায়ের নাম না করেন তিনি বলেন, “যদি কেউ ভাবে দিল্লির নেতাদের পাজামা ধরে ঝুলে পার পেয়ে যাবে, তাহলে তার মনে রাখা দরকার, এরাজ্যের পুলিশমন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলার ধরে শ্রীঘরে ঢোকাব”।

আরও পড়ুনঃ লোকসভা ভোটের আগে হত্যা মামলা থেকে মুক্তি নরেন্দ্র মোদীর

গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, লোকসভা নির্বাচনের আগে মুকুল রায়কে কোণঠাসা করতেই এই পদক্ষেপ করেছে শাসকদল। এদিকে মুকুলের হয়ে আদালতে বিকাশের দাঁড়ানোর খবর চাউর হতেই রাম বাম একসঙ্গে কাজ করার তৃণমূলের অভিযোগ ফের সামনে এল। তৃণমূলের তরফ থেকে বলা হয়েছে এই ঘটনায় প্রমাণ হল, তাঁদের অভিযোগই ঠিক যে, বাংলায় রাম বাম তলায় তলায় আঁতাত রয়েছে।

বিজেপি ও বামেদের তরফ থেকে বলা হয়েছে আইনজীবী হিসাবে বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য যে কারোর হয়েই দাঁড়াতেই পারেন। তবে মুকুল রায় ও বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য এর তরফে এই নিয়ে কোন মন্তব্য জানা যায়নি।

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন