রাজ্যের হাতে টাকা নেই বাজারে ধার, তারপরেও বিধায়কদের ভাতা বাড়ছে

771
রাজ্যের হাতে টাকা নেই বাজারে ধার, তারপরেও বিধায়কদের ভাতা বাড়ছে/The News বাংলা
রাজ্যের হাতে টাকা নেই বাজারে ধার, তারপরেও বিধায়কদের ভাতা বাড়ছে/The News বাংলা

রাজ্যের বাসিন্দাদের যাই হোক, রাজনীতির নেতারা নিজের আখের গুছিয়ে নিতে ব্যস্ত। অভিযোগ এমনটাই। রাজ্যের হাতে নাকি টাকা নেই। সরকারি কর্মীদের মাইনে দিতে গিয়ে বাজারে ধার করতে হয়। পুলিশে নিয়োগ নেই, সিভিক পুলিশ দিয়ে কাজ চালাতে হয়। শিক্ষক এর বদলে ২০০০ টাকার ইন্টার্ন শিক্ষক নিতে হয়। সেই রাজ্যে, এরপরেও বিধায়কদের দৈনিক ভাতা বাড়তে চলেছে।

আরও পড়তে পারেনঃ ব্রিগেড থেকে ফিরেই ভোলবদল, মমতা নয় রাহুলকেই প্রধানমন্ত্রী চাইলেন নেতারা

লোকসভা ভোটের আগেই রাজনীতির নেতাদের কাছে বড় খবর। বাড়তে পারে বিধায়কদের দৈনিক ভাতা। বিধানসভার অধিবেশন চলাকালীন বিধায়কদের দৈনিক ভাতা বেড়ে হতে পারে ২০০০ টাকা। অর্থাৎ বিধানসভার অধিবেশন চলাকালীন একবার শুধু হাজিরা দেওয়া। তাহলেই প্রতিদিন ২০০০ টাকা। তবে বছরের অন্য সময় ১০০০ টাকাই ভাতা পাবেন বিধায়করা।

আরও পড়তে পারেনঃ বিহারী ভোট ধরতে বাংলায় বাবুলের বিরুদ্ধে বিহারীবাবু

রাজ্যের হাতে টাকা নেই বাজারে ধার, তারপরেও বিধায়কদের ভাতা বাড়ছে/The News বাংলা
রাজ্যের হাতে টাকা নেই বাজারে ধার, তারপরেও বিধায়কদের ভাতা বাড়ছে/The News বাংলা

সোমবার বিধানসভায় এনটাইটেলমেন্ট কমিটির বৈঠকে এই প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এই কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ বিমান ব্যানার্জী জানান, বিধানসভার অধিবেশন চলাকালীন বিধায়কদের দৈনিক ভাতা বৃদ্ধির এই প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে অর্থ দফতর এ।

আরও পড়তে পারেনঃ মার্চেই শুরুতেই ভারতে লোকসভা ভোটের ঘোষণা

এতদিন মন্ত্রীদের ২০০০ টাকা দৈনিক ভাতা এবং বিধায়কদের ১০০০ টাকা ভাতা চালু রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই এই ভাতা বাড়ানোর দাবি উঠেছিল। দাবি তুলেছিলেন সব দলের বিধায়করাই। তবে সরকার ভাতা বাড়াতে নারাজ ছিল। সোমবার কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে সারা বছর না বাড়লেও অন্তত বিধানসভার অধিবেশন চলাকালীন বিধায়কদের ভাতা দৈনিক ২০০০ টাকা করা হোক।

আর সেই প্রস্তাবই অর্থ দফতর এ পাঠানো হচ্ছে। জানা গেছে, এই প্রস্তাবে সায় দিয়েছেন সব দলের নেতারাই। কোন দলের কোন বিধায়ক এই ভাতা বাড়ানোর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন, এখন পর্যন্ত এরকম খবর নেই। তবে প্রশ্ন উঠছে, যেখানে টাকার অভাবে রাজ্যবাসীর এই হাল, সেখানে বিধায়কদের ভাতা দ্বিগুন করার কি যুক্তি আছে?

রাজ্যের হাতে টাকা নেই বাজারে ধার, তারপরেও বিধায়কদের ভাতা বাড়ছে/The News বাংলা
রাজ্যের হাতে টাকা নেই বাজারে ধার, তারপরেও বিধায়কদের ভাতা বাড়ছে/The News বাংলা

ক্ষমতায় এসেই মন্ত্রীদের বেতন ও ভাতা বাড়ায় মা মাটি মানুষের সরকার। গত বছরেই মমতার সরকার মন্ত্রীদের পর বিধায়কদেরও রোজগার এক লাফে দেড় গুণ বৃদ্ধি করে। এবার বিধায়কদের ভাতা আবার বাড়াতে চলেছে সরকার। জানা গিয়েছে, সংশ্লিষ্ট কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবে অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় ভাতা বাড়ানোর প্রস্তাব সরকারের অনুমোদনের জন্য অর্থ দফতরে পাঠিয়ে দিয়েছেন। আর মুখ্যমন্ত্রী হ্যা বলে দেওয়ায় এখন শুধু নবান্নের সবুজ সংকেতের অপেক্ষা।

আরও পড়তে পারেনঃ

বাংলায় ক্ষোভ বাড়িয়ে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের বেতন বাড়াচ্ছে মোদী সরকার

ভোটের আগে মানুষের মুখে হাসি ফোটাবে মোদী সরকারের অন্তর্বর্তী বাজেট

গত বছরেই বেতন ও ভাতা বাড়ায়, বেতন এবং বিভিন্ন ধরনের ভাতা মিলিয়ে একজন বিধায়কের মাসিক রোজগার এখন প্রায় ৮১ হাজার টাকা। সব মিলিয়ে মমতার হাত ধরে প্রায় দেড় গুণ আয় বেড়েছে তাঁদের। বৃদ্ধিপ্রাপ্ত রোজগার যা দাঁড়াবে, তা প্রায় মন্ত্রী, অধ্যক্ষ এবং বিরোধী দলনেতার রোজগারের সমান। এবার আবার বাড়তে চলেছে ভাতা।

এর ফলে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে নতুন করে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। এদিকে বকেয়া ডিএ না পাওয়ার পর, ষষ্ঠ বেতন কমিশনের মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ানোর পরে এমনিতেই তাঁদের মধ্যে ক্ষোভ তুঙ্গে রয়েছে। ইতিমধ্যেই কোঅর্ডিনেশন কমিটিসহ বিরোধী কর্মচারী সংগঠনগুলির নেতৃত্ব এই ভাতা বাড়ান নিয়ে তীব্র আপত্তি জানাতে শুরু করেছে।

আরও পড়তে পারেনঃ

শ্রীজাত হেনস্থা ঘটনায় বাংলার বুদ্ধিজীবিদের মুখোশ খুললেন তসলিমা

ব্যর্থ মহাজোটে ত্রিমুখী লড়াই, উত্তরপ্রদেশে একা লড়বে কংগ্রেস

সব মিলিয়ে এখন মন্ত্রীরা মাস গেলে পান ৮১ হাজার ৩০০ টাকা। মুখ্যমন্ত্রী পান ৮৬ হাজার ৩০০ টাকা। যদিও মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য বলেন, তিনি বেতন নেন না। বিধায়করাও এখন প্রায় সেরকমই পান। এবার আবার ভাতা বাড়ছে এমএলএ-দের।

বিধানসভায় ‘দ্য ওয়েস্ট বেঙ্গল লেজিসলেটিভ অ্যাসেম্বলি (মেম্বার্স ইমোলিউমেন্টস্) (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল, ২০১৭’ এবং ‘দ্য ওয়েস্ট বেঙ্গল স্যালারিজ অ্যান্ড অ্যালাওন্সেস (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল, ২০১৭’— এই জোড়া বিল পাশ হয় গতবছরেই। এর ফলে বেতন ও ভাতা বাড়ে বিধায়কদের। এবার আবার ভাতা বাড়তে চলেছে। রাজ্যের মাথায় ধারের বোঝা যে আরও বাড়বে, তা বলাই যায়। এই সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে মানবতাবাদী সংগঠনগুলিও।

আরও পড়তে পারেনঃ

বাংলায় দুর্গা পুজো বন্ধ করার চক্রান্ত করছে মোদীর বিজেপি, মারাত্মক অভিযোগ মমতার

মমতার বাছাইয়ে কারা হবেন বাংলার ৪২টি লোকসভা আসনের তৃণমূল প্রার্থী

মোদীর প্রকল্পে আর টাকা দেবেন না মমতা, কেন্দ্র রাজ্য সম্পর্ক তলানিতে

একদিনে বহিষ্কৃত দুই তৃণমূল সাংসদ, দিদিকে ছেড়ে মোদীর দলে আর কে কে

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন